Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ০৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ফাঁদ অভিযান জোরদার করছে দুদক

হয়রানিমুক্ত সরকারি সেবা লক্ষ্য

মালেক মল্লিক | প্রকাশের সময় : ১৬ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

সার্বক্ষণিক প্রস্তুত স্ট্রাইকিং ফোর্স : কয়েকটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে শিগগিরই অভিযান
ফাঁদ অভিযান জোরদার করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অভিযোগ কেন্দ্র ১০৬-এ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ আসলেই তাৎক্ষনিকভাবে অভিযান নামছে দুদকের স্ট্রাইকিং ফোর্সের সদস্যেরা। এরপর হাতে নাতে গ্রেফতার করা হয়। অভিযোগ কেন্দ্র চালুর পর থেকে অন্তত একশ অভিযান চালানো হয়। সবকটি ফাঁদ অভিযান সরকারি কর্মকর্তারা ও কর্মচারীদের দুনীতি, অনিয়ম ও নগদ ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, কল সেন্টারের অভিযোগ পেলেই দুদকের স্ট্রাইকিং ফোর্সের টিমের সদস্যরা সশস্ত্র পুলিশ ইউনিট নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হন। চলতি মাসে দুইটি ফাঁদ অভিযান নামে কমিশন। এ সেবা আপাতত রাজধানীতে বিভিন্ন অফিসে ঘুষ গ্রহণকারীদের বিরুদ্ধে এসব অভিযান চালানো হচ্ছে।পরবর্তীতে রাজধানীর বাইরেও বড় পরিসরে চালু করবে দুদক। এ বিষয়ে জানতে চাইলে দুদকের উপ পরিচাললক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য ইনকিলাবকে বলেন, সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচার্রীর বিরুদ্ধে অনিয়ম ও ঘুষ গ্রহণ করার অভিযোগে ফাঁদ অভিযান চালানা হচ্ছে। হটলাইন চালুর পর থেকে অন্তত ১০০ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এই মাসে দুইটি অভিযান চালানো হয়। অন্তত হাতে নাতে ১০/ ১২ গ্রেফতার ও করা হয়েছে বলে তিন জানান। এরছাড়া অনেকের বিরুদ্ধে মামলাও করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, তথ্য যাছাই-বাছাই করে অভিযানের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। আগামীতে আরো অভিযান জোড়দার করা হবে। আশা করি শিগগিরই অতি-ঘুষখোর কিছু কর্মকর্তাকে হাতেনাতে ধরা সম্ভব হবে।
দুদক সূত্রে জানা যায়, গত বছর অভিযোগ কেন্দ্র চালুর পর থেকে ফাঁদ অভিযান শুরু করে। বিষয়টি তদারকির দািয়ত্বে রয়েছেন মহাপরিচালক মোহাম্মদ মুনির চৌধরী। এছাড়াও তিন সদস্যের স্ট্রাইকিং ফোর্স গঠন করাও হয়েছে। তাদের নেতৃত্বে সশস্ত্র পুলিশ ইউনিট নিয়ে এসব অভিযানে নামে দুদক। ইতোমধ্যে ঢাকায় কয়েকটি অফিসে বিশেষ করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও জিপিও এবং রপ্তানি ব্যুরোতে অভিযান চালায়। সর্বশেষ গতকাল ঢাকায় কেন্দ্রীয় কারাগারে যান দুদকের এ বিশেষ টিম।
ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অভিযান: হটলাইনে অভিযোগ আমলে নিয়ে দুদক ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যান। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আত্মীয়র সঙ্গে দেখা করতে গেলে কারাগারের এক কর্মচারী তার নিকট ঘুষ দাবি করে। বিষয়টি দুদকের কমিশনের মহাপরিচালক প্রশাসনকে অবহিত করেন।
মহাপরিচালক তাৎক্ষণিকভাবে দুদকের স্ট্রাইকিং ফোর্সের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপপরিচালক মাহমুদ হাসান এর নেতৃত্বে সহকারী পরিচালক সালাহউদ্দিন এবং সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন এর সমন্বয়ে তিন সদস্যের একটি টিম গঠন করেন। টিমের সদস্যরা দুদকের সশস্ত্র পুলিশ ইউনিটের সদস্যদের নিয়ে গতকাল সাড়ে ১২টায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের যান। তারা উপস্থিত আসামিদের সাথে স্বাক্ষাতের জন্য আগত স্বজনদের সাথে ঘুষ এবং দালাল চক্রের দৌরাত্মের বিষয়ে কথা বলেন। জনৈক ব্যক্তি সাক্ষাত করে দেয়ার নামে ৫০০ টাকা ঘুষ দাবি করেছেন। টাকা না থাকায় তিনি বন্দির সাথে সাক্ষাত করতে পারেন নি। এরপর দুদক টিমের সদস্যরা বিভিন্ন সাক্ষাত প্রার্থীদের সাথে কথা বলেন এবং তার কেন্দ্রীয় কারাগারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডেপুটি জেলার সাখাওয়াত হোসেনের সাথে সাক্ষাত করে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চান। ডেপুটি জেলার জানান, তাদের কাছে এমন কোন অভিযোগ আসেনি।
দুদক কর্মকর্তারা বলেন, হয়রানি এবং দুর্নীতিমুক্তভাবে সরকারি সেবা প্রদান করা সকল সরকারি কর্মকর্তার দায়িত্ব। তাই কর্তৃপক্ষের এজাতীয় অভিযোগের দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া উচিত। এছাড়া কমিশনের কর্মকর্তারা আরও বলেন কমিশনের স্ট্রইকিং ফোর্সের সদস্যরা এজাতীয় অভিযোগ পেলে দ্রুততম সময়ে ঘটনাস্থলে চলে আসবে।
রপ্তানি ব্যুরোতে অভিযান: গত ১০ জানুয়ারীতে প্রকাশ্যে ঘুষ লেনদেন চলছে অভিযোগ পেয়ে কারওয়ান বাজারে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর প্রধান কার্যালয়ে অভিযান চালাায় দুদক। অভিযান পরিচালনাকালে অফিসের প্রতিটি ফ্লোরে সিসি টিভি সার্ভিস চালু রাখার অনুরোধ জানানো হয়। একজন ব্যক্তি অভিযোগ করেন রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো কার্যালয়ে প্রকাশ্যে দিবালোকে ঘুষ- লেনদেন চলছে। এর আগে ঢাকার জিপিওতে বৈদেশিক পাশের্^ল প্রেরণেরকার্যক্রমে অতিরিক্ত অর্থ দাবি করা হচ্ছে। এরপা দুদকের দুজন সহকারী পরিচালকের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের সশস্ত্র পুলিশ ফোর্সসহ একটি এনর্ফ্সেমেন্ট টিম তাৎক্ষণিক অভিযান পরিচালনা করে দুদক। এরপর অতিরিক্ত টাকা আদায়ের ঘটনা বন্ধ হয়ে যায়। সেবা প্রদানের কিছু ত্রুটি-বিচ্যূতির কথা জেনে প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন হয়রানিমুক্ত সেবা প্রদানের পরামর্শ প্রদান করেন। এছাড়াও একইভাবে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের মালামাল বিক্রির টেন্ডার প্রক্রিয়ায় দুর্নীতির ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে। তাৎক্ষণিকভাবে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম হাজির হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। এদিকে ঢাকার বাইরে বাগেরহাটের রামপাল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগীদের জন্য দুর্নীতির মাধ্যমে নিম্ন মানের খাবার পরিবেশনের অভিযোগ পায়। পরে দুদক স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশ দেন। দুদকের ফাঁদ টিমের হাতে গত বছর অন্তত ৩১ জন সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী গ্রেফতার হয়েছেন। এদের মধ্যে নৌ-পরিবহন অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী একেএম ফখরুল ইসলাম একজন। এ প্রসঙ্গে ডিজি মুনীর চৌধুরী বলেন, প্রাপ্ত অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করেই অভিযান চলছে। সামনে এ অভিযানের মাত্রা ও আওতা আরও বাড়ানো হবে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দুদক

২৭ মার্চ, ২০১৯
২৪ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ