Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ০৮ ফাল্গুন, ১৪২৩, ২২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী।
শিরোনাম

শার্শায় নদীতে পাটা দিয়ে বিষ প্রয়োগ করে দেশি মাছ নিধন

| প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বেনাপোল অফিস : যশোরের শার্শা উপজেলার উলাশীতে উন্মুক্ত বেতনা নদীতে গত বুধবার রাতে পাটা দিয়ে পানিতে বিষ প্রয়োগ করে নদীপাড়ের শতাধিক মৎস্যজীবীর জীবিকা নির্বাহের উৎস দেশি মাছ নিধন করছে দুর্বৃত্তরা।
অভিযোগে জানা গেছে, শার্শা উপজেলার খাজুরা, গিলাপোল ও উলাশী গ্রামের পাশে প্রায় দেড় কিলোমিটার এলাকা দিয়ে বয়ে গেছে বেতনা নদী। এ নদীর শার্শা ও ঝিকরগাছা উপজেলার সংযোগস্থল থেকে সোনামুখী, বনমান্দার বিলের পানি নিষ্কাশনের জন্য সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ১৯৭৬ সালে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে খাল খনন করেন। এ বেতনা নদী ও জিয়া খাল দিয়ে উত্তর শার্শার হাজার হাজার একর জমির পানি নিষ্কাশন হয়ে দক্ষিণে চলে যায়।
বেতনা নদী ও খালের দুই পাশ জনবহুল এলাকা। এলাকার মানুষ এই নদী ও খালের পানিতে গোসল করে, কৃষি জমিতে সেচ দেয়, রান্নার কাজে পানি ব্যবহার করে। এছাড়া এ বেতনা নদী ও খালে উলাশী ও গিলাপোল গ্রামের শতাধিক মৎস্যজীবী মানুষ দেশি মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করে।
অভিযোগে বলা হয়, উলাশীর কতিপয় দুর্বৃত্ত এক জনপ্রতিনিধির নেতৃত্বে রাতের আধারে এ নদীতে পাটা দিয়ে বিষ প্রয়োগ করেছে। বিষ প্রয়োগের পর বুধবার সকালে বেতনার পানিতে প্রায় ২০ প্রজাতির দেশি মাছ মরে ভেসে উঠে। এ ঘটনায় এলাকার মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েছে।
বিষ প্রয়োগকারী দুর্বৃত্তরা সন্ত্রাসী প্রকৃতির বিধায় সাধারণ মানুষ ও সংখালঘু মৎস্যজীবীরা মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না।
স্থানীয় মৎস্যজীবীরা বিষয়টি তাৎক্ষণিক জেলা পুলিশ সুপার ও শার্শা থানাকে অবহিত করলেও প্রশাসন কোনোরকম কর্ণপাত করেনি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উলাশীবাসী বেতনা নদী ও খাল থেকে অবৈধ পাটা অপসারণ করে পানিতে বিষ প্রয়োগকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় এমপি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, যশোর র‌্যাব-৬ ও মানবাধিকার সংগঠনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এ বিষয়ে শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুস সালামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন উম্মুক্ত জলমহলে অবৈধ পাটা দেয়া সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। যদি কেউ বেতনা নদীতে পাটা দিয়ে থাকে, তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা এবং পাটা উচ্ছেদ করা হবে।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ