Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

জম্মু-কাশ্মীরে পাথর ছোড়া মামলা প্রত্যাহারের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

সেনাবাহিনী-সশস্ত্র ব্যক্তিদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে কিশোর আহত

ইনকিলাব ডেস্ক: | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

জম্মু-কাশ্মীরে ১১,৫০০টি লিখিত মামলার মধ্যে ৪,৩২৭ জন বিক্ষোভকারীর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা তুলে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গত বুধবার সরকারিভাবে এই ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। প্রায় সাড়ে চার হাজার কাশ্মীরি যুবকের বিরুদ্ধে পাথর ছোঁড়া মামলা প্রত্যাহার করে নেবে সরকার। সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অতীতে কোনো সহিংসতার সঙ্গে জড়িত থাকার রেকর্ড নেই বা কোনো জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে পরোক্ষভাবে যোগ নেই; এমন কাশ্মীরি যুবকদের নাম মামলাগুলো থেকে প্রত্যাহার করা হচ্ছে। অপর এক খবরে বলা হয়, জম্মু-কাশ্মীরের গ্রীষ্মকালীন রাজধানী শ্রীনগর থেকে প্রায় ৪৪ কিলোমিটার দক্ষিণে বুডগাম জেলার পাখারপোরার ফ্লুটিপোরা গ্রামে সেনাবাহিনী ও সশস্ত্র ব্যক্তিদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে। এখন পর্যন্ত হতাহতের বিস্তারিত জানা না গেলেও গুলিতে একজন কিশোর আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার এ বন্দুকযুদ্ধ সম্পকে এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আজ সকালে পাখারপোরা গ্রামে জঙ্গি ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ হয়েছে। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তারা ওই এলাকায় তিন থেকে চারজন জঙ্গির উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের ধরতে এ অভিযান চালায়। সংঘর্ষ চলাকালে সিনার আহমাদ মির (১৫) নামের এক কিশোরের মুখে গুলি লাগলে সে আহত হয়। পরে তাকে পাখারপোরা কমিউনিউটি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। সরকারি এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের ডিজিপি পদমর্যাদার কর্মকর্তা এস পি বৈদ্যের নেতৃত্বাধীন কমিটি এই নাম বাছাইয়ের তালিকা তৈরি করছেন। পরে তা খতিয়ে দেখবেন মুখ্যমন্ত্রী। যদিও বুধবারই সেই রিপোর্ট মেহবুবা মুফতি হাতে পেয়েছেন বলে জানা গেছে। গত বছর জুলাই মাসে উপত্যকায় স্বাধীনতাকামী নেতা বুরহান ওয়ানিকে হত্যা করে ভারতীয় বাহিনী। তারপর থেকে অশান্ত হয়ে ওঠে ভূস্বর্গ। ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে কাশ্মীরিদের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসব সংঘর্ষে সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়ার অভিযোগে কাশ্মীরি তরুণ-যুবকদের বিরুদ্ধে গণহারে মামলা করা হয়। ২০০৮ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত এই ধরণের মামলা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে প্রথম দফায়। ৭৪৪টি মামলা তুলে নেয়ার নির্দেশ এসেছে। এনডিটিভি, পিটিআই, সিনহুয়া।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ