Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

কখনও সর্বংসহা, কখনও সাহসী নারী

আ লো ক চি ত্র প্র দ র্শ নী

| প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

কখনও সর্বংসহা, কখনও সাহসী এমন নানা ভ‚মিকায় নারীর আলোকচিত্র নিয়ে রাজধানীর দৃক গ্যালারিতে হয়ে গেল পাঁচ দিনব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনী ‘আমার জীবন, আমার অধিকার’। তরুণ আলোকচিত্রীরা তুলে এনেছেন জীবনের গল্প। তাতে সমাজের নানা অবিচার ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে অধিকারের কথা উঠে এসেছে। তুলে ধরা হয়েছে মানুষের মানবিক গল্প। ২৩ নভেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাস্টের (বøাস্ট) এবং ব্র্যাক জেমস পি গ্র্যান্ট স্কুল অফ পাবলিক হেলথ, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির আয়োজনে ও আরএফএসইউ-এর পৃষ্ঠপোষকতায় এ প্রদর্শনী হয়। উদ্বোধনী পর্বে আলোকচিত্রীদের হাতে তুলে দেওয়া হয় পুরস্কার। অনলাইনে এই প্রদর্শনীর জন্য ছবি আহŸান করা হয়। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ১৪-৩০ বছর বয়সী প্রায় ১৫০ আলোকচিত্রীর পাঠানো ছবি থেকে বাছাই করা ২৩ জন আলোকচিত্রীর ২৪টি একক ছবি এবং ১টি গল্পছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে এই প্রদর্শনী। এই আলোকচিত্র প্রতিযোগিতার বিজয়ী হয়েছেন ঢাকার মৌ আক্তার সুরভি, প্রথম রানার-আপ ঠাকুরগাঁওয়ের আলোকচিত্রী জ্যোতির্ময় দেব, দ্বিতীয় রানার-আপ সিলেটের আলোকচিত্রী আইমান নাকিব এবং সেরা গল্পছবির আলোকচিত্রী যুথিকা দেউরি। তাদের যথাক্রমে ২৫ হাজার, ১৫ হাজার এবং ১০ হাজার টাকা দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়। দেওয়া হয় ক্রেস্ট এবং সনদপত্র। এছাড়া, প্রদর্শনীর বাকি আলোকচিত্রীদেরকেও অংশগ্রহণের সম্মাননা সনদ দেওয়া হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছিলেন মানবাধিকারকর্মী ড. হামিদা হোসেন, খুশি কবির, অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আলোকচিত্রী মুনিরা মোরশেদ মুননী। আয়োজকরা জানান, এই প্রদর্শনীর মূল উদ্দেশ্য নারী-পুরুষের ভেদাভেদ না করে প্রতিটি ব্যক্তিকে নিজের জীবন নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার স্বাধীনতা সম্পর্কে সচেতন করা, একে সামাজিক সচেতনতার বিষয় হিসাবে তুলে ধরা। প্রদর্শনীতে উঠে এসেছে মানুষ হিসাবে ব্যক্তিগত এবং পেশাগত জীবনে সিদ্ধান্ত ও পছন্দের মূল্যায়ন। এতে উঠে এসেছে, তরুণদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার স্বাধীনতার কথা। বাল্য বিয়ে, পারিবারিক সহিংসতা, অনলাইনে সাইবার অপরাধমূলক কর্মকাÐ, যৌন হয়রানি, বাক স্বাধীনতায় বিধিনিষেধের কথাও উঠে আসে এসব ছবিতে। নারীর জীবনের এমনি নানা পর্যায়ের ছবি স্থান পেয়েছে প্রদর্শনীতে। নারীকে কখনও সর্বংসহা, কখনও অত্যাচারের শিকার, কখনও সাহসী ভ‚মিকায় ধারণ করেছেন আলোকচিত্রীরা।

লোকমান তাজ



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন