Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

মানুষে মানুষে ভরে উঠেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান

খালেদা জিয়ার অপেক্ষায় নেতাকর্মীরা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৭, ২:৫৮ পিএম

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মিছিল নিয়ে প্রবেশ করতে শুরু করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। সকাল থেকে সমাগম হলেও মূলত দুপুর ১২টার পর থেকেই রাজধানীর চারদিক থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মিছিল নিয়ে প্রবেশ করতে থাকেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।
বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে লোকজনের সমাগম, এরই মধ্যে কানায় কানায় ভরে উঠেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। প্রায় দুই বছর পর প্রকাশ্য সমাবেশে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া।
সমাবেশকে ঘিরে শাহবাগ, কাকরাইল, খামারবাড়ি, টিএসসি মোড়, মৎস্য ভবন, দোয়েল চত্বর, পলাশী এসব এলাকা দিয়ে দলে দলে মিছিল নিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশ করছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।
এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে দলে দলে নেতাকর্মীরা সমাবেশের যোগ দিতে ঢাকায় এসেছেন। যদিও বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের অন্য জেলা থেকে পরিবহন সংকট সৃষ্টির অভিযোগ উঠেছে। গণপরিবহন বন্ধের অভিযোগ সরকারের বিরুদ্ধে।
এদিকে, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আজ রোববার দুপুর ১২টার পর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশস্থলে যান। এ সময় নেতাকর্মীদের সুশৃঙ্খলভাবে অবস্থানের নির্দেশনা দেন তিনি।
সফলভাবে সমাবেশ সম্পন্ন করতে সমাবেশস্থলের মাঝখানে ছাত্রদল, ডানপাশে যুবদল ও বামপাশে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন মির্জা ফখরুল।
সমাবেশস্থলে মহিলা দলের নেতাকর্মীদের ভেতর যেন কোনো পুরুষ নেতাকর্মী প্রবেশ না করেন, সেই অনুরোধও করেন তিনি।
সমাবেশে চেয়ারপারসন বেগম জিয়ার উপস্থিতির আগ পর্যন্ত নেতাকর্মীদের ধৈর্য ধরে থাকার আহ্বান জানান বিএনপি মহাসচিব।
আজ সকাল ১০টায় সমা‌বে‌শের কার্যক্রম শুরু হ‌লেও মূল আ‌য়োজন শুরু হ‌বে দুপুর ২টার পর কোরআন তিলাওয়া‌তের মধ্য দি‌য়ে।
দলের চেয়ারপারসন খা‌লেদা জিয়া দুপুর ২টার পর সমাবেশস্থলের উদ্দেশ্যে গুলশান থেকে রওনা হওয়ার কথা । গত বছরের ১ মে প্রকাশ্য সমাবেশে বক্তব্য দিয়েছিলেন সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী।
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই সমাবেশে বেগম খালেদা জিয়া গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও সহনশীল রাজনীতির গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেবেন।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ