Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

পরিবারকে শেষ বিদায় জানিয়ে অনশনে শিক্ষকরা

এমপিওভুক্তির দাবিতে আন্দোলন

| প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : এমপিওভুক্তির দাবিতে টানা পাঁচদিন অবস্থান কর্মসূচি পালনের পর আমরণ অনশন শুরু করছেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা। গতকাল (রোববার) জাতীয় সকাল ৯টা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ফুটপাত ও রাস্তার ধারে অবস্থান নিয়ে তারা অনশন শুরু করেন। সরকারস্বীকৃত ৫ হাজার ২৪২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ৮০ হাজার শিক্ষক-কর্মচারীকে এমপিওভুক্তির জন্য তারা এই আন্দোলন করছেন। শিক্ষকদের দাবি, শিক্ষকতা করে পরিবার চালাতে পারছেন না তারা। যুগের পর যুগ কেটে গেলও তাদের বেতন ছাড়াই চাকরি করতে হচ্ছে। এ কারণে পরিবারের কাছে শেষ বিদায় নিয়ে আমরণ অনশনে নেমেছেন দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা কয়েকশ শিক্ষক-কর্মচারী। মাথায় জাতীয় পতাকা, গায়ে দাবি সম্বলিত টি-শার্ট, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড ব্যানার নিয়ে তারা এমপিওভুক্তির দাবি জানান। এমপিওভুক্তি, সহকারী শিক্ষকদের মতো বেতন, বাসা ভাড়া ও চিকিৎসা ব্যয় পাওয়াসহ বিভিন্ন দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুনে ‘মা ভাত দাও, মা’ ‘এমপিও চাই’ ‘করুণা নয়, নিজেদের অধিকার চাই’ এমন বিভিন্ন ¯েøাগান লেখা হাতে ও শরীরের সাদা টি-শার্টে লিখে আমরণ অনশন করছেন তারা।
আন্দোলনকারী শিক্ষকদের নেতা গোলাম মাহমুদুন্নবী বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলবে। মৃত্যু হলেও হাসিমুখে বরণ করে নেব। কারণ, এভাবে বাঁচার চেয়ে মরে যাওয়া ভালো। অনশনে অংশ নিয়েছেন বরিশালের বানারী পাড়ার সৈয়দকাঠি ইউনিয়ন ইসলামিয়া কলেজের ব্যবস্থাপনা বিষয়ের প্রভাষক তপন চন্দ্র ব্যাপারী। তিনি বলেন, তাঁদের প্রতিষ্ঠানটি ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত। আর তিনি শিক্ষকতা করছেন ২০০৪ সাল থেকে। কিন্তু এমপিওভুক্ত না হওয়ায় সরকার থেকে কোনো বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। সংসার কীভাবে চালাচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা তপন বলেন, ‘চলি তো না চলার মতো।’
লালমনিরহাটের পাটগ্রামের প্রণবচাঁদ ভুদরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ বিশ্বনাথ রায়। তিনি বলেন, ‘দীর্ঘ ১২ বছর ধরে বিনা বেতনে শিক্ষকতা করছি। পরিবারে আমার মা-বাবা, স্ত্রী ও ১২ বছরের একটি সন্তান রয়েছে। পরিবারের মৌলিক চাহিদা মেটাতে পারি না। সন্তানকে ভালো খাবার কিনে দিতে পারি না। তাই ছেলেকে রেখে ঢাকায় এসে আন্দোলনে যুক্ত হয়েছি। তিনি বলেন, আমার ছেলে ফোন দিয়ে কেঁদে কেঁদে বলে বাবা তুমি বাড়ি ফিরে আসো। সন্তানের কান্না দেখে আমিও তার সঙ্গে কেঁদে বলি বাবা আমি আসবো। তোমার জন্য অনেক কিছু নিয়ে আসবো। আর যদি ফিরে আসতে না পারি তবে তুমি কিন্তু কান্না করো না’ বলে এই শিক্ষক বাবা কান্নায় ভেঙে পড়েন। এ শিক্ষক আরও বলেন, টানা পাঁচদিন রাস্তায় বসে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছি। আজ (গতকাল) থেকে আমরণ অনশন শুরু করেছি। এতে যদি আমার মৃত্যু হয় হবে, তবুও দাবি আদায় ছাড়া বাড়ি ফিরে যেতে পারবো না।
নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, টানা পাঁচদিন আন্দোলন চালিয়ে গেলেও আমাদের দিকে কেউ মুখ তুলে দেখছে না। শিক্ষক-কর্মচারীরা নিজেদের অধিকার আদায়ে টানা পাঁচদিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার পরও আমাদের দাবি আদায় হয়নি। তাই আমরা আমরণ অনশন পালন করতে বাধ্য হয়েছি। শিক্ষকদের আন্দোলন ছেড়ে শিক্ষামন্ত্রীর বাড়ি ফিরে যাওয়ার আহŸানের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রী আমাদের বাড়ি গিয়ে খেয়ে বিশ্রাম নিতে বলেছেন। কিন্তু বাড়ি গিয়ে আমরা খাবো কী? পরিবার চলবে কীভাবে? তাই বাধ্য হয়ে শিক্ষক-কর্মচারীদের সঙ্গে আমরণ আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছি।
দেশের সরকারস্বীকৃত সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার দাবিতে গত মঙ্গলবার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছেন এসব শিক্ষক। বর্তমানে দেশে এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আছে প্রায় সাড়ে ২৬ হাজার। এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারী ৪ লাখের বেশি। এর বাইরে স্বীকৃতি পেলেও নন-এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠান আছে ৫ হাজার ২৪২টি। এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারীর সংখ্যা ৭৫ থেকে ৮০ হাজার। সর্বশেষ ২০১০ সালে এক হাজার ৬২৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছিল।####



 

Show all comments
  • সাব্বির ১ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৫২ এএম says : 0
    আলোচনার মাধ্য এই বিষয়টির সমাধান হওয়া জরুরী
    Total Reply(0) Reply
  • কামরুজ্জামান ১ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:০৬ পিএম says : 0
    তাদের যৌক্তিক দাবিগুলো মেনে নেয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • চাঁদনী ১ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:০৯ পিএম says : 0
    আমার প্রশ্ন শিক্ষকদেরকে কেন এভাবে আন্দোলন করতে হবে?
    Total Reply(0) Reply
  • মাহমুদ ১ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৩৭ পিএম says : 0
    বিষয়টি অত্যান্ত গুরুত্বের সাথে আমলে নেয়ার জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ করছি
    Total Reply(0) Reply
  • কাসেম ১ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৩৯ পিএম says : 0
    আমার মনে হয় ধীরে ধীর করতে হলে এক সাথে এতগুলো এমপিওভুক্ত করা কী সম্ভব ?
    Total Reply(0) Reply
  • shakhawat hossaion khan ৫ জানুয়ারি, ২০১৮, ৩:২৫ এএম says : 0
    এখানে আপনি আপনার মন্তব্য করতে পারেনRouha high school. computer Teacher.Gaffargoan .mymensingh.non mpo.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ