Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

করদাতাদের জন্য এবার আসছে ভ্যাট সম্মাননা কার্ড-এনবিআর চেয়ারম্যান

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২০ নভেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকাম ট্যাক্স আইডি কার্ডে ব্যাপক সাড়া পাওয়ার পর এবার করদাতাদের ভ্যাট সম্মাননা কার্ড প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

গতকাল রোববার রাজধানীর আইডিইবি ভবনে ভ্যাট অনলাইন প্রকল্প কার্যালয়ে আয়োজিত এনবিআর-ইআরএফ পার্টনারশীপ ডায়ালগে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। চেয়ারম্যান বলেন, এবার প্রথমবারের মতো আয়কর মেলায় ইনকাম ট্যাক্স আইডি কার্ড করদাতাদের মধ্যে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, মুখ্য সচিবসহ সবাই এর প্রশংসা করেছেন। ডিসেম্বর মাসে ভ্যাট সপ্তাহ ও ভ্যাট মেলা উপলক্ষে নিয়মিত ভ্যাটদাতা ব্যবসায়ী, প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাট অনার কার্ড বা ভ্যাট সম্মাননা কার্ড প্রদান করা হবে।
তিনি বলেন, চট্টগ্রামে কাস্টমস একাডেমি ও ঢাকায় ট্যাক্স একাডেমির পর ভ্যাট অনলাইনকে একটি পূর্ণাঙ্গ ভ্যাট একাডেমি চিন্তা করা হয়। এ ভ্যাট অনলাইন থেকে ভ্যাট ইউনিভার্সিটি পর্যন্ত যাওয়ার চিন্তা আছে আমাদের।
চেয়ারম্যান বলেন, ইনকাম ট্যাক্স আইডি কার্ডকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ এবং এ কার্ডধারী করদাতাদের সেবা নিশ্চিত করতে অর্থমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন। আশা করি কার্ডধারীরা সব ধরনের সুবিধা পাবেন। এছাড়া এ কার্ডধারীদের যথাযথ সম্মান দিতে এ কার্ডের নমুনাসহ পুলিশ, সেনাবাহিনীসহ সকল সরকারি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটকে চিঠি দেওয়া হবে। যাতে প্রশিক্ষণের সময় এ কার্ড দেখানো ও এ কার্ডধারীদের যথাযথ সম্মান প্রর্দশন করা হয়।
অনুষ্ঠানে ইআরএফ এর সভাপতি সাইফ ইসলাম দিলাল পার্টনারশীপের জন্য এনবিআরকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সংবাদকর্মীরাও রাজস্ব আহরণে ভূমিকা রাখছে। বিশেষ করে তাদের লেখনীর মাধ্যমে করদাতাদের সচেতন করছে। সেজন্য ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সংবাদকর্মী বিশেষ করে ইআরএফ সদস্যদের ভ্যাট বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে পারে। এছাড়া ভ্যাট অনলাইন ভ্যাট সচেতনতা কাজ করছে। সংবাদকর্মীরা এনবিআরকে সহযোগিতা করছে। তথ্য পাওয়ার ক্ষেত্রে আরও বেশি অগ্রণী ভূমিকা পালনের জন্য ভ্যাট অনলাইনে একটি আলাদা মিডিয়া সেল খোলার পরামর্শ দেন তিনি।
এ বিষয়ে চেয়ারম্যান বলেন, ভ্যাট সংক্রান্ত যেকোনো জিজ্ঞাসা ১৫৬৬৬ নম্বরে ফোন করে যে কোনো করদাতা জেনে নিতে পারেন। ভ্যাট অনলাইনে ভ্যাট নিয়ে বিশাল কর্মযজ্ঞ হচ্ছে। গণমাধ্যমের মাধ্যমে এসব করদাতা ও সাধারণ মানুষকে জানাতে মিডিয়া সেল খোলা যেতে পারে। মিডিয়া সেল খুলতে তিনি ভ্যাট অনলাইন প্রকল্প কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।
ইআরএফ সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান বলেন, ইআরএফ পার্টনারশীপের মাধ্যমে এনবিআরকে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। ইআরএফ এর স্থায়ী অফিস ও ইআরএফ ইনস্টিটিউট করা হচ্ছে। যার মাধ্যমে বিশেষ করে অর্থনৈতিক বিটের সাংবাদিকদের একটা স্থায়ী ঠিকানা ও প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। ইআরএফ ইনস্টিটিউট করার ক্ষেত্রে কর সুবিধা দেওয়ার আহŸান জানান তিনি।
ইআরএফ এর অফিস ও ইআরএফ ইনস্টিটিউট করার ক্ষেত্রে কর সুবিধা প্রদান করার আশ্বাস দেন এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান। ইআরএফ সদস্য সৈয়দ শাহনেওয়াজ করিম ভ্যাট আইনকে আরও গতিশীল করার জন্য স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনার পাশাপাশি আরও বেশি প্রশিক্ষণ দেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।
কর বাহাদুর পরিবার সম্পর্কে তিনি বলেন, নামের পাশে কর বাহাদুর পরিবার লেখার অনুমতি দেওয়া যেতে পারে- যাতে করদাতারা আরও বেশি উৎসাহ পাবেন। এ বিষয়ে চেয়ারম্যান বলেন, কর বাহাদুর পরিবারকে সুবিধা দেওয়ার বিষয়ে এনবিআর কাজ করছে। নামের পাশে সংক্ষেপে কর বাহাদুর পরিবার লেখার অনুমতি সহসাই দেওয়া হবে। সিআইপিরা কী কী সুবিধা কীভাবে পায় সে বিষয়টি আমরা দেখছি। কর বাহাদুর পরিবার বা করদাতাদের সে সুবিধা দেওয়ার ব্যবস্থা কীভাবে করা যায়- তা নিয়ে এনবিআর কাজ করছে।
ইআরএফ সদস্য আজিজুর রহমান বলেন, রিটার্ন পূরণসহ করের ক্ষেত্রে সচেতনতা বাড়াতে বিনামূল্যে দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা এবং করভীতি দূর করার ক্ষেত্রে এনবিআর পদক্ষেপ নিতে পারে।
এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, চট্টগ্রামে কাস্টমস একাডেমি ও ঢাকায় ট্যাক্স একাডেমির পর ভ্যাট অনলাইনকে একটি পূর্ণাঙ্গ ভ্যাট একাডেমি চিন্তা করা হয়। এ ভ্যাট অনলাইন থেকে ভ্যাট ইউনিভার্সিটি পর্যন্ত যাওয়ার চিন্তা আছে আমাদের। এসব একাডেমিতে এসব ফ্রি কোর্স চালু করা হবে। ডিসেম্বরে ভ্যাট অনলাইনে বিনামূল্যে ভ্যাট বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।
এনবিআর সদস্য (মূসক নীতি) ব্যারিস্টার জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ভ্যাট অনলাইনের কল সেন্টার থেকে সব ধরনের ভ্যাট সেবা দেওয়া হচ্ছে। ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে যে দুই বছর সময় পাওয়া গেছে। এ সময়ে কীভাবে করদাতাদের আরও বেশি সচেতন করা যায়- তা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। মিডিয়া চাইলে যেকোনো বিষয়কে অনেক বেশি এগিয়ে নিতে পারে।
ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের উপপরিচালক মো. জাকির হোসেন বলেন, নতুন ও পুরানো ভ্যাট আইনে নিয়মিত ভ্যাট রিটার্ন দাখিলকারী করদাতাদের সম্মানিত করার একটি প্রবিশন দুই আইনে রয়েছে। ভ্যাট অর্নার কার্ড বা ভ্যাট সম্মাননা কার্ড পাবেন সেই সব করদাতারা যারা জুলাই থেকে জুন পর্যন্ত ১২টি ভ্যাট রিটার্ন জমা দিয়েছে। কে কত টাকার জমা দিল সেটা বিবেচ্য বিষয় নয়।
তিনি বলেন, ৮ লাখ ৬২ হাজার ভ্যাট নিবন্ধনধারীর মধ্যে প্রায় ৩৮ হাজার নিয়মিত ভ্যাট রিটার্ন দাখিল করেন। তাদের সবাই এ কার্ড পাবেন। এ কার্ডের দুই ধরনের সুবিধা পাবেন। একটি আইনগত অপরটি সামাজিক সুবিধা। লিগ্যাল বেনিফিট হল-এ কার্ড দিয়ে যেকোনো পুনঃ রেজিস্ট্রেশন, বন্ড লাইন্সেস প্রাপ্তি, আমদানি-রপ্তানি, উৎসে কর্তন, চুক্তি, ব্যাংক লোনসহ বেশ কিছু আইনগত সুবিধা পাবেন। সোস্যাল বেনিফিটের মধ্যে দুই ধরনের। একটি প্রিভিলাইজ, অপরটি ডিসকাউন্ট। সুপারশপ, হসপিটাল, রেস্টুরেন্ট, হোটেলসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে বেনিফিট পাবেন। এ কার্ডধারী একজন করদাতা যাতে ১০-১৫শতাংশ ডিসকাউন্ট পেতে পারে। প্রিভিলাইজ সুবিধার মধ্যে রয়েছে- কেউ বিদেশ গেলে তাদের ইমিগ্রেশনে আলাদা লাইন করা, বিমানের লাউজ ব্যবহার, রেলে টিকেট ক্রয়, বাস, হসপিটালের কেবিন পাওয়া, জেলায় সম্মানিত ব্যক্তির তালিকায় নাম তোলা ও রাষ্ট্রীয় যেকোন অনুষ্ঠানে দাওয়াত পাওয়া। গ্রামীনফোনের সাথে আলোচনা শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ডিসেম্বরে প্রাথমিকভাবে এ কার্ড প্রদান করার পরপরই আমরা এ সুবিধাগুলো চালু করার চেষ্টা করবো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর