Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১০ মাঘ ১৪২৪, ৫ জমাদিউস আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

ঘুরে দাঁড়াতে পারবে ভারত?

| প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : ঘরের মাঠের মাঠে একের পর এক সিরিজ জয়ে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠা ভারতের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা সফর ছিল নিজেদের শ্রেষ্ঠাত্ব প্রমাণের আসল পরীক্ষা। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটিকে যাচ্ছেতাই ভাবে হেরে সেই পরীক্ষায় নাম লিখিয়েছে বিরাট কোহলির দল। আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া সেঞ্চুরিয়ান টেস্টে হারলে সিরিজ হারও নিশ্চিত হযে যাবে।
এমতাবস্থায় নতুন কৌশল নিয়ে মাঠে নামার ঘোষণা দিলেন ভারত দলপতি। সে তিনি যে ঘোষণাই দেন না কেন আসল কাজটা তো মাঠে করে দেখাতে হবে। আর সেটা করতে পারলে এক অসাধ্যই সাধন করবে ভারত। সেঞ্চুরিযানে কোন সাবকন্টিনেন্টের দলের-ই যে জয়ের রেকর্ড নেই। শুধু তাই না, ভারতসহ প্রতিটা দলই এখানে হেরেছে কমপক্ষে ইনিংস ব্যবধানে! এখানে ২২ ম্যাচের ১৭টিতেই জিতেছে স্বাগতিকরা, হার মাত্র দু’টিতে। ভারত অবশ্য এখানে একটি ম্যাচই খেলেছে। ২০১০-১১ সালে শচীন টেন্ডুলকারের টেস্ট শতকের ফিফটির সেই ম্যাচে ইনিংস ও ২৫ রানে হেরেছিল ভারত।
সিরিজের প্রথম ম্যাচে কেপটাউনে প্রথম টেস্টে ৭২ রানে হারে ভারত। আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া ম্যাচ দিয়েই তাই সিরিজ নিশ্চিত করতে চায় দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম টেস্টে সতীর্থদের পারফরমেন্সে খুশী প্রেটিয়া অধিনায়ক ফাফ ডু-প্লেসিস দ্বিতীয় ম্যাচেও একই পারফর্ম্যান্স দেখতে চান সতীর্থদের কাছ থেকে, ‘আমাদের বোলাররা খুবই ভালো করেছে (প্রথম টেস্টে)। ব্যাটসম্যানরা অবশ্য ভালো করতে পারেনি। তবে এজন্য আমি অখুশী নই। কারণ ব্যাটসম্যানদের ভাগ্য সহায় ছিলো না। আশা করি, দ্বিতীয় টেস্টে তারা বড় ইনিংস খেলবে।’
ভারতও চাচ্ছে ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজ বাঁচিয়ে রাখতে। তাই জয়ই একমাত্র লক্ষ্য ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির। এজন্য গেমপ্ল্যানেও এনেছেন কিছু পরিবর্তন। সংবাদ সম্মেলনে সেটাই জানালেন কোহলি, ‘সিরিজ জয়ের আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলে এ ম্যাচে জিততেই হবে আমাদের। তবে আমরা কোন চাপ নিচ্ছি না। আমরা আমাদের স্বাভাবিক খেলাটাই খেলতে চাই। প্রথম টেস্টে আমরা যা করতে পারিনি। দ্বিতীয় টেস্টে তা করে দেখাতে চাই এবং ম্যাচ জিততে চাই। এ ম্যাচে আমাদের জিততেই হবে এবং সিরিজে সমতা আনতে হবে। এজন্য আমরা নতুন পরিকল্পনা নিয়ে এ টেস্ট খেলতে নামবো। আশা করি আমরা এবার সফল হবো।’
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে একাদশে বেশক’টি পরিবর্তন আনতে পারে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। ওপেনার হিসেবে প্রথম টেস্টে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি শিখর ধাওয়ান। দু’ইনিংসে তার মোট রান ১৬। তাই ধাওয়ানের পরিবর্তে লোকেশ রাহুলকে খেলানোর চিন্তা-ভাবনা করছে ভারত। এছাড়া প্রথম টেস্টে পারফরমেন্সে ব্যর্থ রোহিত শর্মাকে সরিয়ে আজিঙ্কা রাহানেকে সুযোগ দিতে পারে দল। আর অসুস্থতার জন্য প্রথম ম্যাচে খেলতে না পারা পেসার ইশান্ত শর্মাকে দেখা যেতে পারে দ্বিতীয় টেস্টে। তবে ইশান্তের ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত সিদ্বান্ত নেয়নি ভারত।
পুরো সিরিজের জন্যেই ডেল স্টেইনকে হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। তার অনুপস্থিতিতে পেস আক্রমণের নেতৃত্বে থাকবেন আরেক অভিজ্ঞ মরনে মর্কেল। সঙ্গে আছেন আগের ম্যাচেরই ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করা ভারর্নন ফিল্যান্ডার ও আইসিসি বোলার র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠা কাগিসো রাবাদা। স্টেইনের বিকল্প হিসেবে ওটিস গিবসনের হাতে আছে ক্রিস মরিস, লুঙ্গি এনগিদি, অ্যান্ডেল ফেহলুকায়ো ও ডুয়ান্নি অলিভারের মত প্রতিশ্রæতিশীল পেসাররা। এদের মধ্যে অল-রাউন্ডার ক্রিস মরিসই থাকবেন এগিয়ে।

 

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।