Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮, ৩ শ্রাবণ ১৪২৫, ৪ যিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ২৯ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

প্র:- কাযা সুন্নতগুলো ফরযের পরের সুন্নতের আগে পড়বে না পরে?
উ:- আগে পড়াই উত্তম।
প্র:- দু’জন মিলে জামাআত আদায় করলে কিভাবে দাঁড়াতে হবে?
উ:- মুক্তাদী ইমামের ডান পাশে সামান্য পিছনে দাঁড়াবে।
প্র:- দু’জন লোক জামাআত শুরু করার পর আরো লোক এলে কী করতে হবে?
উ:- প্রথম মুক্তাদী আস্তে আস্তে পিছনে সরে আসবে। অথবা আগন্তুক মুসল্লীরা তাকে হাত দিয়ে পিছনে এনে কাতার বাঁধবে। মুক্তাদীরা যদি কোন কারণে পিছনে না যায়, তাহলে ইমাম নিজেই এক কদম আগে বেড়ে প্রথম মুক্তাদীর ডানে ও বামে জায়গা করে দিবে যাতে তারা একত্রে কাতার করতে পারে।
প্র:- মুক্তাদীদের অপছন্দ সত্তে¡ও কোন ইমামের ইমামতি করা কেমন?
উ:- ধর্মীয় কোন কারণে কোন ইমামের প্রতি অসন্তুষ্টি বা অনাস্থা সৃষ্টি হলে, তার জন্যে ইমামতি করা মাকরূহে তাহরীমী। তবে সামাজিক, রাজনৈতিক বা বৈষয়িক কারণে ইমামের প্রতি অসন্তুষ্টি গ্রহণযোগ্য নয়।
প্র:- যদি কোন নামাযের শেষে মুক্তাদীগণ বলেন, তিন রাকাত; আর ইমাম বলেন, চার রাকাত হয়েছে, তবে কার কথা গ্রহণযোগ্য হবে?
উ:- এমতাবস্থায় ইমাম যদি নিশ্চিতভাবে বলতে পারেন যে, চার রাকাতই হয়েছে, তবে তার কথাই গৃহীত হবে। আর যদি তার মধ্যে কিছুটা সন্দেহ-সংশয় থাকে যে, চার না তিন, তাহলে মুক্তাদীগণের মতামতের ভিত্তিতে পুনরায় চার রাকাত নামায জামাআতের সাথে আদায় করে ফেলতে হবে। Ñমুফতী ওয়ালীয়ুর রহমান খান



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।