Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭, ০৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

জালিয়াত চক্রের হোতা ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ১৫

ঢাবি ঘ-ইউনিট ভর্তি পরীক্ষা

| প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

 ১২ জনকে কারাদÐ, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাসহ তিনজনকে সিআইডিতে হস্তান্তর

বিশ^বিদ্যালয় রিপোর্টার : ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০ টা থেকে শুরু হয়ে এই পরীক্ষা চলে বেলা ১১ টা পর্যন্ত। এদিকে ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে ডিজিটাল জালিয়াতির দায়ে ১২ জন ভর্তিচ্ছুকে আটক করেছে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন।
এর আগে গতরাতে বিশ^বিদ্যালয় প্রক্টরিয়াল টিম ও সিআইডির বিশেষ অভিযানে বিশ^বিদ্যালয়ের ড. মো. শহীদুল্লাহ হল থেকে জালিয়াত চক্রের তিন হোতাকে আটক করা হয়েছে। আটক ১২ ভর্তিচ্ছুকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১ মাস করে সাজা দেয়া হয়েছে। এছাড়া চক্রের বাকি তিন হোতার বিরুদ্ধে নিয়মতান্ত্রিক মামলা করবে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন।
ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ এম আমজাদ বলেন, গতরাতে জালিয়াত চক্রের তিনজন এবং আজ ভর্তি পরীক্ষায় ডিজিটাল জালিয়াতির সময় ১২ জনকে আটক করা হয়েছে। এরমধ্যে ১২ জনকে ভ্রম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদÐ দেয়া হয়েছে। বাকি তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করবে বিশ^বিদ্যালয়।
আটক ১৫ জনের মধ্যে ১৪ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে বিশ^বিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষার্থী রয়েছে। যারা জালিয়াত চক্রের হোতা। ক-ইউনিট ভর্তি পরীক্ষার আগ থেকে তাদের খুঁজছিল সিআইডি। এরা হলেন- পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক মহিউদ্দিন রানা এবং ফলিত রসায়ন বিভাগের আব্দুল্লাহ আল মামুন।
বাকি ১২ ভর্তিচ্ছু হলেন- নুর মোহাম্মাদ মাহবুব, ফরহাদুল আলম রানা, ইশরাক হোসেন রাফি, আব্দুল্লাহ আল মুকিম, রিশাদ কবির, আসাদুজ্জামান মিনারুল, ইশতিয়াক আহমেদ, জয় কুমার সাহা, রেজওয়ানা শেখ শোভা, মাশুকা নাসরীন, তারিকুল ইসলাম এবং নাসিরুল হক নাহিদ।
অপরদিকে ভর্তি পরীক্ষার আগে প্রশ্নফাঁস হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। একটি ই-মেইল বার্তার মাধ্যমে রাত সোয়া তিনটায় প্রশ্নের একটি কপি ভর্তিচ্ছুদের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন সূত্র থেকে। তবে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন এরকম দাবিকে সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে। এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর বলেন, আগের রাতে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের প্রশ্নফাঁস হওয়ার কোন সুযোগ নেই। কারণ ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের প্রশ্ন প্রিন্টই হয় সকালে।
উল্লেখ্য, এক হাজার ৬১০টি আসনের বিপরীতে ঘ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে আবেদন করেছিলেন ৯৮ হাজার ৫৪ জন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ৫৩টি ও ক্যাম্পাসের বাইরে ৩৩টি স্কুল-কলেজসহ মোট ৮৬টি কেন্দ্রে এ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

 

 


Show all comments
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক। ২১ অক্টোবর, ২০১৭, ৭:৩৮ এএম says : 0
    আওয়ামীলীগ পন্থী শিক্ষক যদি প্রশ্ন প্রনয়নের দায়ীত্ব একক ভাবে পায় সেক্ষেত্রে ছাত্রলীগের ব্যবসা সহজ হবেই।সোনার ছেলেরা একাজ গুলো না করলে করবে কে?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর