Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২১ জানুয়ারি ২০১৮, ০৮ মাঘ ১৪২৪, ৩ জমাদিউস আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

হঠাৎ প্রাথমিক দলে সোহান : চূড়ান্ত দল ঘোষণা রোববার

প্রস্তুতিতেও দিবারাত্রির ম্যাচ

| প্রকাশের সময় : ৪ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : মাশরাফি বিন মর্তুজার যোগ দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্যাম্প পেয়েছে পূর্ণতা। কোচিং স্টাফেরও প্রায় সবাই এসে গেছেন। গতকালই যোগ দিয়েছেন রিচার্ড হ্যালসল ও সুনিল যোশি। আগামীকালের মধ্যেই যোগ দেবার কথা ক্যারিবীয়ান বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশেরও। তবুও থেমে থাকেনি অনুশীলন, ৩২ সদস্যের স্কোয়াড নিয়ে পুরোদমে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। তবে ওয়ালশ এলেই ক্রিকেটারদের স্কিল নিয়ে পুরোদমে কাজ শুরু করবে সুজন। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে দুই দলে ভাগ হয়ে ম্যাচ খেলবে ক্যাম্পে থাকা বাংলাদেশ দলের সদস্যরা, গতকাল তেমনটিই জানিয়েছেন সুজন। দলটি সবুজ ও লাল এই দুই দলে ভাগ হয়ে তিনটি ম্যাচ খেলবে। তবে অভিনব উদ্যোগ হচ্ছে, ত্রিদেশীয় সিরিজের কথা মাথায় রেখে প্রস্তুতি ম্যাচগুলো দিবারাত্রির হবে বলে জানিয়েছেন সুজন, ‘৬ তারিখে নিজেদের মধ্যে একটা ম্যাচ খেলতে পারি ডে-নাইট। তারপর আরেকটা ম্যাচ খেলার ইচ্ছা আছে ৯ তারিখে।’ তার দেয়া তারিখ অনুযায়ীই গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ম্যাচের সূচিও নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।
এরই মাঝে দলে যোগ হয়েছেন নতুন আরেক সদস্য- উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহান। ক্যাম্পের সদস্য সংখ্য এখন ৩৩। আগের দিন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের সঙ্গে বিশেষ বৈঠকে বসেন বাংলাদেশ দলের দুই অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও মাশরাফি বিন মর্তুজা। আর সেখানেই দুই অধিনায়কের মতামতের ভিত্তিতে প্রাথমিক দলে নরুল হাসান সোহানের অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করা হয়। এর আগে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু প্রাথিমিক দলে সোহানের জায়গা না পাওয়া নিয়ে সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন সা¤প্রতিক ফর্ম ভাল না যাওয়ায় বাদ পড়েছেন এই তরুন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। কিন্তু বাংলাদেশের দুই অধিনায়কের চাওয়ায় প্রস্তুতি ক্যাম্পে তরুণ খেলোয়াড়দের সুযোগ করে দিচ্ছে বিসিবি।
ত্রিদেশীয় এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ ছাড়াও অংশ নেবে দক্ষিণ এশিয়ার পরাশক্তি শ্রীলঙ্কা ও টেস্ট খেলুড়ে আরেক দেশ জিম্বাবুয়ে। এই ৩৩ জনের মধ্য থেকে আগামী রোববার চূড়ান্ত দল ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচক। ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু হবে ১৫ তারিখ। ৭ জানুয়ারি স্কোয়াড ঘোষণা না করলে তাই চূড়ান্ত দলের শেষমুহুর্তের প্রস্তুতির ঘাটতি থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সাথে নান্নু জানালেন আরেকটি কারণও। ৯ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ- বিসিএল। ক্যাম্প থেকে বাদ পড়া ক্রিকেটাররা যাতে বিসিএলে খেলতে পারেন, সেজন্যই এদিন দল ঘোষণা করতে চায় বিসিবি। নান্নু বলেন, ‘আরও কারণ আছে। ৯ জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল)। তার আগে ১৪ জন বেছে নিতে পারলে বাকিরা বিসিএল খেলতে পারবে।’
তবে চূড়ান্ত দলে খুব একটা পরিবর্তন আসবে না বা নতুন মুখ দেখা যাবে না বলেই আভাস দিয়েছেন নান্নু। তিনি জানান, বিপিএলের সাথে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফরম্যাটের ভিন্নতার কারণেই বিপিএলে ভালো করা সবাইকে সুযোগ দেওয়া যাচ্ছে না। তবে যাদের পারফরমেন্স বেশ ভালো ছিল, তাদের স্কোয়াডে দেখাটা স্বাভাবিক বলেও ইঙ্গিত তার, ‘বিপিএলে কয়েকজন ভালো পারফর্ম করেছে, তবে সেটা ২০ ওভারের ফরম্যাটে, যার সাথে ৫০ ওভারের শুধু দৈর্ঘ্যরেই পার্থক্য নেই, গতি প্রকৃতিরও অমিল।’ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট দলে কোনো পরিবর্তনের সুযোগ নেই জানিয়ে নান্নু বলেন, ‘আমরা টেস্ট দল নিয়ে কোন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবো না, সেখানে যারা পরীক্ষিত ও প্রতিষ্ঠিত পারফর্মার, তারাই থাকবে। তবে টি-টোয়েন্ট ফরম্যাটে পরিবর্তন আসতে পারে।’

 

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর