Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ৮ কার্তিক ১৪২৫, ১২ সফর ১৪৪০ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বাসঘাতকতা করেছে : বাজওয়া

সম্পর্কে অস্থিরতা সাময়িক, পাক সেনাপ্রধানকে মার্কিন জেনারেল জোসেফ

| প্রকাশের সময় : ১৪ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পাকিস্তান যথেষ্ট কাজ করছে না’- মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেছেন পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। গত শুক্রবার মার্কিন কেন্দ্রীয় কমান্ডের প্রধান জেনারেল জোসেফ ভোটেলের সঙ্গে টেলিফোন আলাপে তিনি এ বিষয়ে নিজ দেশের অবস্থান তুলে ধরেন। তিনি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট স¤প্রতি যে অবমাননাকর বক্তব্য দিয়েছেন তাতে পুরো পাকিস্তানি জাতি মনে করছে আমরিকা বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। গতকাল শনিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স। পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর এক বিবৃতিতে এ ফোনালাপের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে জেনারেল ভোটেল সেনাপ্রধানকে ফোন করেন। পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর জানান, ফোনালাপে জেনারেল ভোটেল উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, আফগানিস্তানে হামলা চালানোর জন্য সন্ত্রাসীরা পাকিস্তানকে ব্যবহার করছে। তবে পাকিস্তানের ভেতরে মার্কিন সেনারা একতরফা কোনও অভিযান চালাবে না। যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তানের সার্বভৌমত্বের প্রতি সম্মান দেখাবে। আফগান তালেবান ও হাক্কানি নেটওয়ার্কের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পাকিস্তানের সহায়তা কামনা করেন মার্কিন জেনারেল। এর আগে ২০১৮ সালের প্রথম দিন বছরের প্রথম টুইটে পাকিস্তানকে দেওয়া আর্থিক সহযোগিতা বন্ধের হুমকি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি অভিযোগ করেন, পাকিস্তান জঙ্গিদের আশ্রয় দিচ্ছে এবং তাদের সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে। জানা গেছে, জেনারেল ভোটেল পাকিস্তানী সেনাপ্রধানকে বলেছেন যে, তথাকথিক সন্ত্রাস-বিরোধী যুদ্ধে পাকিস্তানের সহায়তাকে মূল্যায়ন করে যুক্তরাষ্ট্র এবং দুই দেশের সম্পর্কের মধ্যে সা¤প্রতিক যে অস্থিরতা তৈরি হয়েছে, সেটা “সাময়িক”। আইএসপিআর জানিয়েছে, তিনি পাকিস্তানী সেনাপ্রধানকে এটাও বলেছেন যে, পাকিস্তানের মাটিতে কোন ধরনের একতরফা অভিযানের কথা যুক্তরাষ্ট্র ভাবছে না। বরং যে সব আফগান নাগরিক পাকিস্তানের ভেতরে প্রবেশ করে সেখান থেকে আফগানিস্তানে সন্ত্রাসী তৎপরতা চালাচ্ছে, তাদের মোকাবেলায় পাকিস্তানের সহযোগিতা চায় যুক্তরাষ্ট্র। আমেরিকান জেনারেল মনে করেন যে, এ ধরনের কিছু করা হলে সেটা যুদ্ধে পাকিস্তানের অবদানকে ছোট করা হবে। পাকিস্তানী সেনাপ্রধান জেনারেল ভোটেলকে বলেছেন, মার্কিন সরকারের সা¤প্রতিক বিবৃতিতে মনে হয়েছে, পুরো পাকিস্তানের সাথে প্রতারণা করা হয়েছে। কারণ গত এক দশক ধরে পাকিস্তানের যে অবদান, এতে তা অস্বীকার করা হয়েছে। সেনাপ্রধান বলেন, মার্কিন সহায়তা ছাড়াই পাকিস্তান তার সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকান্ড অব্যাহত রাখবে, কারণ পাকিস্তানের জাতীয় স্বার্থেই এটা করা হচ্ছে। সেনাপ্রধান বলেন, পাকিস্তানে তৎপর আফগান নাগরিকদের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ সম্পর্কে পাকিস্তান অবগত রয়েছে। পাকিস্তান এ কারণে এরইমধ্যে “অপারেশান রাদুল ফাসাদ” পরিচালনা করেছে বলেও জানান তিনি। জেনারেল বাজওয়া বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে আর সহায়তা চাইবে না পাকিস্তান, কিন্তু সন্ত্রাসবাদ বিরোধী যুদ্ধে পাকিস্তানের অবদান, ত্যাগ ও একনিষ্ঠ সমর্থনের স্বীকৃতি দিতে হবে। আইএসপিআর জানিয়েছে, কথোপকথন থেকে এটাও বোঝা গেছে যে, পাকিস্তানের বলির পাঠা বানানোর মার্কিন প্রবণতা সত্তে¡ও আফগানিস্তানে শান্তি প্রচেষ্টার জন্য সব ধরনের কর্মকান্ডে সমর্থন দিয়ে যাবে পাকিস্তান। যেহেতু এ অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনার জন্য আফগানিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠা করাই একমাত্র সমাধান। জেনারেল ভোটেল স্বীকার করেন যে, পাকিস্তানে অবস্থানরত আফগান শরণার্থীরা যেন সন্ত্রাসবাদে জড়িয়ে না পড়ে, সেজন্য পাকিস্তান স¤প্রতি যে সব পদক্ষেপ নিয়েছে, সেগুলো কাজে লেগেছে। দুই দেশই পারস্পরিক সহযোগিতার থেকে লাভবান হবে বলেও মনে করেন তিনি। রয়টার্স, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন,এসএএম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ