Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

এবার ‘দীর্ঘমেয়াদী’ পরিকল্পনা পাইবাসের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বিপিএলের ফাঁক গলে আরেকটি খবর বেশ উত্তাপ ছড়িয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেটাঙ্গণে- চন্ডিকা হাতুরুসিংহের হঠাৎ পদত্যাগ। তবে সেই ট্রমা কাটিয়ে উঠে বেশ কিছুদিন ধরেই বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলের জন্য হন্যে হয়ে নতুন কোচ খুঁজছে বিসিবি। সেই হাতুরুসিংহের উত্তরসূরী হতে আগের দিন সন্ধ্যায় ঢাকায় পা রেখেছেন রিচার্ড পাইবাস। গতকাল বেলা ১১টয় মিরপুরের বিসিবি কার্য্যালয়ে বোর্ড পরিচালকদের সামনে নিজের পরিকল্পনা নিয়ে হাজির হয়েছিলেন ইংল্যান্ডে জন্ম নেওয়া এই দক্ষিণ আফ্রিকান। এর আগে চার মাস বাংলাদেশের কোচ থাকা পাইবাস এবার নিয়ে এসেছেন দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা। তবে তা খুব একটা মনপুতঃ হয়নি বলেই মনে হয় বিসিবি প্রধান নাহমুল হাসান পাপনের। বোর্ড সভাপতি জানিয়েছেন, ‘তার উপস্থাপনা ভালো, সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা আরও কয়েকজন শীঘ্রই আসছেন তাদের প্রেজেন্টেশন নিয়ে। আরেকটু দেখি’।
কি ছিল পাইবাসের কর্ম-পরিকল্পনায়? বোর্ড প্রেসিডেন্টের কথায় জানা গেল, তিনি নিয়ে এসেছেন দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা। কিন্তু বিসিবি সমাধান খুঁজছে স্বপ্ন ও দীর্ঘ দুই মেয়াদেরই, ‘পাইবাসের প্রেজেন্টেশন নিশ্চতভাবেই ভাল, এটা নিয়ে কোন সন্দেহ নাই। কিন্তু যেটা হয়েছে ও ফিউচার নিয়ে কথা বলে। ১০ বছরের একটা প্লান নিয়ে কাজ করে। সো ওরটা একটু লম্বা সময়ের, দীর্ঘমেয়াদী প্লান নিয়ে এসেছে সে। আমাদের তো এখন দুটোই দেখতে হবে। লং টার্ম ও শর্টটার্ম। সামনে বিশ্বকাপ আছে। সেটাও আমাদের মনে রাখতে হবে। ও যা চায়, যেরকম চায় এক্ষুনি হয়ত সবটা দিতে পারব না। কিন্তু ওর প্লান কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশের জন্যই ভালই।’
২০১২ সালে চারমাসের দায়িত্ব পালনকালে পাইবাসের সঙ্গে তেতো অভিজ্ঞতা ছিল তখনকার বোর্ডের। বিসিবি বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ তুলে চলে গিয়েছিলেন পাইবাস। প্রশ্ন তুলেছিলেন বোর্ডের পেশাদারিত্ব নিয়ে। সে বিষয় মাথায় রেখেই নাকি এবার পাইবাসকে অনেক প্রশ্ন করা হয়েছে। তবে বিসিবির পেশাদারিত্বের নিয়ে তেতো কথা নাকি আবারও তুলেছেন তিনি, ‘এখনো সে কথাই বলছে সে, কিন্তু সেগুলো আমার বলে লাভ নেই। আমি তাকে ন্যাচারেলি প্রশ্ন করেছিলাম “তাহলে তুমি আসতে চাও কেন?” সে তারও একটি উত্তর দিয়েছে। আমার মনে হয় না এইগুলা বাইরে বলা উচিত।’
কোচ নিয়োগ নিয়ে সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গেও কথা হয়েছে। মাশরাফি, সাকিব, তামিমরা জানিয়েছেন তাদের মত, ‘ক্রিকেটারদের বলতে যা বোঝায় সেভাবে আমি জানিনা। তবে মাশরাফির সঙ্গে কথা হয়েছে, তামিমের সঙ্গে কথা হয়েছে, সাকিবের সঙ্গে কথা হয়েছে। আরও অনেক প্লেয়ারের সাথেই কথা হয়েছে। তাদের চিন্তাধারা সেটা আমরা শুনেছি। অনেকে মনে করে বিদেশি কোন কোচেরই দরকার নেই, অনেকে মনে করে লোকাল কোচ হলে ভাল। অনেকে মনে করে তাদের কোচেরই দরকার নেই। একেকজনের একেক চিন্তা থাকবেই, কিন্তু বোর্ড সিদ্ধান্ত নেবে কোনটা ভাল হয় আমাদের জন্য।’
আগামী ১০ ডিসেম্বর বোর্ড পরিচালকদের সভা। এরআগেই একটি সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে চাইছে বিসিবি। পাইবাসের পর ৯ ডিসেম্বর ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফিল সিমন্সের আসার তারিখ ঠিক হয়েছে। আরও কয়েকজনও আসতে পারেন, তবে তাদের নাম জানাননি বোর্ড প্রধান, ‘৯ তারিখে আসবে ফিল সিমন্স। তার আগে আরও আসার কথা ওই নাম এখন বলছি না। যেহেতু তারিখ ঠিক হয়নি বা ওই রকম নিশ্চয়তা এখনো মেলেনি। আরও কয়েকজনের সঙ্গে কথা হচ্ছে তাদের এরমাঝেই আসতে হবে। কারণ ১০ তারিখে আমাদের বোর্ড মিটিংটা আছে সেখানে আমরা মোটামুটিভাবে একটা সিদ্ধান্ত নিয়ে নিতে চাইছি।’ তবে জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে কোচ নিয়োগ হবে কিনা তা নিয়ে অবশ্য এখনো নিশ্চয়তা দিতে পারেননি পাপন, ‘কোচ নিয়োগ শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে হবে কিনা এটা এখনই বলা মুশকিল। তবে আমরা চেষ্টা করছি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব একটা কোচ নিয়োগ দেওয়া যায়।’

 

 

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর