Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

অপহরণের পর শিশুর লাশ উদ্ধার

| প্রকাশের সময় : ১৬ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাতা : অপহরণের ১০দিন পর গতকাল সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের খড়িয়ালা থেকে শিশু রিফাতের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সকালে উপজেলার খড়িয়ালা গ্রামের স্থানীয় ইউপি সদস্য মুমিন মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়ার বাসার বাথরুমের ফলস ছাদের ভিতর থেকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পুলিশ ৩ অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো বরগুনার পাথর ঘাটার সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে সোহাগ মিয়া (২৪), ঝালকাটির কাঠালিয়ার আনছার আলীর ছেলে সোলায়মান (২২), নোয়াখালীর নাবালক মিয়া ছেলে ইলিয়াস (৫৫)। রিফাত খড়িয়ালা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র। সে উপজেলা খড়িয়ালা গ্রামের বাহার মিয়ার ছেলে। গত ৫ জানুয়ারী অপহরণ হয়েছিল রিফাত। অপহরণের কয়েক ঘন্টার মাথায় রিফাতকে গলায় কাপড় পেঁচিয়ে শাসরুদ্ধ করে হত্যা করেছে বলে পুলিশকে জানিয়েছেন অপহরণকারীরা।
পুলিশ জানায়, ৫ জানুয়ারী দুপুর থেকে সে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পরপর রিফাতে বাবা পৃুলিশকে অবহিত করে। ২ দিন পর তার বাবার কাছে মোবাইলে ফোন করে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ চায় অপহরণকারীরা। বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ তাদের কথা মতো বিকাশে মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা পাঠাতে বলে রিফাতের বাবাকে। বিকাশে মাধ্যমে টাকা পাঠানো পর বিকাশ নাম্বারের সূত্র ধরেই খোঁজ মিলে একই গ্রামের ভাড়া নিয়ে বসবাসকারী সোহাগ, সোলায়মান , মিজান ও ইসিলাস শিশুটিকে অপহরণ করেছে। সোহাগ, সোলায়মান ও মিজান খড়িয়ালা গ্রামে রাইডার নামে একটি ব্যাগ ফ্যাক্টরিতে চাকুরি করার সুবাধে একই এলাকায় ইউপি সদস্য মুমিন মিয়ার একতলা ভবনে ভাড়া নিয়ে থাকতেন। মোবাইলে কললিস্ট ধরে সোহাগ, সোলায়মান ও ইসিলাসকে আটক করলে তাদের স্বীকারোক্তির মাধ্যমে সকালে ভাড়া বাড়িতে গিয়ে বাথরুমে ফলস ছাদের উপর থেকে বস্তা বন্দি অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় আরেক অপহরণকারী মিজানকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। অপহরণের পর রিফাতের বাবা বাহার মিয়া বাদী হয়ে আশুগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিল। আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বদরুল আলম তালুকদার জানান, প্রাথমিক ভাবে জিজ্ঞাসাবাদে অপহরণের কয়েক ঘন্টার মাথায় রিফাতকে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে অপহরণকারীরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ