Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

দৈনিক ইনকিলাব গণমানুষের আস্থার প্রতীক

রফিকুল ইসলাম সেলিম | প্রকাশের সময় : ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

দৈনিক ইনকিলাবকে দেশের সাধারণ মানুষের ‘আস্থার প্রতীক’ হিসেবে অবিহিত করে ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেছেন, ইনকিলাব হলো গণমানুষের পত্রিকা। খবর প্রকাশে দেশ ও জনগণের পক্ষ্যে আপোষহীন থাকায় এই পত্রিকার প্রতি মানুষের যে আস্থা ও বিশ্বাস সৃষ্টি হয়েছে তা নজীরবিহীন; পাঠকের এই বিশ্বাসকে আরও সুদৃঢ় করতে কর্মরত সাংবাদিকদের খবর লেখায় আরো সচেতন-দায়িত্বশীল হতে হবে।
খবর ছাপানোর আগে যাচাই বাছাই করে তথ্যের সত্ত্বতা নিশ্চিত হওয়া বাঞ্ছনীয়। দেশের হাজারো পত্রিকার ভিড়ে এখনো পাঠকরা ইনকিলাবের খরব অন্যরকম গুরুত্ব দেন। পাঠকরা অন্যান্য পত্রিকা পড়েও ইনকিলাব না পড়া পর্যন্ত মনে স্বস্তি পান না। তিনি আরো বলেন, ইনকিলাব শুধু একটি পত্রিকা নয়; একটি আদর্শ। ইসলামী মূলবোধে বিশ্বাসী এদেশের সংখ্যাগরিষ্ট মানুষের চিন্তা চেতনা ধারন করে এগিয়ে চলেছে ইনকিলাব। আর এটিই হলো এদেশের সভ্যতা-সংস্কৃতি ও ইতিহাস ঐতিহ্যের স্তম্ভ। গতকাল মঙ্গলবার পর্যটন শহর কক্সবাজারে সমুদ্র সৈকত পাড়ের একটি অভিজাত হোটেল মিলনায়তনে দৈনিক ইনকিলাবের ব্যুরো ও আঞ্চলিক প্রধানদের সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। আগামী দিনের রাজনীতির প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে ২০১৮ সাল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ বছরকে বলা হচ্ছে নির্বাচনের বছর। আগামী দিনের রাজনীতি-অর্থনীতিসহ সার্বিক বিষয়ে ফায়সালা হবে এবছরই। এই প্রেক্ষাপটে ইনকিলাব সাংবাদিকদের পেশাগত ভূমিকা পালনে আরো বেশী বুদ্ধিমত্তা ও বিচক্ষণতার পরিচয় দিতে হবে।
এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেন, জন্ম লগ্ন থেকেই ইনকিলাব দেশ-জাতির কথা বলে এদেশের গণমানুষের আস্থা ও বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করেছে। এ বিশ্বাস ও ভালোবাসা ধরে রাখতে ইনকিলাব সাংবাদিকদের আরো বেশি দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। সারাদেশে ইনকিলাব এক দল দক্ষ অভিজ্ঞ ও প্রতিশ্রুতিশীল সাংবাদিক রয়েছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, যারা নিজ নিজ ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত এবং সুনামের অধিকারী, তারা সামাজিকভাবেও সুপ্রতিষ্ঠিত। এ সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে ইনিকলাবের সমৃদ্ধি বৃদ্ধির পাশাপাশি সামাজিক দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট হতে হবে। দৈনিক ইনিকলাব কোন দল বা গোষ্ঠীর নয়, এদেশের গণমানুষের কথা বলেই এর স্বকীয়তা বজায় রেখে চলেছে। আগামীতে ইনকিলাব সাংবাদিকদের দেশ ও জনগণের স্বার্থে সত্য প্রকাশে আরো সাহসী হতে হবে।
ইনকিলাব সম্পাদক বলেন, এদেশের সংখ্যাঘরিষ্ট মানুষ দেশ প্রেম ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী। আর এটাই সত্যিকার বাংলাদেশের বাস্তবতা। ইনকিলাব মূল ধারার এই চেতনাকে লালন করে আসছে। দেশের সামাজিক ও রাজনীতিক পট পরিবর্তনে আলেম-মাশায়েখ পীর-বুর্জুগগণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। তাই এইসব স্বীকৃত সামাজিক শক্তির সাথে সর্ম্পক উন্নয়নে আমাদের আরো বেশি যত্মশীল হতে হবে।
কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীতে এনার্জিহাবসহ দেড় লাখ কোটি টাকার বিশাল প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই দ্বীপ সিঙ্গাপুরের মত বিশ্বের অন্যতম আধুনিক শহরে পরিণত হতে যাচ্ছে। এই তথ্য সর্বপ্রথম দৈনিক ইনকিলাবই দেশের মানুষের সামনে তুলে ধরেছে।
সভায় অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের মহাসচিব প্রিন্সপ্যাল মাওলানা শাব্বীর আহমদ মোমতাজি। এ ছাড়াও বক্তৃতা করেন দৈনিক ইনকিলাবের বিশেষ সংবাদদাতা ও ক্রীড়া সম্পাদক রেজাউর রহমান সোহাগ, যশোহর ব্যুরো প্রধান ও বিশেষ সংবাদদাতা মিজানুর রহমান তোতা, রাজশাহী ব্যুরো প্রধান বিশেষ সংবাদদাতা রেজাউল করিম রাজু। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার ব্যুরো প্রধান বিশেষ সংবাদদাতা শামসুল হক শারেক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশেষ সংবাদদাতা ও চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান শফিউল আলম, বিশেষ সংবাদদাতা বরিশাল ব্যুরো প্রধান নাছিম উল আলম, বিশেষ বিশেষ সংবাদদাতা নোয়াখালী ব্যুরো প্রধান আনোয়ারুল হক আনোয়ার, বিশেষ সংবাদদাতা বগুড়া ব্যুরো প্রধান মহসিন আলী, দিনাজপুর আঞ্চলিক প্রধান মাহফুজুল হক আনার, চট্রগ্রাম ব্যুরোর সিনিয়র রিপোর্টার রফিকুল ইসলাম সেলিম, খুলনা ব্যুরোর অফিস প্রধান আবু হেনা মুক্তি, সিলেট অফিস প্রধান ফয়সাল আমীন ও মহেশখালী সংবাদদাতা জয়নাল আবেদীন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন চীফ কো-অর্ডিনেটর রবিউজ্জামান। সম্মেলনে মনোমুগ্ধকর নায়াতে রসুল (সঃ) পরিবেশন করেন অধ্যাপক কাজী ইসমাঈল।
প্রিন্সিপ্যাল মাওলানা শাব্বির আহমদ মোমতাজী বলেন, মরহুম মাওলানা এমএ মান্নানের অনন্য সৃষ্টি দৈনিক ইনিকলাব। দৈনিক ইনকিলাব শুরু থেকে এদেশের আলেম মাশায়েখগণ তথা ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসীদের মূখপাত্রের ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। ইনকিলাব এ অগ্রযাত্রা দিনে দিনে সমৃদ্ধ হচ্ছে। দেশের বরেণ্য সাংবাদিক ও ইসলামী ব্যক্তিত্ব ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীনের বলিষ্ঠ ও সাহসী নেতৃত্বে ইনকিলাব সাংবাদিকরা গণমানুষের পক্ষে ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। সারাদেশের ইনকিলাবের সাংবাদিকরা গণমানুষের কাছে বিশ্বস্থ ও গ্রহণযোগ্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা অভিজ্ঞ পরীক্ষিত।
রেজাউর রহমান সোহাগ বলেন, ইনকিলাব সম্পাদকের আপোষহীন ভূমিকায় দৈনিক ইনকিলাব সকল ষড়যন্ত্র ও সংকট মোকাবেলা করে এগিয়ে যাচ্ছে। এ হাউজে আন্তরিকতা ও হূদ্যতাপূর্ণ যে পরিবেশ রয়েছে, যা অন্যকোন মিডিয়া হাউজে নেই। একারণেই ইনকিলাব বলিষ্ট অগ্রযাত্রা অবিচল। তিনি ইনকিলাব সাংবাদিকদের অবস্থান সূদৃঢ় করতে জনসম্পৃক্তার পাশাপাশি পেশাগত দক্ষতা বাড়ানো উপর গুরুত্বারোপ করেন। মিজানুর রহমান তোতা বলেন, ইনকিলাব সম্পাদকের নেতৃত্বে আমরা একই পরিবার একিভূত। আমাদের মধ্যে যে আন্তরিকতা রয়েছে তার দৃষ্টান্ত বিরল। এ সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে ইনকিলাবের অগ্রযাত্রাকে আরো শানিত করার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন তিনি। রেজাউল করিম রাজু বলেন, দৈনিক ইনকিলাব এদেশের গনমানুষের মূখপাত্র। ইনকিলাব সম্পাদকের সাহসী ভূমিকায় সারাদেশের সাংবাদিকরা উজ্জীবিত। আগামী দিনে ইনকিলাব অগ্রযাত্রা আরো সুদৃঢ় করতে সবাইকে আন্তরিকতার সাথে দায়িত্বপালনে আহবান জানান তিনি।
ব্যুরো ও আঞ্চলিক প্রধানদের সম্মেলনকে ঘিরে ইনকিলাব সাংবাদিকরা তাদের পরিবারের সদস্যসহ গত ৩ দিন ধরে পর্যটন শহর কক্সবাজারে অবস্থান করছিলেন। সম্মেলন শেষে সাগর পাড়ের হোটেল সী ওয়ার্ডের মিলনায়তনে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আনন্দঘন পরিবেশে প্রীতিভোজে মিলিত হন তারা। এসময় দৈনিক ইনিকলাব সম্পাদক সাংবাদিকদের পরিবারের সদস্যদের সাথে কূশল বিনিময় করেন। ইনকিলাব পরিবারের সঙ্গে প্রীতিভোজে অংশ নেন বিশিষ্ট লেখক ও কলামিষ্ট খুরশেদ আলম দুলাল এবং এ এম আলমগীর।

 



 

Show all comments
  • আবু নোমান ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৪২ এএম says : 0
    জন্মলগ্ন থেকে দৈনিক ইনকিলাব দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব ও ইসলামী আকিদা বিশ্বাসের ব্যাপারে আপোষহীন ভূমিকা পালন করে আসছে।
    Total Reply(0) Reply
  • ইমতিয়াজ আলী ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৪৩ এএম says : 0
    প্রতিষ্ঠা থেকে ইনকিলাব এখনো দেশের মানুষের কাছে জনপ্রিয় এবং ইসলামী জনতার কাছে মূখপত্র হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে।
    Total Reply(0) Reply
  • সোহরাব হোসেন ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৪৫ এএম says : 0
    ইসলামী মূল্যবোধের ভিত্তিতে সমাজ গঠনে যে দর্শন সেটাতে সবসময় ইনকিলাব দৃঢ় অবস্থানে রয়েছে। তাই আমরা এর পাশে আছি, ভবিষ্যতেও থাকবো
    Total Reply(0) Reply
  • সফিক ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৪৬ এএম says : 0
    ইনকিলাব ছাড়া দেশে শতকরা ৯২ ভাগ মানুষের নিজস্ব কোন কাগজ নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • রফিকুল ইসলাম ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৪৮ এএম says : 0
    দৈনিক ইনকিলাব দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, নিরাপত্তা এবং জাতীয় স্বার্থ সংরক্ষণের পাশাপাশি ইসলামী ঐতিহ্য মূল্যবোধগুলোকে প্রচারের ক্ষেত্রে যেভাবে প্রাধান্য দিয়ে থাকে, তা অনন্য, অসাধারণ।
    Total Reply(0) Reply
  • সফিক ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৫১ এএম says : 0
    ইনকিলাব ছাড়া দেশে শতকরা ৯২ ভাগ মানুষের নিজস্ব কোন কাগজ নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • জাবেদ ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৫১ এএম says : 0
    ইনকিলাব পদে পদে নানা প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও এ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের আকীদা-বিশ্বাসে যে কোনো আঘাতের বিরুদ্ধে সর্বদা সতর্ক, সজাগ। ইসলামকে নিয়ে মস্কারা করা, ইসলাম ও কোরআন হাদীসের অবমাননা করাকে ইনকিলাব কিছুতেই প্রশ্রয় দেয় না। যারা ইসলামের বিকৃতি-অপব্যাখ্যার মাধ্যমে সাধারণ মুসলমানদের বিভ্রান্ত ও বিপদগামী করতে চায়, ইনকিলাব তাদের বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান নেয় এবং এসব ব্যাপারে আলেম সমাজকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানায়।
    Total Reply(0) Reply
  • মীর মোর্শেদ ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৫৭ এএম says : 0
    ইনকিলাব তার ঐতিহ্যকে ধরে রাখুক- এটাই আমাদের প্রত্যাশা। কারণ এই পত্রিকার সাথে জড়িয়ে আছে দেশের গৌরবগাঁথা, অনেক নানা জানা অধ্যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • তানিয়া ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ৩:০১ এএম says : 0
    মনে পরছে যুগের আলোক বর্তিকা মাওলানা এম এ মান্নান (রহ.)-এর কথা। তিনি দেশকে নিয়ে স্বপ্ন দেখতেন। গোটা জাতিকে নিয়ে চিন্তা করতেন। আলেম সমাজকে নিয়ে ভাবতেন। স্বপ্ন দেখতেন, যে কোন মূল্যে জাতীয় স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্বকে রক্ষা করতে হবে। বিজাতীয় সংস্কৃতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। তিনি ভাবতেন, মজলুমের অধিকার আদায়ের প্রশ্নে সংবাদপত্রের কোনো বিকল্প নেই। এক কথায় সুস্থ, সুন্দর, স্থিতিশীল বাংলাদেশ বিনির্মাণে একটি প্রথম শ্রেণির সংবাদপত্রের প্রয়োজনীতা অনস্বীকার্য। এই সংবাদপত্র ছাড়া একটি জাতির ভাগ্য পরিবর্তন সম্ভব নয়। তাই তিনি একটি মানসম্মত পত্রিকা প্রকাশের জোর তাগিদ অনুভব করে প্রতিষ্ঠা করছিলেন দৈনিক ইনকিলাব।
    Total Reply(0) Reply
  • Jahangir ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১:১১ পিএম says : 0
    According to me The Daily Inqilab is the best newspaper of Bangladesh
    Total Reply(0) Reply
  • কামরুজ্জামান ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১:১৯ পিএম says : 0
    আমরা অতীতেও ইনকিলাবের সাথে ছিলাম এখনও আছি ভবিষ্যতেও থাকবো।
    Total Reply(0) Reply
  • বাবুল ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ২:৪৮ পিএম says : 0
    এদেশের সংখ্যাঘরিষ্ট মানুষ দেশ প্রেম ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী। আর এটাই সত্যিকার বাংলাদেশের বাস্তবতা। ইনকিলাব মূল ধারার এই চেতনাকে লালন করে আসছে। তাইতো ইনকিলাব খাঁটি বাংলাদেশী পত্রিকা।
    Total Reply(0) Reply
  • তারেক মাহমুদ ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১:২০ পিএম says : 0
    দৈনিক ইনকিলাব যতদিন তার আদর্শে অটল থাকবে ততদিন এদেশের ৯২ ভাগ মুসলমানরা তাদের পাথে থাকবে।
    Total Reply(0) Reply
  • শমশের আলী ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১:২২ পিএম says : 0
    আগামীতে ইনকিলাব সাংবাদিকদের দেশ ও জনগণের স্বার্থে সত্য প্রকাশে আরো সাহসী হতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • আজিজুর রহমান ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:৩৭ পিএম says : 0
    দেশ ও জনগণের বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর দৈনিক ইনকিলাব ইসলাম ও স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের অতন্দ্র প্রহরী। ইনকিলাবের কন্ঠ স্তদ্ধ করার শক্তি কারো নেই। সকল প্রকার চক্রান্ত ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে ইনকিলাব এগিয়ে যাবেই ইন-শা আল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply
  • Bashir Ahmed ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:৩৯ পিএম says : 0
    ইসলাম ও জাতীয়তাবাদী শক্তির বলিষ্ট কন্ঠ ইনকিলাব সম্পাদকের সাথে আছে দেশপ্রেমিক জনগোষ্ঠী। ইনকিলাব নিয়ে অতীতের মতো এখনও যে চক্রান্ত চলছে, তা প্রতিহত করতে আমরা ঐক্যবদ্ধ।
    Total Reply(0) Reply
  • বুলবুল আহমেদ ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১:২৫ পিএম says : 0
    মাওলানা এম এ মান্নান (রহ.)-এর অসংখ্য সৃষ্টির মধ্যে দৈনিক ইনকিলাব অন্যতম। আল্লাহ তাকে এর জন্য উত্তম জাযাহ দান করুক।
    Total Reply(0) Reply
  • তানিয়া ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ৪:৩৩ পিএম says : 0
    আশা করি দৈনিক ইনকিলাব গণমানুষের এই আস্থার প্রতীক হয়েই থাকবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Lutfur Rahaman ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ৫:৪৮ পিএম says : 0
    Go ahead The Daily Inqilab, We all are with you
    Total Reply(0) Reply
  • নিজাম ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ৫:০৪ পিএম says : 0
    দেশে দৈনিক ইনকিলাবই একমাত্র দেশ প্রেমিক ও ধর্মপ্রাণ মানুষ নিজস্ব পত্রিকা।
    Total Reply(0) Reply
  • ইমতিয়াজ ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ৫:৪৩ পিএম says : 0
    দৈনিক ইনকিলাবের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি
    Total Reply(0) Reply
  • আফজাল হোসেন ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ৫:৪৬ পিএম says : 0
    ইসলাম, দেশ ও মাদ্রাসা শিক্ষার জন্য দৈনিক ইনকিলাব যেভাবে কাজ করে যাচ্ছে তা সত্যি প্রশংসার দাবিদার।
    Total Reply(0) Reply
  • বিপ্লব ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১১:০৭ পিএম says : 0
    ইসলামী মূলবোধে বিশ্বাসী এদেশের সংখ্যাগরিষ্ট মানুষের চিন্তা চেতনা ধারন করে এগিয়ে চলেছে ইনকিলাব। দোয়া করি এই পথ চলা কিয়ামত পর্যন্ত জারি থাকুক
    Total Reply(0) Reply
  • নিঝুম ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১১:১২ পিএম says : 0
    আপোষহীন ভূমিকায় দৈনিক ইনকিলাবের অবিচল থাকবে- এটাই আমাদের প্রত্যাশা
    Total Reply(0) Reply
  • ইয়াসমিন ১০ জানুয়ারি, ২০১৮, ১১:৫৪ পিএম says : 0
    খবর প্রকাশে দেশ ও জনগণের পক্ষ্যে আপোষহীন থাকায় এই পত্রিকার প্রতি মানুষের যে আস্থা ও বিশ্বাস সৃষ্টি হয়েছে তা নজীরবিহীন; পাঠকের এই বিশ্বাসকে আরও সুদৃঢ় করতে কর্মরত সাংবাদিকদের খবর লেখায় আরো সচেতন-দায়িত্বশীল হতে হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ