Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ০৯ মাঘ ১৪২৪, ৪ জমাদিউস আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

স্ট্রিকের ‘আরেক বাড়ি’

| প্রকাশের সময় : ১৪ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : এ যেন পুরনো প্রেমিকার প্রেমই বুমেরাং হয়ে আসার ভয়! ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের দুই প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ে- দুই দলেরই প্রধান কোচ বাংলাদেশ দলে কাজ করে গেছেন সা¤প্রতিক সময়ে। শ্রীলঙ্কার প্রধান কোচ চন্ডিকা হাতুরুসিংহে তো বাংলাদেশের শেষ আন্তর্জাতিক সিরিজেও ছিলেন কোচ। জিম্বাবুয়ের প্রধান কোচ হিথ স্ট্রিক এই দেশের পেসারদের শিক্ষকের আসনে ছিলেন দুই বছর।
প্রেমের সাথে ক্রিকেটের তুলনা যথার্থ না হলেও দুই পুরনো ‘গুরু’কে সামনে রেখে টাইগারদের খচখচে অনুভূতিটা অনেকটা সেরকমই। হাথুরুসিংহে যেমনি জানেন তামিম-সাকিব-ইমরুলদের সবকিছু, তেমনি মাশরাফি-মুস্তাফিজের সবকিছু জানেন স্ট্রিক। বাংলাদেশের দুই প্রতিপক্ষের কোচ হয়ে আসা স্ট্রিক ও হাথুরুসিংহে তাই স্বাগতিকদের জন্য একটু দুশ্চিন্তার কারণই।
শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সেই দুশ্চিন্তা আরও বাড়িয়ে দিলেন স্ট্রিক। জিম্বাবুয়ে কোচের প্রিয় শহর ঢাকাকে তিনি যে আখ্যা দিচ্ছেন বাড়ির বাইরে নিজের আরেক বাড়ি বলে, ‘এটা বাড়ির বাইরে নিজের আরেক বাড়িতে আসার মতোই। খুবই ভালো লাগছে। খুব বেশি দিন হয়নি আমি এখানে দুই বছর কাটিয়ে গেছি। যাই হোক, ভালো একটি ত্রিদেশীয় সিরিজের আশা করছি।’
স্ট্রিক যে শুধু খেলোয়াড়দের আদ্যোপান্তই জানেন, তা নয়। বাংলাদেশে কাজ করার সুবাদে তার ঘনিষ্ঠতা ছিল তখনকার টাইগার হেড কোচ হাতুরু ও মাশরাফিদের বর্তমান টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গেও। তাই বেশ আটঘাট বেঁধেই ত্রিদেশীয় সিরিজের মাঠে নামার ভালো সুযোগ পাচ্ছেন তিনি। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘হাতুরুসিংহে ও বাংলাদেশের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর সুজনের সাথে আমার খুবই ভালো সম্পর্ক। আমার মনে হয় পুরো সিরিজ জুড়েই আমাদের চ্যালেঞ্জ থাকবে। আমরা যেমন এখানকার প্লেয়ারদের ও কন্ডিশন সম্পর্কে জানি তেমনি হাতুরুও জানে।’
জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কার অনেক ক্রিকেটার খেলে গেছেন সর্বশেষ বিপিএলেও। বাংলাদেশ তাই তাদের কাছে মোটেও অচেনা কোনো জায়গা নয়। স্ট্রিক বলেন, ‘জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কার বেশ কয়েকজন প্লেয়ার এখানে বিপিএল খেলেছে। এতে করে টেকনিক্যাল বিষয়সমূহ ও মাঠের পরিকল্পনা ভালোভাবে করার একটি সুযোগ পাওয়া যাবে।’

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।