Inqilab Logo

শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

সৈয়দপুরের কল-কারখানায় কমছে উৎপাদন

প্রকাশের সময় : ২৪ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নজির হোসেন নজু, সৈয়দপুর (নীলফামারী) থেকে

ওভারলোডেড ট্রান্সফরমারে ভর করে চলছে নীলফামারীর সৈয়দপুরের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। ফলে চাহিদা মতো বিদ্যুৎ মিলছে না। এতে করে মিল, কল-কারখানায় উৎপাদন মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। বোরোর জমিতে সেচ দেয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। গৃহস্থালি কাজে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের ব্যবহার অতিমাত্রায় বেড়ে যাওয়ায় বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের ঘটনা বাড়ছে। ওভারলোডের কারণে টেকসই হচ্ছে না মূল্যবান বিদ্যুৎ ট্রান্সফরমার। বিপর্যয়ের কারণে এ যাবত ৬১টি ট্রান্সফরমার বদল করা হয়েছে। স্থানীয় বিদ্যুৎ সরবরাহের আওতায় ১১টি ফিডারের মাধ্যমে সৈয়দপুর অঞ্চলে ৩০০ কিলোমিটার বিদ্যুৎ বিতরণ লাইন রয়েছে। এসব বিদ্যুৎ বিতরণ লাইনের অধিকাংশ শহরাঞ্চলে বিস্তৃত। অতি পুরাতন এসব বিতরণ লাইনের মাধ্যমে প্রায় ৩০ হাজার বাণিজ্যিক ও আবাসিক এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে। এসব গ্রাহক অনুমোদিত লোডের বাইরে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ ব্যবহার করায় বিদ্যুতের ওভারলোড ভয়ানক আকার ধারণ করেছে। এতে করে ওভারলোডে বিদ্যুৎ দপ্তরের বিপজ্জনক সমস্যা হয়ে উঠেছে। এখানে বিদ্যুতের লোডশেডিং না থাকলেও ঘন ঘন বিদ্যুৎ বিভ্রাটের শিকার হচ্ছেন কল-কারখানার মালিক, শিক্ষার্থী ও নগরবাসী। সূত্র মতে, আবাসিক এলাকায় হালকা শিল্প কারখানা স্থাপন ও গৃহস্থালি কাজে দিন দিন ইলেকট্রনিক্স পণ্যের ব্যবহার দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ায় ভোক্তারা বিদ্যুতের অননুমোদিত লোড ব্যবহার করছেন। বিশেষ করে পাড়া-মহল্লায় স্থাপিত ট্রান্সফরমারের ক্ষমতার চেয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহারের পরিমাণ অতিমাত্রায় বেড়ে গেছে। ফলে এয়ারকুলার, ওভেন, হিটার, রাইস কুকার, ইনডেকশন চুলা, কারি কুকারের মতো পণ্য সামগ্রীসহ ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চার্জ দেয়ায় ওভারলোডের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া রয়েছে নন-স্ট্যান্ডার্ড সংযোগ, বিদ্যুৎ সংযোগে ডুয়েল সোর্স ব্যবহার অন্যতম। এতে করে ওভারলোডের ধকল নিয়ে চলছে সৈয়দপুরের বিদ্যুৎ বিতরণ কার্যক্রম। গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে বিতরণ লাইনের বিভিন্ন পয়েন্টে ১৬০টি ট্রান্সফরমার সচল রয়েছে। এসব ট্রান্সফরমার ওভারলোড নেয়ার মতো সহনীয় ও ভারসাম্যপূর্ণ নয়। ভারী বৃষ্টিপাত, সামান্য ঝড় ও বৈরী আবহাওয়ার কারণেও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ট্রান্সফরমার। ফলে ফেস আনব্যালেন্সডসহ ওভারলোডের চাপে ঘন ঘন বিকল অথবা পুড়ে যাচ্ছে মূল্যবান ট্রান্সফরমার। পরবর্তীতে বিপুল অর্থ ব্যয় করে ট্রান্সফরমার প্রতিস্থাপন করতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে সৈয়দপুর বিদ্যুৎ বিতরণ ও বিক্রয় বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জানান, পুরনো বিতরণ লাইন এবং দিন দিন অননুমোদিত লোডের পরিমাণ উচ্চহারে বেড়ে যাওয়ায় ট্রান্সফরমার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ফলে এর প্রভাব পড়ছে সাধারণ গ্রাহক পর্যায়ে। এ অবস্থায় সমস্যা সমাধানে অননুমোদিত লোড সনাক্ত করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি। ইতোমধ্যে অননুমোদিত লোড ব্যবহার করায় সংযোগ বিচ্ছিন্নসহ জরিমানা করা হয়েছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অবৈধ সংযোগে অটোরিকশার ব্যাটারি চার্জ ও গৃহস্থালি কাজে ইলেকট্রনিক্স পণ্য বিপদ সৃষ্টি করেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সৈয়দপুরের কল-কারখানায় কমছে উৎপাদন
আরও পড়ুন