Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১০ মাঘ ১৪২৫, ১৬ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

বাণিজ্য মেলা শুরু হচ্ছে আজ

| প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা শুরু হচ্ছে আজ। সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) আনুষ্ঠানিকভাবে মাসব্যাপী মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারের মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা ও স্বার্থ সুরক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। আর মেলা মাঠে অবস্থিত স্টল সহজে খুঁজে বের করতে রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) থেকে মোবাইল অ্যাপস ও ডিজিটাল স্ক্রিনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। গতকাল রোববার শেরেবাংলা নগরের অস্থায়ী বাণিজ্য মেলা মাঠে মেলা সচিবালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসু ও ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য্য প্রমুখ।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, শুধু পণ্য রফতানির উদ্দেশ্যে বাণিজ্য মেলা করা হয় না, এটি রাজধানীবাসীর বিনোদন কেন্দ্রও। গত বছর রফতানি আদেশ এসেছিল ২৪৩ কোটি টাকা। এবার সেটা আরও বাড়বে এটা আশা করা যায়। কারণ মেলা হবে আগের চেয়ে সুশৃঙ্খল। তিনি আরো বলেন, অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় এবারের বাণিজ্য মেলা সুন্দর ও আকর্ষণীয় হবে। ক্রেতা-দর্শনার্থীরা স্বাচ্ছন্দে মেলার স্বাদ উপভোগ করতে পারবেন। নিরাপত্তায় ১০০টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। প্রয়োজনে আরো বৃদ্ধি করা হতে পারে।
এক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সালেই পূর্বাচলে বাণিজ্য মেলার জন্য স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণের কথা ছিল। কিন্তু জমি-জমা সংক্রান্ত কিছু বিরোধের কারণে তা হয়ে ওঠেনি। সব বিরোধ নিষ্পত্তি করা হয়েছে। বর্তমানে একটি চীনা কোম্পানিকে মেলার স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তারা কাজ শুরু করেছে। আশা করছি ২০২০ সাল নাগাদ সেখানে বাণিজ্য মেলা করা সম্ভব হবে।
২০১৮ সালকে নির্বাচনের বছর উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের অধীনেই আগামী নির্বাচন হবে। আর নির্বাচন পরিচালনা করবে বর্তমান নির্বাচন কমিশন। এ নির্বাচন কমিশনের অধীনে দেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেটি তারা প্রমাণ করেছে। কুমিল্লা ও রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনই তার প্রমাণ। যে সব দেশে সংসদীয় গণতন্ত্রের চর্চা হয় এমনকি প্রেসিডেন্ট শাসিত গণতান্ত্রিক দেশেও ক্ষমতাসীন দলের অধীনে নির্বাচন হয়। আমেরিকায় বারাক ওবামা সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া যুক্তারাজ্য, কানাডা, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়াতেও ক্ষমতাসীন দলের অধীনে নির্বাচন হয়। এখানে তাই হবে। আশা করি বিএনপিও অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে এবং একটা অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কেউ কারো জন্য অপেক্ষা করবে না। সংবিধান অনুসারে নির্বাচন হবে।
সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তদবির করে কেউ কখনো বাণিজ্য মেলায় স্টল বা প্যভিলিয়ন এব মেলার কোন কাজ পায় না। টেন্ডারের মাধ্যমে সব কাজ করা হয়।
খাবারের দোকানের অব্যবস্থাপনা প্রসঙ্গে বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসু বলেন, মেলা প্রাঙ্গণে খাবারের দোকানের অব্যবস্থাপনা রোধে রেস্টুরেন্ট মালিকদের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করা হয়েছে। এ বিষয়ে সতর্ক আছি। খাবার সঙ্গে সালাদ দিলেও তার দাম তালিকায় উল্লেখ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
আর ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য্য বলেন, ক্রেতা-দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে মোবাইল অ্যাপস তৈরি করা হচ্ছে। মেলার প্রথম সপ্তাহে এটির কাজ শেষ হবে। এ অ্যাপের মাধ্যমে ক্রেতা-দর্শনার্থীরা স্টল-প্যাভিলিয়নের অবস্থান জানতে পারবেন। এছাড়া প্রবেশ গেটের পাশেই ডিজিটাল ডিসপ্লে থাকবে। এর মাধ্যমেও ক্রেতা-দর্শনার্থীরা তাদের কাক্সিক্ষত স্টলের অবস্থান জানতে পারবেন।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এবারের বাণিজ্য মেলায় ছোট বড় মিলিয়ে ৫৮৯টি স্টল ও প্যাভিলিয়ন থাকবে। এর মধ্যে বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট প্যাভিলিয়ন থাকবে ১১২টি। ৭৭টি মিনি প্যাভিলিয়ন ছাড়াও থাকবে ৪০০টি স্টল। মেলায় ১৭টি দেশের মোট ৪৩টি প্রতিষ্ঠানের স্টল বা প্যাভিলিয়ন থাকবে। দর্শনার্থীদের বিনোদনের জন্য থাকছে ২টি শিশু পার্ক, সুন্দরবনের আদলে একটি ইকো পার্ক। ক্রেতা-দর্শনার্থীদের নিরাপত্তায় মেলায় পুলিশ ও র‌্যাবের ওয়াচ টাওয়ারসহ বিভিন্ন সেবা সংস্থার সর্বমোট ৬০টি অবকাঠামো ও সেবা কেন্দ্র। মেলা প্রাঙ্গণে আনসার ও ভিডিপি, পুলিশ, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন, বিজিবি এবং র‌্যাব থাকবে। সার্বক্ষণিক মেলা প্রাঙ্গণ পর্যবেক্ষণের জন্য ১০০টি সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। মেলায় প্রবেশ ফি রাখা হয়েছে প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৩০ টাকা ও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০ টাকা। প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত মেলায় প্রবেশ করতে পারবেন ক্রেতা-দর্শনার্থীর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ