Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭, ০৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

অপরাধীরা ছাড় পাবে না -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রংপুরের নাশকতায় ষড়যন্ত্র থাকতে পারে

ইনকিলাব রিপোর্ট : | প্রকাশের সময় : ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ফেসবুকে পোস্টদাতা টিটু নীলফামারী থেকে গ্রেফতার
রংপুরের ঠাকুরপাড়ায় নাশকতার পেছনে ষড়যন্ত্র থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেন, এ ঘটনা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর ও কক্সবাজারের রামুর ঘটনার ধারাবাহিকতা। রাজধানীতে পুলিশ কনভেনশন হলে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মুক্তিযুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সম্মাননা অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।
এদিকে হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কে কটুক্তি এবং পবিত্র কাবা ঘরকে অবমাননা করে ফেসবুকে পোষ্ট দাতা হিসেবে অভিযুক্ত টিটুকে গতকাল মঙ্গলবার নীলফামারী থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল গতকাল সকালে রংপুরে ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু পল্লী পরিদর্শনে গেলে রংপুরের ঘটনায় যে আইডি থেকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়া হয়েছে, সেটি টিটু রায়ের কিনা জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি বলেন, সেখানে (রংপুরের ঠাকুরপাড়া) একটি জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই জানাজায় শত শত মানুষ উপস্থিত ছিল। সেখান থেকেই এ ঘটনার সূত্রপাত হয়। উপস্থিত জনতার চেয়ে পুলিশ সংখ্যায় কম থাকায় তাৎক্ষণিকভাবে সেটা মোকাবিলা করতে পুলিশকে বেগ পেতে হয়েছে। তবে পুলিশের কোনও গাফিলতি ছিল না। গোয়েন্দা তথ্যেও কোনও প্রকার ঘাটতি ছিল না। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রæত আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ‘মুক্তিযুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান’ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে সেদিন পুলিশ সদস্যরা উজ্জীবিত হয়েছিলেন। দেশের স্বাধীনতার জন্য তারা ঘুরে দাঁড়িয়েছিলেন। রাজারবাগে প্রথম হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ শুরু হলে সেখান থেকে বেতারের মাধ্যমে সারাদেশে খবরটি ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। এর ফলে অন্যান্য পুলিশ লাইন্সেও দুর্বার প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয়। এ কারণে মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের ভ‚মিকা সবসময় স্মরণীয় হয়ে থাকবে। মহান মুক্তিযুদ্ধে ১১শ’র বেশি পুলিশ সদস্য শহীদ হন। এ অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ যোদ্ধাদের মধ্যে দ্বিতীয় দফায় মঙ্গলবার ৩৪ জনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। এদিন পুলিশের শহীদ সার্জেন্ট সাদেক দেওয়ানের পক্ষে পাঁচ লাখ টাকার চেক গ্রহণ করেন পারভেজ দেওয়ান এবং বীরত্বের জন্য চেক গ্রহণ করেন ওই সময়ের কনস্টেবল আলী আকবর। যারা জীবিত নেই তাদের স্বজনরা সম্মাননা গ্রহণ করেন। এর আগে প্রথম দফায় ৪৪ জনকে সম্মাননা দেয়া হয়েছিল। পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব অপরূপ চৌধুরী। পুলিশের অতিরিক্ত আইজি, ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা, প্রতিরোধ যোদ্ধাদের পরিবারের সদস্য এবং আমন্ত্রিত অতিথিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে গতকাল বেলা ১২টার কিছু আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু পল্লী পরিদর্শনে হ্যালিকপ্টার যোগে রংপুরে যান। কিছু সময় সার্কিট হাইজে অবস্থান করার পর আইজিপিসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু পরিবারগুলোর সাথে কথা বলেন। পরে তিনি এক সম্প্রীতি সমাবেশে যোগ দেন। এ সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, অভিযুক্ত টিটু রায়কে নীলফামারী থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্ত চলছে কার দ্বারা এটা সংঘটিত হয়েছে, কারা কারা এর সাথে জড়িত ছিল সব কিছুই বের হয়ে আসবে। এসব ব্যাপারে তদন্ত শেষ না হলে কিছু বলা ঠিক হবে না।
তিনি বলেন, এটা অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ, এট বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দেশ বাংলাদেশ। এখানে কেউ এ ধরণের ঘটনা ঘটিয়ে পার পাবে না। এমনটি আগেও হয়নি, এখনো হবে না। আপনারা দেখেছেন, ঘটনার পর পরেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখানে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছেন, আমরাও আজ এখানে এসেছি। তবে একটা কথা বারবার বলতে চাই, আমাদের দেশকে নিয়ে সব সময় ষড়যন্ত্র চলছে। এই ষড়যন্ত্র বিভিন্ন কায়দায় বিভিন্ন সময়ে একের পর এক ঘটাচ্ছে। আপনারা দেখেছেন, রামুকে একটা ঘটনা ঘটেছে, ব্রাহ্মনবাড়িয়া এবং নাসিরনগরেও ঘটেছে। একই ঘটনা ঘটেছে ফরিদপুরেও। সোস্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মানুষকে ক্ষিপ্ত করে করে তুলছে কী না তাও আমাদের দেখার দরকার।
শুক্রবারের তান্ডবের ঘটনায় পুলিশ আগে থেকে সজাগ থাকলে এমন ঘটনা হতো না বা পুলিশের গাফলতি আছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ঘটনার বিষয়টি নিয়ে আমি সবাইকে জিজ্ঞাসা করেছি, পুলিশের বিরুদ্ধে খামখেয়ালিপনার অভিযোগ আছে কী না? আমি জনপ্রতিনিধিসহ ৫০ জনকে জিজ্ঞাসা করেছি, কেউ বলেনি পুলিশের গাফলতি আছে বা সেদিন করেছে। পুলিশ সময়মত মামলা নিয়েছে। যার নামে ফেসবুকে এই অভিযোগ, আমরা শুনেছি সে এই জায়গায় থাকতো না। সে নাকি আট বছর আগে এখান থেকে চলে গেছে। কার ফেসবুক থেকে হয়েছে, কে করেছে? নাকি সেই করেছে তার তদন্ত চলছে। পুলিশ সঙ্গে সঙ্গে মামলা নিয়েছে এবং টিটু রায়কে খুঁজছিল। ঘটনার আকস্মিকতা সম্পর্কে পুলিশ জানতো না। যখনই শুনেছে তখনই পুলিশ এখানে পাহারায় ছিল। এখানে তারা পাহারা দিয়েছে। পুলিশ বাড়ি ঘিরে ফেলেছে। এগুলো আমার শোনা কথা। সব তদন্ত হবে। তদন্ত হলেই সব বেরিয়ে আসবে।
এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি টিপু মুন্সি, পুলিশের আইজি একেএম শহিদুল হক, রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, রংপুর জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমানসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে, শুক্রবারের বিক্ষোভ মিছিল শেষে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ এবং হিন্দু পল্লীতে আগুন এবং ভাঙচুরের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামি স্থানীয় জামাত নেতা মাওলানা সিরাজুল হককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ সময় তার ছেলে আব্দুল্লাহ আল তারেককেও গ্রেফতার করা হয়।

 


Show all comments
  • MD Soman ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৩৮ এএম says : 0
    ইসলাম নিয়ে কুটক্তি করলো...! প্রতিবাদ করতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে ২ জন নিহত হলো..! সেটা নিয়ে কেউ কথা বলে না...! কিন্তু হিন্দুদের বাড়িতে হামলার ঘঠনায় পুরো ........... পাগল হয়ে গেছে...! .! এখন চলছে গনগ্রেফতার...! এদেশে মুসলিমরাই যেন সংখ্যালঘু...!
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nurnaby Hasan ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৩৯ এএম says : 0
    মুসলিম রাষ্ট্রে ইসলামের মর্যাদা রক্ষায় ব্যর্থ সরকার। ইসলামকে কটুক্তি করে অনেক নাস্তিক অনেক কথা বলে ও প্রচার করে কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিরোধের কোন ব্যবস্থা নেয়া হয় না। বরং কেউ প্রতিবাদ করলে তাকেই উগ্রবাদী বলা হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Bivash Dhar ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৪১ এএম says : 0
    সুষ্টু ও নিরপেক্ষ তদন্তের পর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির বিধান করতে হবে।রাজনৈতিক পরিচয়ে অহেতুক নিরহ কোনো মানুষ যেন কষ্ট না পায়, সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।নতুবা সুযোগ বুঝে প্রকৃত অপরাধীরা পার পেয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Zillur Talukder ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৪৩ এএম says : 0
    এসব গ্রেপ্তার বাদ দিয়ে সবাইকে নিয়ে বসেন, কেন এমন হইলো সেগুলো নিয়ে সামাজিক আলোচনা হোক, পুলিশ দিয়ে সামাজিক ঝামেলা দূর হবে না, ঝামেলা আর বারবে। অন্য কোথাও এমন ঝামেলা যেন না হয় সেদিকে করনিয় ঠিক করেন।
    Total Reply(0) Reply
  • আব্দুর রউফ ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৪৪ এএম says : 0
    সকল অন্যায়ের বিচার ও সাজা হওয়াটা ন্যায়বিচার ।। বিশেষকরে সমাজে যারা ইচ্ছাকৃত বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে সুস্থ মস্তিস্কগুলোকে অসুস্থ করে দিয়েছে, তারও যথাযথ বিচার ও সাজা হওয়াটা ন্যায়বিচার ।
    Total Reply(0) Reply
  • Al Khaled Eacram ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৪৬ এএম says : 0
    ঘটনার প্রকৃত দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক তবে নির্দোষ কাউকে হয়রানি করলে তাঁর ফলাফল খারাপ হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Nayan Kumar ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৪৭ এএম says : 0
    হাজার হাজার গ্রেপ্তার চাই না। পারলে মূল অভিযুক্তদের বিচার করেন, তাহলে এসব আর ঘটবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Hasan Naseek ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৫০ এএম says : 0
    টিটুকে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দিতে হবে না হলে এই ...... গুলা দুইদিন পর পর এরকম নাটক করে বাংলাদেশ কে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করবে
    Total Reply(0) Reply
  • আমিনুল ইসলাম ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৫২ এএম says : 0
    সরকারের এটা মাথায় রাখা উচিৎ যে, একটি মুসলিম দেশে সে দেশের মুসলিমদের দমন-পিরন করে বেশি দিন গদি ধরে রাখা যাবে না, কারন এর প্রতিউত্তরে মুসলিমরা ভোট দিয়ে জবাব দেবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Jahid ১৫ নভেম্বর, ২০১৭, ১:৫২ এএম says : 0
    শুধু গ্রেফতার করলে হবেনা কঠিন শাস্তি দিতে হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর