Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ০৯ মাঘ ১৪২৪, ৪ জমাদিউস আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

এ কোন পাকিস্তান!

| প্রকাশের সময় : ১৪ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিজয়ী দল হলেও সময়টা কিন্তু ভালো যাচ্ছে না পাকিস্তানের। বিশেষ করে ওয়ানডে ফরমেটে। দুই বছরও হয়নি এজবাস্টনের সেই ঘটনার। যে ম্যাচে পাক বোলারদের তুলোধুনো করে ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ (৪৪৪/৩) রানের রেকর্ড গড়েছিল ইংল্যান্ড। এবার একই ফরমেটে পাকিস্তান পড়েছিল সর্বনি¤œ রানের শঙ্কায়। ৬ উইকেটে ১৬ থেকে ৩২ রানে নেই ৮ উইকেট! কিন্তু সর্বশেষ দুই ব্যাটসম্যানের কল্যাণে সেই লজ্জা থেকে রেহাই পেয়েছে পাকরা।
নিউজিল্যান্ডের ২৫৭ রানের জবাবে মাত্র ৭৪ রানে গুটিয়ে ১৮৩ রানে ম্যাচ হেরেছে পাকিস্তান। অথচ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সরফরাজ আহমেদের দলের লড়াইটা ছিল সিরিজ রক্ষার। সেটা তো হলই না, উল্টো রানের ব্যবধানে নিউজিল্যান্ডের কাছে রেকর্ড হারের সঙ্গে ৫ ম্যাচের সিরিজটাও ইতোমধ্যে ৩-০তে খুঁইয়েছে পাকিস্তান। গত ১৩টি সিরিজে এটি হতে যাচ্ছে তাদের দশম হার।
ডানেডিনে টস জিতে ঠিক ৫০ ওভার ব্যাট করে ২৫৭ রানে অলআউট হয় নিউজিল্যান্ড। জবাবে শুরু থেকেই ট্রেন্ট বোল্টের তোপে পড়ে সফরকারীরা। বোল্টর সুইং আর মুভমেন্টের সামনে তারা দাঁড়াতেই পারেনি। দলীয় ২ রানে হারায় ৩ উইকেট। মাত্র ৫ বলের ব্যবধানে তিন উইকেটই নেন বোল্ট। কলিন মুনরোর বলে হাসান আলীর করা বুলেট গতির শট কেন উইলিয়ামসনের হাতে জমে যাওয়ার পরই সর্বনি¤œ রানের শঙ্কায় পড়ে পাকরা। ২০০৪ সালে হারারেতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৮ ওভারে ৩৫ রানেই গুটিয়ে গিয়েছিলো জিম্বাবুয়ে। পাকিস্তানের সংগ্রহ তখন ৮ উইকেটে ৩২। কিন্তু শেষ দুই ব্যাটসম্যানের ইনিংস সর্বোচ্চ রানে এ যাত্রায় রক্ষা পায় পাকিস্তান। এগারো নম্বর ব্যাটসম্যান রুম্মন রইস করেন ১৬ রান, মোহাম্মাদ আমির করেন ১৪। দুজনকেই সরাসরি বোল্ড করে ফেরান বোল্ট। অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ ১৪ রানে অপরাজিত ছিলেন। সব মিলে বোল্টের ৭.২ ওভারে ১ মেডেনসহ ১৭ রানে ৫ উইকেট পাকিস্তানের বিপক্ষে যে কোন নিউজিল্যান্ড বোলারদের মধ্যে সেরা। এছাড়া কলিন মুনরো ও লোকি ফার্গুসন নেন ২টি করে উইকেট। যার দরুণ নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে যৌথ তৃতীয় সর্বনি¤œ রানের লজ্জায় পড়ে পাকিস্তান।
এর আগে ৪ উইকেটে ২০৯ রান থেকে ২৫৭ রানেই নিউজিল্যান্ডকে গুটিয়ে দেয় পাক বোলাররা। অধিনায়ক উইলিয়ামসন ৭টি চারের সহায়তায় ১০১ বলে করেন ৭৩ রান। ৬৪ বলে ৫২ রানের ইনিংসে ৪টি চার মারেন টেইলর। পাকিস্তানের পক্ষে রুম্মন রইস ও হাসান আলী নেন ৩টি করে উইকেট। আগামী ১৬ জানুয়ারি হ্যামিল্টনে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডে।
নিউজিল্যান্ড : ৫০ ওভারে ২৫৭ (গাপটিল ৪৫, উইলিয়ামসন ৭৩, টেইলর ৫২, ল্যাথাম ৩৫; রইস ৩/৫১, হাসান ৩/৫৯, শাদাব ২/৫১)।
পাকিস্তান : ২৭.২ ওভারে ৭৪ (সরফরাজ ১৪*, রইস ১৬; বোল্ট ১৭/৫, মুনরো ২/১০, ফার্গুসন ২/২৮)।
ফল : নিউজিল্যান্ড ১৮৩ রানে জয়ী।
ম্যাচ সেরা : ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড)।
সিরিজ : ৫ ম্যাচে ৩-০তে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড।

 

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।