Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৫, ১০ সফর ১৪৪০ হিজরী

এস-৪০০ ক্রয়ে রাশিয়া-তুরস্ক চুক্তি

ইনকিলাব ডেস্ক: | প্রকাশের সময় : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার জন্য ২৫০ কোটি ডলারের সমপরিমাণ ঋণচুক্তি সই করেছে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের সদস্য দেশ তুরস্ক। গত শুক্রবার মস্কো ও আঙ্কারার মধ্যে এ চুক্তি সই হয়। এর আগে রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ কেনার পরিকল্পনাকে কেন্দ্র ন্যাটো জোটভুক্ত দেশগুলোর প্রচন্ড সমালোচনার মুখে পড়েছিল তুরস্ক। ঋণচুক্তি তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় সই করা হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী এস-৪০০ ক্রয় বাবদ ৪৫ শতাংশ অর্থ আগাম পরিশোধ করবে। বাকি ৫৫ শতাংশ অর্থ রুশ ঋণের মাধ্যমে পরিশোধ করা হবে। রুশ রোসতেক কর্পোরেশনের প্রধান সের্গেই চেমেজোভ এ কথা জানিয়েছেন। এর আগে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছিল, এস-৪০০ ট্র্যাম্প ব্যবস্থা ২০১৯ সালের শেষ বা ২০২০ সালে গোড়ার দিকে তুরস্ককে সরবরাহ করবে রাশিয়া। তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফিকরি ইশিক দেশটির সাবাহ পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, তুরস্ক নিজস্ব প্রযুক্তিতে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তৈরির কাজে হাত দিয়েছে। কিন্তু এটি তৈরিতে যথেষ্ট সময় প্রয়োজন। এদিকে তুরস্কের জরুরি ভিত্তিতে এই ব্যবস্থা দরকার। তাই রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ কেনার বিষয়ে আলোচনা শুরু করেছে আঙ্কারা। বর্তমানে ন্যাটো জোটের পক্ষ থেকে তুরস্ককে ক্ষেপণাস্ত্র ও বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরবরাহ করা হচ্ছে জানিয়ে ইশিক বলেন, তার দেশ প্রতিরক্ষা খাতে পুরোপুরি স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে চায়। এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে বলে জানান তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রী। তবে তিনি এও বলেন যে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই এ ব্যাপারে চুক্তি হয়ে যাচ্ছে এমনটি ভাবাও ঠিক হবে না। ওদিকে রাশিয়ার সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রধান নির্বাহী সের্গেই চেমেঝোভ বলেছেন, তুরস্ক এস-৪০০ ব্যবস্থা কিনতে আগ্রহী। এ বিষয়ে আলোচনা চলছে এবং এখানে প্রধান ইস্যু হচ্ছে অর্থ। রাশিয়ার সঙ্গে এই ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কেনার আলোচনায় ‘ইতিবাচক অগ্রগতি’ হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগøু। এর আগে গত বছর ক্রেমলিন জানিয়েছিল, তুরস্ক চাইলে দেশটির কাছে বিভিন্ন ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হস্তান্তর করতে রাজি আছে মস্কো। আনাদোলু, আরটি।



 

Show all comments
  • কবির ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ৪:০৮ এএম says : 0
    তুরস্কের সামরিক শক্তিকে আরো শক্তিশালী করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • খোরশেদ আলম ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ৩:৪৮ পিএম says : 0
    রাশিয়ার পাশাপাশি মুসলীম বিশ্বের সাথে তুরস্কের সম্পর্ক আরো জোরদার করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • বিপ্লব ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ৩:৫২ পিএম says : 0
    তুরস্কের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইলো
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ