Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭, ০৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

কিংবদন্তির অশ্রুসিক্ত বিদায়

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বুফনের সঙ্গী তারাও
আগেই বলেছিলেন এটাই হতে যাচ্ছে তার শেষ বিশ্বকাপ। সেটা হলে ছয়টি বিশ্বকাপ খেলা একমাত্র খেলোয়াড় হতেন জিয়ানলুইজি বুফন। কিন্তু মানুষের সব চাওয়া কি আর পূরণ হয়। পূরণ হয়নি ইতালিয়ান কিংবন্তির এই চাওয়াও। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্লে-অফ ম্যাচে সুইডেনের কাছে হেরে শেষ হয়েছে ইতালির বিশ্বকাপ স্বপ্ন। জাতীয় দলকেও তাই বিদায় বলে দিয়েছেন বিশ্বকাপজয়ী ৩৯ বছর বয়সী বুফন।
একই সাথে জাতীয় দলের জার্সি খুলে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন তার জুভেন্টাস সতীর্থ আন্দ্রেয়া বারজাগলি, রোমা ডিফেন্ডার ড্যানিয়েল ডি রসি। তাদের সঙ্গে যোগ দিতে পারেন জুভেন্টাস ডিফেন্ডার জর্জিও কিয়েল্লিনিও। চার তারকার মিলিত জাতীয় দলে অংশগ্রহন ৪৬১ ম্যাচ। তার মানে, বিষাদময় এক কাব্যে শেষ হলো ইতালিয়ান ফুটবলের একটি অধ্যায়ে।
বুফন জাতীয় দলে ২০ বছরের ক্যারিয়ারে খেলেছেন ১৭৫টি ম্যাচ, ইতালিয়ান জার্সিতে যা সর্বোচ্চ। জিতেছেন ২০০৬ বিশ্বকাপ। ২০১১ সাল থেকে ছিলেন দলের নেতৃত্বে, ফ্যাবিও ক্যানভারোর সঙ্গে যা যৌথ সর্বোচ্চ। বর্তমান ফিফা বর্ষসেরা গোলরক্ষক বলেন, ‘আমার অবসরের সঙ্গে ইতালির বিশ্বকাপে যেতে না পারা জড়িয়ে থাকল। এটা কষ্টের।’ তবে এই দুঃসময় ঠিকই ইতালি কাটিয়ে উঠবে বলে মনে করেন ২০০৬ বিশ্বকাপজয়ী নায়ক, ‘এরপরও বলব ইতালিয়ান ফুটবলে অবশ্যই ভবিষ্যত আছে। দুঃসময় কাটিয়ে বার বার আমাদের পা সঠিক রাস্তা খুঁজে নিয়েছে।’
এমন ব্যর্থতায় মুষড়ে পড়েছেন ৩৬ বছর বয়সী বারজাগলি। তার প্রকাশভঙ্গি সেই কথাই বলে, ‘ফুটবলীয় অর্থে আমার জীবনের সবচেয়ে বড় হতাশাজনক ঘটনা এটাই। যেভাবে শেষটা হয়েছে তা আমাদের জন্য লজ্জার।’ জাতীয় দলের হয়ে ২টি বিশ্বকাপ ও ৩টি ইউরো খেলা ৩৬ বছর বয়সী বলেন, ‘এই দলের ছেলেদের ছেড়ে যাওয়াটা খুবই বেদনাময়।’ বিদায়কালে ডি রসি দিনটিকে ‘কালো দিন’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। ১১৭ ম্যাচ খেলা এই তারকা দলের হয়ে গোল করেছেন ২১টি। খেলেছেন ৩টি করে বিশ্বকাপ ও ইউরো। আরেক বিদায়ী কিয়েল্লিনি তাকিয়ে আগামী প্রজন্মের দিকে। ইতালির হয়ে ৯৬ ম্যাচে অংশ নেয়া ৩৩ বছর বয়সী বলেন, ‘আগামী প্রজন্মের ওপর আস্থা দেখাতে হবে, ভালোবাসতে হবে। সামনে বহুদূর যেতে হবে। এভাবে ব্যর্থতার পর অনেক পরিশ্রমের প্রয়োজন।’
একই সঙ্গে শেষ হতে পারে জিয়ান পিয়েরো ভেনতুরো অধ্যায়ও। নিজে থেকে অবশ্য সরে দাঁচ্ছেন না ইতালিয়ান কোচ। সাম্প্রতিক সময়ে মাঠে তার পরিকল্পনা বার বার পড়ে সমালোচনার মুখে। পরশু সান সিরোতে তিনি ম্যাচ শেষে সাংবাদ সম্মেলন এড়িয়ে যান। পদত্যাগ করছেন কি না এমন প্রশ্নে পরে ৬৯ বছর বয়সী জানান, ‘পদত্যাগ? না, আমি পদত্যাগ করছি না কারণ প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আমি এখনো কথা বলিনি।’

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।