Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

টঙ্গীতে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

মোঃ হেদায়েত উল্লাহ, টঙ্গী থেকে : | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু কাল
টঙ্গী তুরাগ নদীর তীরে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় পর্বের ৩দিন ব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা। আগামী ২১ জানুয়ারী রোববার আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এবারের ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমা। প্রথম পর্বের ন্যায় দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে এবারও নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা। দ্বিতীয় পর্বেও ঢাকার একাংশসহ দেশের বাকি ১৪টি জেলার মুসল্লীরা ইজতেমায় অংশ নেবেন। গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার হারুন-অর-রশিদ জানান, প্রথম পর্বের ন্যায় দ্বিতীয় পর্বেও ৫স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির জানান, দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায়ও প্রথম পর্বের মতো সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হয়েছে।
ইজতেমা আয়োজক কমিটি, জেলা প্রশাসন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ইতিমধ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।
গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান ইনকিলাবকে বলেন, ইজতেমার মাঠ এবং মাঠের আশপাশের সমস্ত এলাকা নতুন করে সাজানো হয়েছে। দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা অনুষ্ঠানের জন্য ইজতেমা ময়দান এখন পুরোপুরি প্রস্তুত। তিনি আরো বলেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লীদের ২৪ঘন্টা সেবাদানে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায়ও সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে প্রশাসনের নজরদারির জন্য পর্যাপ্ত কন্ট্রোল রুম নির্মাণ করা হয়েছে। ইজতেমায় আগত দেশী-বিদেশী মুসল্লীদের স্বাগত জানিয়ে বিভিন্ন পয়েন্টে তোরণ, ইজতেমার নিরাপত্তার জন্য র‌্যাব ও পুলিশের ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ, ইজতেমায় নিয়োজিত নিরাপত্তা সদস্যদের জন্য অস্থায়ী টয়লেট নির্মাণ, ফগার মেশিনের মাধ্যমে মশক নিধন কার্যক্রম গ্রহণ, ইজতেমা কর্তৃপক্ষের চাহিদা মোতাবেক বিøচিং পাউডার ছিটিয়ে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী মুসল্লীদের ইবাদত বন্দেগী করার উপযোগী করা হয়েছে বিশ্ব ইজতেমা ময়দান।
পুলিশ সুপার হারুন-অর-রশিদ জানান, ইজতেমা মাঠের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য র‌্যাব-পুলিশসহ এবার বিশ্ব ইজতেমার দুই পর্বে ১২ হাজারের মতো নিরাপত্তাকর্মী দায়িত্ব পালন করবে। টঙ্গী ব্রিজ থেকে জয়দেবপুর চৌরাস্তা, মন্নু গেট থেকে কামারপাড়া পর্যন্ত এবং তুরাগ নদসহ পুরো এলাকাকে পাঁচটি সেক্টরে ভাগ করা হয়েছে। প্রতিটি সেক্টরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কঠোর নজরদারির মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করবেন। তিনি বলেন, এবারের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে ছয় হাজারের অধিক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করেছেন। থাকবে ৫ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ইজতেমা মাঠের ভেতরে সাদা পোশাকে পর্যাপ্ত পুলিশও দায়িত্ব পালন করবেন। খিত্তায় খিত্তায় পুলিশের সংখ্যা এবার বাড়ানো হয়েছে। যাতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এবং কোন ধরনের জঙ্গী কার্যক্রম চালিয়ে নাশকতা সৃষ্টি করতে না পারে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা যে কোন জঙ্গী কার্যক্রমও প্রতিহত করতে প্রস্তুত রয়েছে বলে তিনি জানান। দ্বিতীয় পর্বেও ইজতেমার চারপাশে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। প্রথম পর্বের ন্যায় দ্বিতীয় পর্বেও বিশ্ব ইজতেমা ময়দানসহ মাঠের আশপাশের এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে।
ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানান, দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায় তাদের একটি কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। যেখানে সার্বক্ষণিক কর্মকর্তাসহ ফায়ারম্যানরা অবস্থান করবেন। ময়দানের প্রতি খিত্তায় ফায়ার এক্সস্টিংগুইসারসহ ফায়ারম্যান, গুদাম ঘর ও বিদেশি মেহমান খানা এলাকায় পানিবাহী গাড়ি, ডুবুরী ইউনিট, ১টি স্ট্যান্ডবাই লাইটিং ইউনিট এবং ৫টি অ্যাম্বুলেন্স থাকবে। সূত্র আরো জানায়, ইজতেমা মাঠের ধুলাবালি নিয়ন্ত্রণে ইজতেমা মাঠের আশেপাশের এলাকায় পানি ছিটানো হচ্ছে। ডেসকো’ কর্তৃপক্ষ জানান, দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমাও এলাকায় সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবরাহের সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। উত্তরা, টঙ্গী সুপার গ্রীড ও টঙ্গী নিউ গ্রীডকে মূল ১৩২ কেভি সোর্স হিসেবে নির্বাচন করা হয়েছে। যে কোন একটি গ্রীড নষ্ট হলেও সামগ্রিক বিদ্যুৎ সরবরাহ বিঘিœত হবে না বলে জানায় ডেসকো কর্তৃপক্ষ। এজতেমা এলাকায় ৪টি ষ্ট্যান্ডবাই জেনারেটর এবং ৫টি ট্রলি-মাউন্টেড ট্রান্সফরমারও সংরক্ষণ করা হয়েছে মুসল্লীদের সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবরাহ করার লক্ষ্যে। প্রতিবছরের ন্যায় এবারও বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে প্রায় শতাধিক দেশের বিদেশী মুসল্লী আসবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
এব্যাপারে টঙ্গীর ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ইতিমধ্যে বিভিন্ন দেশের প্রায় কয়েক হাজার বিদেশী মুসল্লী ঢাকার কাকরাইল মসজিদ, উত্তরা, টঙ্গী ও আশপাশের এলাকার মসজিদে মসজিদে অবস্থান করছেন। তাদের মধ্য থেকে প্রায় সহস্রাধিক বিদেশী মুসল্লী­ ইতিমধ্যে ইজতেমা ময়দানের নির্ধারিত তাঁবুতে অবস্থান নিয়েছেন। দ্বিতীয় পর্বে যেসব জেলার মুসল্লীরা অংশ নিবেন সেগুলো হচ্ছে-ঢাকার একাংশসহ জামালপুর, ফরিদপুর, কুড়িগ্রাম, ঝিনাইদহ, সুনামগঞ্জ, ফেনী, কুমিল্লা, চুয়াডাঙ্গা, রাজশাহী, খুলনা, ঠাকুরগাঁও, পিরোজপুর। উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারী টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হয়ে ১৪জানুয়ারী আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়। মাঝে চারদিন বিরতি দিয়ে আগামীকাল শুক্রবার বাদ ফজর থেকে তাবলীগ জামাতের শীর্ষ মুরুব্বীদের আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হবে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা।



 

Show all comments
  • Habibur Rahman ১৮ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:৫১ পিএম says : 0
    আল্লাহ আপ‌নি সবাই কবুল ক‌রেন , সবাই কে হেফাজত ক‌রেন , যারা দাওয়া‌তের কাজ ক‌রে তা‌দের কে দু‌নিয়া ও আখিরা‌তের সফলতা দান ক‌রেন , আমিন ,
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ