Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ১৫ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌
শিরোনাম

ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য নিহত, আটক ৩

বগুড়া ব্যুরো বগুড়ায় | প্রকাশের সময় : ২৯ নভেম্বর, ২০১৭, ২:৫৪ পিএম

বগুড়ায় ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে শফিকুল ইসলাম (৪৫) নামে সদ্য অবসরপ্রাপ্ত এক সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে বগুড়া শহরতলীর শাকপালা এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। ছিনতাইকারীরা তার ছেলে যশোর সেনানিবাসে সৈনিক হিসেবে কর্মরত আশরাফুল ইসলামকেও মারপিট করে তার কাছ থেকে মোবাইল ফোন ও ও মানিব্যাগ ছিনিয়ে নিয়েছে।
নিহত শফিকুল ইসলাম বগুড়া জাহাঙ্গীরাবাদী সেনানিবাসে সার্জেন্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে তিনি অবসরকালীন ছুটিতে যান এবং পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সেনানিবাসের আবাসিক এলাকাতেই বসবাস করতেন। তিনি নরসিংদী জেলার মনোহারদী উপজেলার মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে। এ ঘটনায় বগুড়ার শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে আটক করেছে। ।
বগুড়ায় পুলিশের মিডিয়া বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য শফিকুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম যশোর সেনানিবাসে সৈনিক হিসেবে কর্মরত। সেখানে প্রশিক্ষণ শেষে মঙ্গলবার রাতে তিনি বাসযোগে বগুড়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। রাত ৩টার দিকে তিনি বগুড়া জাহাঙ্গীরাবাদ সেনানিবাস সংলগ্ন শাকপালা বাস স্ট্যান্ডে নামেন। তাকে এগিয়ে নিতে বাবা শফিকুল ইসলামও ওই বাস স্ট্যান্ডে আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন। পরে দু’জন জাহাঙ্গীরাবাদ সেনানিবাসের আবাসিক এলাকায় বাসার দিকে আসার সময় রাস্তায় ওঁত পেতে থাকা ৭/৮ জন ছিনতাইকারী তাদের পথরোধ করে। এরপর তাদের কাছ থেকে মালামাল ছিনিয়ে নেওয়ার সময় শফিকুল ইসলাম বাধা দেন। এ সময় ছিনতাইকারীরা তার কোমর ও পা লক্ষ্য করে ছুরিকাঘাত করে। তাদের চিৎকারে পাশেই মিলেনিয়াম স্কলাসটিকা স্কুলে কর্তব্যরত নৈশ প্রহরীরা এগিয়ে যান এবং শফিকুল ইসলামকে উদ্ধার করে জাহাঙ্গীরাবাদ সেনানিবাসের চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যান। সেখানে থেকে বগুড়া কম্বাইন্ড মিলিটারি হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। সনাতন চক্রবর্তী বলেন, ‘ছিনতাইকারীরা নিহত শফিকুলের ছেলের কাছ থেকে ২টি মোবাইল ফোন এবং মানিব্যাগ ছিনিয়ে নিয়েছে’।
বগুড়ার শাজাহানপুর থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, ওই ঘটনায় নিহতের ছেলে আশরাফুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। জড়িতদের সনাক্তের চেষ্টা চলছে। এরই মধ্যে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রবিউল, রাকিব ও বগা নামে ৩জনকে আটক করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘ময়না তদন্ত শেষে নিহতের লাশ সেনানিবাস কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ