Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮, ৫ শ্রাবণ ১৪২৫, ৬ যিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী

জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ

| প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

থার্টিফার্স্ট নাইট উৎযাপন কোন ঈমানদার মুসলমানের কাজ হতে পারে না। কারণ এটা বিজাতীয় সংস্কৃতি, বিধর্মীদের কালচার। বিজাতীয় সংস্কৃতি উৎযাপন করা ঈমানের জন্য ক্ষতিকর। পারস্যের নব বর্ষের দিনকে নওরোজ বলে। আর তাদের বার্ষিক উৎসবকে মেহেরজান বলে। কালের পরিক্রমায় সে যুগের নওরোজ বা মেহেরজান পরিবর্তিত হয়ে নববর্ষ ও থার্টিফার্স্ট নাইটে রূপান্তরিত হয়। মুসলিম হয়ে বিজাতীয় সংস্কৃতি পালন যেমন কুফরী, তেমনি থার্টিফার্স্ট নাইট উৎযাপন করাও মুসলমানদের জন্য কুফরী। হাদীসের বাণী হল যারা ভিন্ন ধর্মের সাদৃশ্য রাখলো, তারা যেন তাদেরই অন্তর্ভুক্ত হয়ে গেল। আজ ১লা জানুয়ারী’১৮ ইং জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মাহ পরিষদ ঢাকা মহানগর উত্তর আহবায়ক মুফতী ওয়াহিদুল আলম ও সদস্য সচিব মুফতী মুহাম্মদুল­াহ আনসারী এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, যেখানে যিনা ব্যবিচার, মদ, শরাব, অশ্লীল-অশালীন, বেহায়াপনা কাজ চলে তা কখনো ইসলামে গৃহীত নয় বরং তা ইসলাম বহির্ভূত, নৈতিকতা বিরোধী, হারাম অনুষ্ঠান। ইতিহাস এটাই প্রমাণ করে যে, সব নববর্ষের প্রবর্তকই বিধর্মীরা। তাই ইসলাম নববর্ষ পালনকে কখনই স্বীকৃতি দেয় না। যেহেতু এতে করে অন্য ধর্মের ধর্মীয় রীতির সাথে সাদৃশ্য হয় সেহেতু তা মুসলমানদের জন্য বৈধ হবে না। তাছাড়াও নববর্ষের নামে যেসকল অপসংস্কৃতি ও কুসভ্যতার অবতারণা করা হয় এর সবই মুসলমানদের জন্য সম্পূর্ণ হারাম।

নেতৃদ্বয় আরো বলেন, ডিএমপির নিষেধাজ্ঞা সত্তে¡ও রাত বারোটা বাজার পূর্বেই কার আগে কে বাজি ও ফানুস উড়াবে তার প্রতিযোগীতা চলে। ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয় এলাকায় অপরাজেয় বাংলার পাদ দেশে বেশ সরগরমে হিন্দি, ইংলিশ ও বাংলা গানের উন্মুক্ত আসর বসে। আর প্রশাসন বসে বসে তামাশা দেখে। এটা আমরা কোনদিন প্রত্যাশা করিনি। আমরা আশাবাদি ছিলাম সবাই প্রশাসনের নির্দেশের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে। কিন্তু ঘটনা দেখলাম তার সম্পূর্ণ বিপরীত। যা প্রকারান্তরে পুলিশ প্রশাসনেক বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানোর নামান্তর। পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে ডিএমপি দেখেও না দেখার ভান করছে। অথচ ঢাকায় ধর্মীয় প্রোগ্রাম করতে গেলে খোড়া নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে তালবাহানা করা হয়। চলন্ত মাহফিল বন্ধ করে দেয়া হয়। আর উদ্যাম আতশবাজি, গানবাজনা ও মাদকের ছড়াছড়িতে কি নিরাপত্তা বিঘিœত হয় না। আমরা পুলিশ কমিশনারের কথা ও কাজের কোন মিল খুজে পাচ্ছি না। তাহলে কি আমরা বলবো ডিএমপির সিদ্ধান্ত ছিল নিছক লোক দেখানো?।
-প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

আল কোরআনের কাব্যানুবাদ
মুহিবুর রহমান খান
সূরা আ’রাফ
মক্কায় অবতীর্ণ : আয়াত ২০৬ রুকু : ২৪
আশ্রয় চাহি আল্লাহর, যেন শয়তান দূরে রয়,
(শুরু করিলাম) আল্লাহর নামে পরম করুণাময়
৯২। ‘শুয়াইবকে যারা বলেছিল মিথ্যুক,
তাহারাই ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে (তাহারাই দুর্মূখ)।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।