Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১০ মাঘ ১৪২৪, ৫ জমাদিউস আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

ডিএনসিসির মেয়র ও ৩৬ ওয়ার্ডে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত আজ

পঞ্চায়েত হাবিব | প্রকাশের সময় : ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

 আইনি বাধা থাকলেও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপ-নির্বাচনের সঙ্গে এ সিটির নতুন ১৮টি ওয়ার্ড এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ১৮টি ওয়ার্ড যুক্ত করে মধ্য ফেব্রæয়ারিতে ভোট গ্রহণের তারিখ ধার্য করার কথা ভাবছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। 

আজ রোববার কমিশন সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হবে। এ দিন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) আলোচ্যসূচিতে এই নির্বাচনের বিষয়টি রয়েছে বলে ইসি সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ইনকিলাবকে এ তথ্য জানিয়েছেন।
গত ৩০ নভেম্বর ডিএনসিসির মেয়র আনিসুল হক মারা যাওয়ার পর ১ ডিসেম্বর মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। সেক্ষেত্রে ৯০ দিনের মধ্যে অর্থাৎ ২৮ ফেব্রæয়ারির মধ্যে কমিশনকে এ উপ-নির্বাচন করতে হবে। ইতিপূর্বে অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের (ডিসিসি) নির্বাচন দীর্ঘদিন আইনি জটিলতায় আটকে ছিল। তফসিল ঘোষণার পরও কাজী রকিবউদ্দীনের নেতৃত্বাধীন তৎকালীন কমিশন ভোট করতে পারেনি। পরে ডিসিসি ভেঙে দুটি করপোরেশন গঠন করা হলে প্রকৃতপক্ষে মেয়াদ অবসানের আট বছর পর ২০১৫ সালের ১৮ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয় ঢাকা দক্ষিণ ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে. এম. নুরুল হুদা এখন শ্রীলংকা সফরে রয়েছেন। দেশে ফিরে আগামী ১৭ ডিসেম্বর তিনি কমিশন সভায় অংশ নেবেন। ওই বৈঠকে তফসিল নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে।
ইসি সূত্র জানায়, ডিএনসিসির মেয়র পদে উপ-নির্বাচন এবং এ দুই সিটির বর্ধিত ৩৬টি ওয়ার্ডে ভোট করার জন্য স্থানীয় সরকার বিভাগের অনুরোধে ছয়টি বিষয় বৈঠকে পর্যালোচনা করবে ইসি। এগুলো হচ্ছে মেয়রের শূন্য পদে উপ-নির্বাচনের বর্তমানের এখতিয়ারাধীন এলাকা, সীমানা ও ওয়ার্ড, শূন্য পদে উপ-নির্বাচনের জন্য ওয়ার্ড বিভক্তি ও ভোটার তালিকা পুনর্বিন্যাস, বিভক্তিকৃত ওয়ার্ড ও পুনর্বিন্যস্ত ভোটার তালিকার সিডি প্রাপ্তির সর্বশেষ অবস্থা, উপ-নির্বাচনের প্রাক্কালে হালনাগাদকৃত খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ ও নিষ্পত্তি বিষয়ক কার্যক্রমে প্রভাব, দুই সিটির সীমানা বাড়ানোর পর ওয়ার্ড সংখ্যা বৃদ্ধি ও ওয়ার্ড চূড়ান্ত করার পর পরিষদের পূর্বের সদস্য ও বর্তমান সদস্য সংখ্যা এবং পরিষদ গঠনবিষয়ক ধারা ৫(৩) এর বিধান পর্যালোচনা এবং দুই সিটিতে সীমানা ও ওয়ার্ড বাড়ায় পরিষদের বা বর্ধিতাংশের কাউন্সিলর পদের মেয়াদ বা নির্বাচনের বিষয় কোনো জটিলতা অথবা আইনি দিক পরীক্ষা করা।
কমিশন হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে আইনি কোনো জটিলতা নেই। স্থানীয় সরকার বিভাগ প্রজ্ঞাপন জারি করার সঙ্গে-সঙ্গে নির্বাচন করার জন্য একটি পত্র কমিশনকে দেয়া হয়েছে। আজ রবিবার কমিশন সভায় এ নিয়ে আলোচনা হবে। কমিশনাররা যে সিদ্ধান্ত নেবেন সেটি বাস্তবায়ন করা হবে। মেয়রের সঙ্গে যেসব কাউন্সিলর নির্বাচিত হবেন তারা বাকি মেয়াদের অংশটুকুর জন্য নির্বাচিত হবেন অর্থাত্ কাউন্সিলররা বাকি আড়াই বছরের জন্য নির্বাচিত হবেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইসি কর্মকর্তারা জানান, নতুন যুক্ত হওয়া ১৮ ওয়ার্ডের ভোট হবে কি-না এবং নতুন কাউন্সিলরদের পদের মেয়াদ কত দিন হবে, তা আইনে স্পষ্ট নেই। এ বিষয়ে কমিশন সদস্যদের কেউ কেউ মনে করছেন, আইন সংশোধন করে বিষয়টি স্পষ্ট করেই তফসিল ঘোষণা করতে হবে। আবার স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করে নতুন কাউন্সিলরদের পদের মেয়াদ স্পষ্ট করে দেওয়া যেতে পারে।
স্থানীয় সরকার নির্বাচন আইন অনুযায়ী সিটি করপোরেশনের প্রথম সভা থেকে শপথ নেয়া জনপ্রতিনিধিদের মেয়াদ থাকে ৫ বছর। ওই নির্বাচনের বিজয়ী প্রার্থীর মেয়াদ শেষ হবে ২০২০ সালের এপ্রিলে। মেয়র পদে নতুন যিনি আসবেন তিনি মেয়াদের বাকি অংশটুকু দায়িত্ব পালন করবেন। ৩০ নভেম্বর ডিএনসিসির মেয়র আনিসুল হক মারা যাওয়ার পর ১ ডিসেম্বর মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। সেক্ষেত্রে ৯০ দিনের মধ্যে অর্থাৎ ২৮ ফেব্রæয়ারির মধ্যে কমিশনকে এ উপ-নির্বাচন করতে হবে। ডিএনসিসিতে নতুন যুক্ত হওয়া ওয়ার্ডগুলো হলোÑ বাড্ডা ইউনিয়নের ৩৭ ও ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড, ভাটারার ৩৯ ও ৪০ ওয়ার্ড, সাঁতারকূলের ৪১ নম্বর ওয়ার্ড, বেরাইদের ৪২ নম্বর ওয়ার্ড, ডুমনির ৪৩ নম্বর ওয়ার্ড, উত্তরখানের ৪৪, ৪৫ ও ৪৬ নম্বর ওয়ার্ড, দক্ষিণখানের ৪৭, ৪৮, ৪৯ ও ৫০ নম্বর ওয়ার্ড এবং হরিরামপুরের ৫১, ৫২, ৫৩ ও ৫৪ নম্বর ওয়ার্ড। অপরদিকে ডিএসসিসির নতুন যুক্ত হওয়া ওয়ার্ডগুলো হলো- শ্যামপুর, দনিয়া, মাতুয়াইল, সারুলিয়া, ডেমরা, মান্ডা, দক্ষিণগাঁও ও নাসিরাবাদ ইউনিয়নের ৫৮, ৫৯, ৬০, ৬১, ৬২, ৬৩, ৬৪, ৬৫, ৬৬, ৬৭, ৬৮, ৬৯, ৭০, ৭১, ৭২, ৭৩, ৭৪ ও ৭৫ নম্বর ওয়ার্ড। গত আগস্টে ঢাকার দুই সিটির নবগঠিত ৩৬ ওয়ার্ডের নির্বাচনের আয়োজন করতে ইসিকে অনুরোধ জানিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। ফলে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতায় নতুন ১৮টি ওয়ার্ড ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ নির্বাচন এবং দুই সিটিতে ছয়টি করে ১২টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর নির্বাচনের আয়োজন করতে হবে ইসিকে।

 

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।