Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৮, ১১ মাঘ ১৪২৪, ৬ জমাদিউস আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

ওমরাহ যাত্রীর ওপর ৫% ভ্যাট আরোপ

শামসুল ইসলাম | প্রকাশের সময় : ৪ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

জ্বালানি তেলের দাম বেড়েছে ১০৫% : হোটেলে ৫% ও পরিবহন ভাড়া বাড়ছে ১৫%
সউদী সরকার এবারই প্রথম (১৪৩৯ হিযরী) ওমরাহ যাত্রী’র মোফা’র ওপর ৫% ভ্যাট আরোপ করেছে। সাথে সাথে মক্কা-মদিনার হোটেল ভাড়াও ৫% বাড়ানো হয়েছে। গত ১ জানুয়ারী থেকে প্রতি মোফায় বর্ধিত ভ্যাট ও হোটেল ভাড়ার ভ্যাট ৫% কার্যকরী হচ্ছে। চলতি মাস থেকে প্রত্যেক ওমরাহযাত্রীর মোফা’র ফি’র ওপর ৫% ভ্যাট (৩৫ রিয়াল) দিতে হচ্ছে। এতে ওমরাহ যাত্রীদের প্যাকেজ মূল্যও বেড়ে যাচ্ছে।
বর্ধিত ভ্যাট ও হোটেল ভাড়া আদায় করতে গিয়ে ওমরাহ এজেন্সি’র মালিক ও ওমরাহ যাত্রীদের মাঝে শুরু হয়েছে দরকষাকষি। এছড়া সউদী সরকার নতুন বছরের ১ জানুয়ারী থেকে জ্বালানী তেলের দাম প্রতি লিটারে ১০৫% বাড়িয়েছে। এতে সউদী আরবে পরিবহন ভাড়াও ১৫% বাড়ছে। গত ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতি লিটার জ্বালানী তেলের দাম ছিল ৯৫ হালালা। গত ১ জানুয়ারী থেকে প্রতি লিটার জ্বালানী তেলের দাম ২শ’ রিয়াল ৫ হালালা নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে পরিবহন খাতে ভাড়া বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১৫%। সউদী আরব থেকে নির্ভরযোগ্য সূত্র এতথ্য জানিয়েছে।
গত ৩১ ডিসেম্বর থেকে ঢাকাস্থ সউদী দূতাবাস কর্তৃপক্ষ ওমরাহযাত্রীদের ভিসা দেয়া বন্ধ রেখেছিল। এনিয়ে অপেক্ষমান ওমরাহ যাত্রীগণ চরম হতাশায় ছিলেন। নতুন আরোপিত ভ্যাট আদায়ের লক্ষ্যে সউদী মুয়াচছাছাসহ দূতাবাসের সফটওয়ার আবেগ্রেড করার কারণে ওমরাহ ভিসা দিতে পারেনি। গতকাল বিকেলে সউদী দূতাবাস ২০১৭ সালের ওমরাহ যাত্রী’র মোফায় ভিসা ইস্যু করেছে। এতে ওমরাহ যাত্রীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। গত ১৪৩৮ হিজরীতে যারা ওমরাহ পালন করতে সউদী গিয়েছিলেন চলতি বছরও তারা ওমরাহ পালন করতে সউদী গেলে তাদেরকে অতিরিক্ত জনপ্রতি ২ হাজার রিয়াল পরিশোধ করতে হবে। এদিকে, ঢাকাস্থ সউদী রাষ্ট্রদূত মঙ্গলবার একটি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাতকারে চলতি বছর বাংলাদেশী হজযাত্রী কোটা ১০% বৃদ্ধির আভাস দিয়েছেন।
হাসেম এয়ার ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী মোজাম্মেল হোসেন কামাল ইনকিলাবকে বলেন, রাজকীয় সউদী সরকার বিশ্বের সকল ওমরাহ যাত্রী’র মোফা প্রতি ৫% ভ্যাট আরোপ করেছে। হোটেল ভাড়ার ওপরও ৫% ভ্যাট বাড়ানো হয়েছে। তিনি বলেন, সউদী সরকারের নীতিমালা অনুযায়ীই নতুন আরোপিত ট্যাক্স পরিশোধ করেই ওমরাহ যাত্রীদের সউদী আরবে যেতে হবে। এ ক্ষেত্রে কারো কিছু করার নেই।
১৪৩৯ হিযরীতে গত ৯ সফর বাংলাদেশ থেকে প্রথম রাজশাহী ট্রাভেলসের মাধ্যমে প্রথম ওমরাহ যাত্রী’র দল সউদী আরবে যাত্রা শুরু করে। ধর্ম মন্ত্রণালয় ওমরাহযাত্রী প্রেরণের লক্ষ্যে এ যাবত প্রায় ৩ শ’ ওমরাহ লাইসেন্স অনুমোদন দিয়েছে। এদের মধ্যে ১শ’ ৩০টি ওমরাহ লাইসেন্স ওমরাহ যাত্রী প্রেরণ কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছে। রাজশাহী ট্রাভেলস-এর স্বত্বাধিকারী মুফতী মোস্তাফিজুর রহমান ইনকিলাবকে বলেন, সউদী সরকার সব কিছুর ওপরই ট্যাক্স ধার্য্য করছে। হোটেল ভাড়া ও মোফা’র ওপর এবারই প্রথম ৫% ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে। বর্ধিত এসব ব্যয় আদায় করতে ওমরাহ এজেন্সিগুলোকে হিমসিম খেতে হচ্ছে। রাতে মদিনা শরীফের গ্র্যান্ড মারকিউ হোটেলের সুপারভাইজার মহিউদ্দিন ইনকিলাবকে বলেন, গত ১ জানুয়ারী থেকে সউদী সরকার ওমরাহ যাত্রী’র মোফা ও হোটেল ভাড়ার উপর ৫% ট্যাক্স বাড়িয়েছে। জ্বালানী তেলের দামও প্রতি লিটারে ১০৫% বাড়ানো হয়েছে। এতে পরিবহন ভাড়াও প্রায় ১৫% বাড়ছে। এসব বর্ধিত ট্যাক্স পরিশোধের বিষয়টি মাথায় রেখেই সকল ওমরাহ যাত্রীকে সউদী আরবে আসতে হবে।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর