Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ০৯ মাঘ ১৪২৪, ৪ জমাদিউস আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

আমরা স্বাধীনতা এনেছি গণতন্ত্র রক্ষা করেছি : মেয়র নাছির

চট্টগ্রামে সরকারের চার বছর পূর্তিতে সমাবেশ

| প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেছেন, আমরা স্বাধীনতা এনেছি। গণতন্ত্র রক্ষা করেছি। বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনী ও যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসিতে ঝুলিয়েছি। দেশ থেকে উগ্র সা¤প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ আমরা চিরতরে নির্মূল করার অদম্য ক্ষমতা রাখি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের চতুর্থ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে গতকাল (শুক্রবার) বিকেলে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ চত্বরে মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে তিনি একথা বলেন। মেয়র আরো বলেন, বেগম জিয়া অনেক আবোল-তাবোল কথা বলছেন। এর কারণ তিনি বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধকে স্বীকার করেন না। তার হাত নিরীহ সাধারণ মানুষের রক্তে রঞ্জিত। তিনি গণতন্ত্রের নামে পেট্টোল বোমায় নারী, শিশু, শ্রমিকসহ একশ’ দিনে শতাধিক নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছেন। কয়েক হাজার কোটি টাকার রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করেছেন। এর দায় তাকে অবশ্যই বহন করতে হবে। তিনি খালেদা জিয়ার উদ্দেশে বলেন, আপনি তথাকথিত গণতন্ত্র রক্ষা দিবস পালন করে সমগ্র জাতির কাছে উপহাসের পাত্র হয়েছেন। আপনার উচিত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন না করার জন্য অনুশোচনা দিবস পালন করা। শেখ হাসিনা সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতায় ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে সাংবিধানিক সরকার প্রতিষ্ঠা করে গণতন্ত্র রক্ষা করেছেন। তা না হলে দেশে অসাংবিধানিক সরকার এবং গণতন্ত্রের কবর রচিত হতো।
মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী উক্ত সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে তুলেছেন। বাংলাদেশ আজ গরীব নয়। শেখ হাসিনার বিচক্ষণ নেতৃত্বে বাংলাদেশ মধ্যআয়ের দেশে উন্নীত হবে।
মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে আরোও বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, খোরশেদ আলম সুজন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম রেজাউল করিম চৌধুরী, এম এ রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, আবদুল আহাদ, শহিদুল আলম, আবুল মনসুর প্রমুখ। বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ব্যানার-ফ্যাস্টুনসহ মিছিল সহকারে জেলা পরিষদ চত্বরে মিছিলপূর্ব সমাবেশে যোগদান করেন। পরে একটি আনন্দ মিছিল নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে দারুল ফজল মার্কেটস্থ দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

 

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।