Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৫ ফাল্গুন, ১৪২৩, ২৯ জামাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী।

বাংলাদেশ এখন নেতা উৎপাদনের বিরাট কারখানা সামনে দেখলে চিনতে পারি না : ওবায়দুল কাদের

| প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

আগামী নির্বাচন প্রতিহতের ক্ষমতা বিএনপির নেই
রাজশাহী ব্যুরো : সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘দেশ ডিজিটাল হয়েছে। নেতাকর্মীদের বলব, কাজেকর্মে স্মাট হতে হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশের সুবিধা নিয়ে নিজেদের এগিয়ে নিতে হবে। ছোটদের স্নেহ, বড়দের শ্রদ্ধা, শালীনতা বজায় রাখাÑ এগুলো এনালগ আচার-ব্যবহার। টেকনোলজির সাথে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। কিন্তু আচার-ব্যবহারে আমি কাউকে ডিজিটাল হতে বলব না। আচার-ব্যবহার এনালগ হতে হবে। এখানে আমরা ডিজিটাল চাই না। ডিজিটাল হলে কে কোনটা করে বসে, তার ঠিক নেই। ডিজিটাল হলো একটা স্বচ্ছ বিষয়। একটা ভিশনের বিষয়। কাজেই এটাকে ওইভাবে দেখতে নেই। আমি নেতাকর্মীদের বলব, কাজকর্মে ডিজিটাল হোন। টেকনোলজির সাথে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।
মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন নেতা উৎপাদনের বিরাট কারখানা। পাতি নেতা; সিকি নেতা, হরেক রকমের নেতা। তাদের ছবি দেখি বিলবোর্ডে। সামনে দেখলে চিনতে পারি না। বিলবোর্ডে সবাই নায়ক হয়ে যায়! এরা নিজেদের প্রচারণায় শেখ হাসিনাকে ব্যবহার করে, ওবায়দুল কাদেরকে ব্যবহার করে। এসব নেতা থেকে সাবধান। দেশকে কর্মী উৎপাদনের কারখানা করতে হবে।’
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগরের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, একসেস টু ইনফরমেশন প্রকল্পের জনপ্রেক্ষিত বিশেষজ্ঞ নাইমুজ্জামান মুক্তা এবং রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মুহা. হবিবুর রহমান।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাজশাহীর বিভাগীয় কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) মুনির হোসেন। বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় এ মেলার আয়োজন করেছে। মেলায় রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ৬৫টি স্টল রয়েছে। তিন দিনব্যাপী এ মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।
সেøাগানে ফুলে বিরক্তি
বিভাগীয় ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের ফুল এবং সেøাগান দেয়ায় বিরক্ত হয়ে মন্ত্রী বলেন, এখানে যে সেøাগান আছেÑ তা রাজনৈতিক সভায় দেয়া ভালো। আমরা যখন রাজনৈতিক সমাবেশ করি, তখন আমাদের সেøাগান দেয়াই ভালো। তবে এখানে সজীব ওয়াজেদের নেতৃত্বের প্রশংসায় সেøাগান দিলে আমি খুশি হতাম। আমাকে ছাত্রলীগ এয়ারপোর্টে ফুল দিয়েছে, আবার এখানে ফুল দিচ্ছে। আগামীকাল আমরা যখন রাজনৈতিক সভা করব, তখন ইচ্ছেমতো সেøাগান দিব, কেউ বাঁধা দিব না। যারা সেøাগান দেয়, তারাই আবার হাততালি দেয়, সব কিছুতেই আছে। এ হুজুগ থেকে বেরিয়ে যেতে হবে। যে আসরে যে গান, সেই আসরে তাই গাইতে হবে।
নির্বাচন ঠেকাতে পারবে না বিএনপি
‘খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে নির্বাচনে অংশ নেয়ার পথ বন্ধ করা হলে ভোটও হবে না’ বলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গত বুধবার যে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, তার প্রতিক্রিয়ায় ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী সংসদ নির্বাচন প্রতিহত করার মতো ক্ষমতা বিএনপির নেই। আদালতে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া যদি নির্বাচনে অযোগ্যও হন, তাও নির্বাচন প্রতিহত করতে পারবে না দলটি।
ডিজিটাল উদ্বোধনী মেলার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, ‘আদালত খালেদাকে সাজা দিলে তিনি নির্বাচনে অংশ নেয়ার অযোগ্য হবেন। আদালতের রায় জনগণ অমান্য করবে না। বিএনপি অমান্য করলে জনগণ তা প্রতিহত করবে। নির্বাচন প্রতিহত করার মতো কোনো ক্ষমতা বিএনপির নেই। তারা ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি পারেনি, আগামীতেও পারবে না।’

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ