Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ১৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

খাল উদ্ধার ছাড়া পানিবদ্ধতা নিরসন অসম্ভব সাঈদ খোকন

ডিএসসিসি এলাকায় খাল উদ্ধারে অভিযান শুরু

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ নভেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকার সব খাল উদ্ধারে আজ থোকেই (গতকাল বৃহস্পতিবার) অভিযান শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। গতকাল বৃহস্পতিবার চানখাঁরপুল এলাকায় এক অনুষ্ঠানে মেয়র বলেন, আমাদের শহরে পানিবদ্ধতার অন্যতম কারণ খালগুলো দখল হয়ে যাওয়া। এই খালগুলো উদ্ধার না করতে পারলে পানিবদ্ধতা থেকে এই শহরের মানুষকে মুক্তি দেওয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছে। পানিবদ্ধতা দূরীকরণে খাল উদ্ধারের কার্যক্রম আমরা আজ থেকে শুরু করলাম।
কামরাঙ্গীরচর-কালুনগর খাল উদ্ধারের মাধ্যমে এ কাজ শুরু হবে জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, এটা প্রতিদিন চলবে। জেলা প্রশাসন দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনকে এ ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে। আমি এ ব্যাপারে দক্ষিণ সিটির নাগরিকদেরও সহায়তা চাই। খালের যেসব অংশে আদালতের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, সেসব অংশ বাদ দিয়ে এ কার্যক্রম চালানো হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত খাল উদ্ধার কাজ শেষ যাচ্ছে না, ততক্ষণ এ কার্যক্রম চলানো হবে।
দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এখন ছয়টি খালের অস্তিত্ব রয়েছে জানিয়ে মেয়র বলেন, এ এলাকায় অনেকগুলো খাল হারিয়ে গেছে। অনেকগুলোর অস্তিত্ব আজ আর নেই। কোনোমতে টিকে আছে এরকম খালের সংখ্যা ছয়টি। এর আগে পানিবদ্ধতা নিরসনে নাজিমউদ্দিন রোডের উন্নয়ন, পানি ও পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে ১২ তলা বিশিষ্ট চাঁনখারপুল মার্কেটের উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।
২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ওমর বিন আবদাল আজিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, প্রধান প্রকৌশলী ফরাজী মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর শফিকুল আলমসহ সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
পরে জনতার মুখোমুখি জনপ্রতিনিধি অনুষ্ঠানে মেয়র স্থানীয় বাসিন্দাদের নানা সমস্যার কথা শোনেন। এসময় বকশিবাজার থেকে ঢাকেশ্বরী মন্দির পর্যন্ত সড়কের দুপাশের নালাগুলো পরিষ্কার না করায় সড়কে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয় বলে মেয়রের কাছে অভিযোগ করেন বকশিবাজারের বাসিন্দা আক্তারুজ্জামান খান সোহরাব। তার এ অভিযোগের সঙ্গে সমস্বরে সায় দেন অনুষ্ঠানে থাকা স্থানীয় বাসিন্দারা। মেয়র প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলেন। প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর শফিকুল আলম জানান, আগামীকাল শুক্রবার (আজ) থেকে সেখানে কাজ শুরু করা হবে।
বকশিবাজার এলাকার কয়েকটি গলিতে পানি না থাকায় এলাকাবাসীর দুর্ভোগ হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন আরেক বাসিন্দা মাঈনুদ্দিন। মেয়র অনুষ্ঠানে থাকা ওয়াসার প্রতিনিধির কাছে এর কারণ জানতে চান। ওয়াসা প্রতিনিধি জানান, বকশিবাজারে ওয়াসার পাম্পের উৎপাদন ক্ষমতা কমে গেছে। এ কারণে পানি সঙ্কট তৈরি হয়েছে। পাম্পের জন্য জায়গা দিতে পারলে আগামী এক মাসের মধ্যে সেখানে পাম্প বসানোর কাজ শুরু করা যাবে বলে জানান তিনি। মেয়র স্থানীয় কাউন্সিলরের কাছে পাম্প বসানোর মতো খালি জায়গা আছে কি-না জানতে চান। কাউন্সিলর আছে জানালে সেখানে কাজ শুরু করতে বলেন মেয়র।
জয়নাগ রোডে প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর ৩টা এবং সন্ধ্যা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত গ্যাস থাকে না বলে অভিযোগ করেন মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন নামে একজন বাসিন্দা। তার অভিযোগ শুনে মেয়র তিতাস গ্যাস প্রতিনিধিকে এ সমস্যা সমাধানে ব্যবস্থা নিতে বলেন। ###



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খাল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ