Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে প্রকাশিত বই ভুলে ভরা

| প্রকাশের সময় : ২৯ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : মিথ্যা তথ্য, বিকৃত ইতিহাস ও মহা ভুলে ভরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারকে নিয়ে বই প্রকাশ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। বইটির নাম ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার-পরিজন’। লেখক নুরুল ইসলাম মানিক। প্রকাশকাল ডিসেম্বর ২০১৭। বিজয়ের মাসে প্রকাশিত আলোচিত বইটি বঙ্গবন্ধু ও মহান মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে মিথ্যা, বিকৃত ও বিভ্রান্তিমূলক অনেক তথ্যে ভরা। যদিও বাংলাদেশ সরকারের আইনে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে যারা মিথ্যা তথ্য, বিকৃত তথ্য ও বিভ্রান্তিছড়াবে তাদের জন্য শাস্তির বিধান রয়েছে। অথচ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মতো রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান থেকে মহাপরিচালকের অনুমোদন নিয়ে প্রকাশ হলো এমন বই। বিষয়টি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নজরে এসেছে। ফাউন্ডেশনের গভর্নর, বোর্ড অব গভর্নরস সিরাজ উদদীন আহমেদ গত ২৬ ডিসেম্বর বিতরণ বন্ধ এবং বিতরণকৃত বইগুলো প্রত্যাহার করার জন্য মহাপরিচালক বরাবর চিঠি দিয়েছেন।
‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার-পরিজন’ বইয়ের শুরুতে মহাপরিচালকের কথায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল লিখেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা। এ প্রতিষ্ঠানটি আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে পরিচিত ও সমাদৃত। কাজেই বঙ্গবন্ধুর প্রতিষ্ঠিত ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার-পরিজন’ শিরোনামে একটি বই প্রকাশের ইচ্ছে আমার বহুদিনের। বিষয়টি নিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সাবেক পরিচালক বিশিষ্ট লেখক ও গীতিকার জন নুরুল ইসলাম মানিকের সাথে আমার এই অভিপ্রায়ের কথা জানালে তিনি তা সাদরে গ্রহণ করেন। স্বল্প সময়ের মধ্যে তিনি পান্ডুলিপি তৈরি করে ইসলামিক ফাউন্ডেশনে জমা দেন। মহান বিজয়ের মাসে বইটি শিশু-কিশোরদের হাতে তুলে দিতে পেরে আল্লাহর (বানান ভুল) দরবারে অশেষ শোকরিয়া জ্ঞাপন করছি।’
মহাপরিচালকের ভূমিকায় স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, শিশু-কিশোরদের উপযোগী করে বইটি লেখা হয়েছে। বইয়ের প্রিন্ট সাইজ, অঙ্গসজ্জাও তাই বলে। কিন্তু বইয়ে দেওয়া বঙ্গবন্ধু ও মহান মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে এমন অসত্য ও বিকৃত তথ্য সম্বলিত বই থেকে শিশু-কিশোররা কী শিখবে? যেখানে বর্তমান সরকার শিক্ষা ব্যবস্থায় মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস সংযোজনে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, সেখানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মতো একটি দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠান থেকে এমন বিকৃত ইতিহাস সম্বলিত বই প্রকাশ কীভাবে হলো- তা নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইসলামিক ফাউন্ডেশনের একাধিক দায়িত্বশীল পরিচালক এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তাদের দাবি, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ডিজি হিসেবে নিয়োগ পান সামীম মোহাম্মদ আফজাল। এ পদে যোগদানের পর থেকে দীর্ঘ নয় বছর তিনি দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর। নানা কারণে বিতর্কিত তিনি। আগামীতে তার চুক্তির মেয়াদ বাড়ার সম্ভাবনা খুবই কম। কিন্তু তিনি জোর তদবির করছেন। আর এ জন্য তিনি তড়িঘড়ি করে এমন একটি বই লিখিয়ে সরকারের আনুকূল্য পাওয়ার চেষ্টা করেছেন।
জানা যায়, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার-পরিজন’ বইটি দেড় লাখ কপি ছাপা হয়েছে। ইতোমধ্যে বিভাগীয় অফিস থেকে শুরু করে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে বইগুলো পাঠিয়েও দেওয়া হয়েছে। তবে বই বিতরণ ও বিতরণ করা বই প্রত্যাহার এবং কীভাবে এমন বই প্রকাশ পেলো তা জানতে একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি উঠেছে। যদিও বিষয়টি নিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কেউ মুখ খুলছেন না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন