Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০, ৩১ আষাঢ় ১৪২৭, ২৩ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

মালয়েশিয়া সিন্ডিকেটের অধীনেই ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু হচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ অক্টোবর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

তুমুল হৈ চৈ এর মধ্যে বায়রার এজিএম সম্পন্ন
বায়রা সদস্যদের তুমুল হৈঁ চৈঁ-এর মধ্যদিয়ে দশ সিন্ডিকেট সকল রিক্রুটিং এজেন্সিকে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে অনাপত্তি সার্টিফিকেট দিতে সম্মত হয়েছে। দশ সিন্ডিকেটের অধীনেই বায়রা অফিসে শিগগিরই ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করা হচ্ছে। মালয়েশিয়া থেকে সিনার ফ্লাক্স কোম্পানীর আইটি প্রতিনিধি দল ঢাকায় এসে বায়রা অফিসে উল্লেখিত ওয়ান স্টপ সার্ভিস স্থাপন করে দিয়ে যাবে।
উচ্চ মাত্রার চার্জ পরিশোধের মাধ্যমে যেসব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সি মালয়েশিয়া থেকে কর্মী নিয়োগের চাহিদাপত্র আনতে পারবে কেবল তারাই ওয়ান স্টপ সার্ভিসের মাধ্যমে কর্মী পাঠাতে পারবে। এ জন্য দশ সিন্ডিকেট প্রত্যেক রিক্রুটিং এজেন্সিকে অনাপত্তি সার্টিফিকেট দিবে। যাতে বিএমইটি থেকে মালয়েশিয়া গমনেচ্ছু কর্মীদের ছাড়পত্র সহজে পাওয়া যায়। গতকাল শনিবার গুলশানস্থ দি ওয়েস্টিন হোটেলের বল রুমে বায়রার ৩০তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) এ ব্যাপারে চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়া হয়। সভায় বায়রার শীর্ষ পর্যায়ের নেতা ও সদস্যরা মালয়েশিয়ায় দশ সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চড়া অভিবাসন ব্যয়ের মাধ্যমে কর্মী প্রেরণের তীব্র প্রতিবাদ জানান। সভায় বায়রা নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, শ্রমবাজার সম্প্রসারণের স্বার্থে আগামীতে সেন্ডিং কান্ট্রিগুলোতে মালয়েশিয়ার মতো আর যাতে কোনো সিন্ডিকেট তৈরি না হয় সে ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে। বায়রার সভাপতি বেনজীর আহমদ-এর সভাপতিত্বে সাধারণ সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বায়রার সাবেক সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গোলাম মুস্তাফা, বায়রার সাবেক সভাপতি আলহাজ আবুল বাসার, বায়রার সাবেক সভাপতি ও ইউনিক ইর্স্টান-এর স্বত্বাধিকারী মো: নূর আলী, বায়রার সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম, বায়রার সাবেক মহাসচিব মনছুর আহমেদ কালাম, বায়রার মহাসচিব রুহুল আমিন স্বপন, বায়রার সাবেক সহ-সভাপতি আবুল বারাকাত ভূঁইয়া , বায়রার সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক আকবর হোসেন মঞ্জু ও বায়রার ক্যাশিয়ার ফখরুল ইসলাম।
বায়রার সাবেক সভাপতি গোলাম মুস্তাফা বায়রার তের শতাধিক সাধারণ সদস্যদের ক্ষোভের কথা উপলব্দি বলেন, মালয়েশিয়ার দশ সিন্ডিকেটের সাথে আমি সর্ম্পৃক্ত হয়ে জীবনে একটি বড় ভুল করেছি। মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রফতানি’র দশ সিন্ডিকেটে প্রবেশ করে আমি লজ্জায় মুখ দেখাতে পারছি না। এই সিন্ডিকেটে যুক্ত না হলে আমি ব্যবসায়ীক দিক দিয়ে আরো ভালো থাকতাম। তিনি সকল রিক্রুটিং এজেন্সিকে মালয়েমিয়ায় কর্মী প্রেরণের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার জোর দাবী জানান। বায়রার সাবেক মহাসচিব ও আটাব গণতান্ত্রিক সচেতন পরিষদের প্যানেল প্রধান মনছুর আহমেদ কালাম বলেন, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার দশ সিন্ডিকেট কুক্ষিগত করে রেখেছে। দশ সিন্ডিকেট মালয়েশিয়ায় একচেটিয়া কর্মী পাঠিয়ে হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। আর তের শত বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সি না খেয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে। অচিরেই সিন্ডিকেট বন্ধ এবং সকল রিক্রুটিং এজেন্সিকে মালয়েশিয়া কর্মী প্রেরণের সুযোগ দেয়া না হলে বিস্ফোরণ ঘটবে। যা’ বায়রার পক্ষে পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হবে না। তিনি বলেন, মালয়েশিয়ার দশ সিন্ডিকেটের মতো আর যাতে অন্য কোনো দেশে কর্মী প্রেরণে সিন্ডিকেট তৈরি না হয় সে ব্যাপারে সর্তক থাকতে হবে। বায়রার সাবেক সভাপতি মো: নূর আলী সভায় ঘোষণা দেন আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে বায়রার দু’টি অফিসে সকল এজেন্সিকে মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের লক্ষ্যে ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করা হবে। এতে উভয় পক্ষ (দশ সিন্ডিকেট ও সংশ্লিষ্ট রিক্রুটিং এজেন্সি) লাভবান হবে। আগামী শনিবার দ্বিতীয় সভায় এ ব্যাপারে বিস্তারিত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মালয়েশিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ