Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

তাসকিনের প্রতি অবিচার করা হয়েছে আইসিসিকে এক হাত নিলেন পাপন

প্রকাশের সময় : ২৬ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা, কোলকাতা থেকে : তাসকিনের জন্য সর্বশেষ চেষ্টা করেছে বিসিবি। ধর্মশালায় নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচে তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ পোষণ করে আইসিসিকে রিপোর্ট, সেই রিপোর্টের প্রেক্ষিতে চেন্নাইয়ের রামাকান্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষার রিপোর্টে তাসকিনের বোলিং আইসিসি নিষিদ্ধ ঘোষণার পর সিদ্ধান্ত পূর্নবিবেচনায় আইসিসি’র জুডিশিয়াল কমিশনের কাছে আপীল পর্যন্ত করেছে বিসিবি। কিন্তু চেন্নাইয়ের পরীক্ষায় পদ্ধতিগত ত্রæটির পরও ওই আপীল পূর্নবিবেচনা করেনি আইসিসি। তাসকিনের প্রতি এই অবিচার নিয়ে বেঙ্গালুরে মুখ খোলেননি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি। তবে তাসকিনকে ছাড়াই অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতের বিপক্ষে দূর্দান্ত পারফরমেন্সে তাসকিন ইস্যুতে খুলেছেন মুখ বিসিবি বস। আইসিসিকে এক হাত নিয়েছেন তিনি। গতকাল কোলকাতার গ্র্যান্ড ওবরয় হোটেলে মিডিয়াকে তাসকিনের প্রতি অবিচারের ফিরিস্তিই তুলে ধরেছেন তিনিÑ ‘তাসকিনের সাথে যা করা হলো, তা ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বপ্রথম। এরকম ঘটনা এর আগে কখনো ঘটেনি। আইসিসির নিয়ম হচ্ছে কোনো বোলার যদি অবৈধ কোনো বল করে কোনো একটা ম্যাচে তাকে সাসপেন্ড করা হয়। কিন্তু একজন বোলার একটা বলও অবৈধ না করে সাসপেন্ড হতে পারে, ক্রিকেট ইতিহাসে এই প্রথম শুনলাম। ম্যাচ রেফারি বলেছে ওর সবগুলো ডেলিভারি সন্দেহজনক। আর ওখানে (চেন্নাইয়ে) গিয়ে ওরা দেখেছে একটা ডেলিভারিও অবৈধ নয়। দুঃখজনক হলেও এই আইন সব সময় আমাদের বেলাতেই প্রযোজ্য হলো।’
মেলবোর্নে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের পক্ষ নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে আম্পায়ারিং করা হয়েছে, মিডিয়াতে এই অভিযোগ তুলেছিলেন আইসিসি’র তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আ.হ.ম মোস্তফা কামাল (লোটাস কামাল) এফসিএ। আইসিসি যে বার বার বাংলাদেশের বিপক্ষে অবিচার করছে, গতকাল তা উল্লেখ করেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপিÑ ‘যদি বাংলাদেশের ক্রিকেটে যদি সবচেয়ে বড় বিপত্তির কথা বলা হয়ে থাকে, তাসকিনের ঘটনা সেটাই। তাসকিন আমাদের প্রধান বোলার। সে এখন আমাদের সবচেয়ে দ্রæদতগতির বোলার। ঘন্টায় ১৪০ কিলোমিটারের এর ওপরে গতিতে সে বল করে। যেখানে ভারতের এই উইকেটে অন্যরা ১২৫ গতিতে বল করতে খুব একটা পারছে না, সেখানে তাসকিনের গতি এতোটা? সর্বশেষ সব ক’টি সিরিজে সে দারুণ বোলিং করেছে। আমরা বিশ্বকাপ খেলেছি, চারটি সিরিজ খেলেছি, এশিয়া কাপ খেলেছি। তখন তার বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কেউ কোনো কথা বলেনি। কিন্তু টি-২০ বিশ্বকাপে তার অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন তোলা হলো। আমরা কিন্তু টি-২০তে ১৫০-১৬০ এর বেশি করতে পারিনি। তবুও বোলিংয়ের কারণেই কিন্তু জিতেছি। সেখানে আমাদের প্রধান দুই বোলার বাদ পড়ে গেছে। যখন আমরা দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠলাম এবং সবচেয়ে কঠিন গ্রæপে খেলছি, তখন এই কাজটি করা হলো। এখানে দুজন প্রধান খেলোয়াড় ছাড়া খেলা খুবই কঠিন। তারপরও অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সাথে ভালো ক্রিকেট খেলেছে বাংলাদেশ।’
তাসকিনের প্রতি যে অবিচার করা হয়েছে, তা প্রমাণে লড়বেন বলে জানিয়েছেন তিনিÑ ‘অমি নিশ্চিত, কাল পরীক্ষায় পাঠালে সে পাস করে আসবে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশতঃ বিশ্বকাপ তো ছেলেটি খেলতে পারলো না। তাহলে আমার লাভটা কি? এখনো প্রমাণ করার সুযোগ আইসিসির আছে। এখনো অনেকগুলো দল আছে, বিশ্বকাপে খেলছে। যে কোনো দলের সেরা দুটি খেলোয়াড়কে বাদ দিয়ে দিক অবৈধ বোলিং অ্যাকশন না করার পরও। বলুক যে তারা বিশ্বকাপ খেলতে পারবে না। ঘটনার আমি আইসিসি সভাপতি, সিইও’র সাথে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলেছি। মুরালিধরনের জন্য আইন তারা বদল করেছে, শোয়েব আখতার নিষিদ্ধ হওয়ার পরও বাউন্সার দিতে পারবে না সেই শর্তে ফিরেছে। আমাদের বেলায় এই সুযোগটা দেয়া হলো না। এটা দুর্ভাগ্যজনক।’
বেঙ্গালুরুতে বাংলাদেশ বোলিং ফিল্ডিং মিলিয়ে কাটিয়েছে ১০৪ মিনিট, সেখানে ১০৬ মিনিট কাটিয়েছে ভারত। তারপরও শ্লো ওভার রেটের অভিযোগে জরিমানা গুণতে হলো বাংলাদেশ দলকে ? বাংলাদেশকে যে বৈরি পরিবেশে খেলতে হচ্ছে ক্রিকেট, আইসিসি’র পরিচালক হয়েও তা বলতে দ্বিধা করেননি পাপনÑ ‘এই জিনিসগুলো যে আমাদের বেলায় হচ্ছে ,তা সবাই জানে। আমাদেরকে এই বৈরি পরিবেশেই খেলতে হবে। আমাদের আর কিছু বলার নেই। আইসিসি যদি ক্রিকেটের উন্নতি চায়, তাহলে তাদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তাসকিনের প্রতি অবিচার করা হয়েছে আইসিসিকে এক হাত নিলেন পাপন
আরও পড়ুন