Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮, ১ শ্রাবণ ১৪২৫, ২ যিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

জয়ে ফিরল ম্যান ইউ

| প্রকাশের সময় : ৩ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : টানা চার ম্যাচ কোন জয় নেই। শুরুটা হয়েছিল দ্বিতীয় সারির একটি দলের কাছে হেরে লিগ কাপ থেকে বিদায় নেয়ার মাধ্যমে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড শিবিরে শুরু হয় হাহাকার। খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোচ হোসে মরিনহোর সম্পর্ক নিয়েও প্রশ্ন উঠতে থাকে ইংলিশ গনমাধ্যমে। অবশেষে সবকিছু পেছনে ফেলে জয় দিয়ে বছর শুরু করেছে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী দলটি।
নতুন বছরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে এভারটনকে তাদেরই মাঠে ২-০ গোলে হারায় রেড ডেভিলরা। প্রিমিয়ার লিগে টানা তিন ম্যাচ পর জয়ের মুখ দেখলো মরিনহোর দল। দ্বিতীয়ার্ধে গোল দুটি করেন অ্যান্থনী মার্শাল ও জেসে লিনগার্ড। দিনের অপর ম্যাচে বার্নালির বিপক্ষে ২-১ গোলের নাটকীয় জয় পায় লিভারপুল।
এক সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেছেন রোমেলু লুকাকু। তার অনুপস্থিতিতে পরশু মূল একাদশে সুযোগ পান মার্শাল। গোডিসন পার্কের অ্যাওয়ে ম্যাচে ৫৭ মিনিটে ডেডলক ভাঙ্গেন এই ২২ বছর বয়সী এই ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড। জাতীয় দলের সতীর্থ পল পগবার দারুন এক পাসে মৌসুমের নবম গোলটি করেন মার্শাল। ৮১ মিনিটে প্রায় একক প্রচেষ্টায় লিনগার্ড দলের জয় নিশ্চিত করেন। ইংলিশ এই উইঙ্গার এভারটনের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়কে কাটিয়ে ২০ গজ দুর থেকে কার্লিং শটে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক জর্ডান পিকফোর্ডকে পরাস্ত করেন। গত পাঁচ ম্যাচে এটি ছিল লিনগার্ডের চতুর্থ গোল।
২০১৭ সালের শেষের দিকে প্রায় পুরোটা সময় নিজেদের মেলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছে ওল্ড ট্রাফোর্ডের দলটি। তবে নতুন বছরের প্রথম জয়ে নিশ্চয় কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরেছে ম্যান ইউ শিবিরে। তাছাড়া কিছুদিন ধরেই খেলোয়াড়দের সাথে মরিনহো চলমান শীতল সম্পর্কে এই জয়ের মাধ্যমে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে আসবে। একের পর এক ব্যর্থতায় খেলোয়াড়দের ‘অপরিণত’ হিসেবে আখ্যা দেয়া ও জানুয়ারি ট্রান্সফার উইন্ডোতে সিটিকে ধরার লক্ষ্যে বড় অঙ্কের অর্থ ব্যয়ের ইঙ্গিত দেয়ার পর থকেই খেলোয়াদের সাথে মরিনহোর সম্পর্কের অবনতি ঘটে।
এই জয়ে আবারো দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে ইউনাইটেড। যদিও এক ম্যাচ বেশি খেলেছে তারা। আর্সেনাল-চেলসি হাইভোল্টেজ ম্যাচে আজ জিততে পারলে আবারো দুইয়ে ফিরবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চেলসি। সেক্ষেত্রে পয়েন্ট তালিকার ছয়ে নেমে যেতে হতে পারে আর্সেন ওয়েঙ্গারের দলকে। এক ম্যাচ কম খেলা টেবিলের শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি ইউনাইটেডের চেয়ে ১২ পয়েন্ট এগিয়ে।
দিনের অপর ম্যাচে থাইয়ের ইনজুরির কারনে ফিলিপ কুতিনহো ও কুঁচকির ইনজুরির কারনে লিভারপুলের হয়ে খেলতে পারেননি মোহাম্মদ সালাহ। রবার্তো ফিরমিনহো ছিলেন বদলী বেঞ্চে। বৃষ্টি¯œাত বার্নলির টার্ফ মুরে লিভারপুলের ‘ফ্যাব ফোর’ এর মধ্যে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে মূল একাদশে ছিলেন সাদিও মানে। ৬১ মিনিটে গোল করে সেনেগালের এই উইঙ্গার প্রমান করেন তারকা সতীর্থদের ছাড়াও দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়। এই নিয়ে মৌসুমে অষ্টম গোল পেলেন মানে। ৮৭ মিনিটে স্যাম ভোকসের পাসে ইয়োহান গুডমান্ডসন বার্নালির পক্ষে সমতা ফেরান। কিন্তু ম্যাচের নাটকীয়তা তখনো বাকি। স্টপেজ টাইমের চতুর্থ মিনিটে ডেজান লোভরেনের ফ্রি-কিক থেকে এস্তোনিয়ার ডিফেন্ডার রাগনার ক্লাভান লিভারপুলের জয় নিশ্চিত করেন।
এই নিয়ে টানা তিন জয়ে লিগে ১৩ ম্যাচে অপরাজিত থাকলো লিভারপুল। ২২ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থ স্থানে অল রেডরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।