Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ১ কার্তিক ১৪২৫, ০৫ সফর ১৪৪০ হিজরী

তুরস্কের বিমান হামলা জোরদার

সিরিয়া থেকে চারটি রকেট নিক্ষেপ, যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়ার আলোচনা

ইনকিলাব ডেস্ক: | প্রকাশের সময় : ২২ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দিদের লক্ষ্য করে বিমান হামলা জোরদার করেছে তুরস্ক। গত শনিবার থেকে এ পর্যন্ত ১৫৩টি লক্ষ্যবস্তুতে বিমান হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছে আঙ্কারা। দেশটির সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে গতকাল রোববার এ তথ্য জানিয়েছে। হামলাকৃত জায়গা কুর্দি সেনারা বসবাস এবং অস্ত্র রাখার কাজে ব্যবহার করতো বলেও জানিয়েছে তারা। খবরে বলা হয়, গতকাল রোববার সকালে তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলের কিলিস সীমান্তে সিরিয়া থেকে চারটি রকেট হামলা চালানো হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে সেই হামলায় দু’টি বাড়ি ধ্বংস হলেও কারও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। অন্য দিকে রকেটগুলো সিরিয়ার সেনাবাহিনী না কুর্দি সৈন্যরা ছুড়েছে সেই বিষয়েও বিস্তারিত জানাতে পারেনি তুরস্কের সংবাদ সংস্থা আনাদোলু। তবে এ হামলার পরপরই তুরস্ক সিরিয়ায় আরও বেশি বিমান হামলা চালানো শুরু করেছে। একইসঙ্গে স্থলপথেও অভিযান শুরু করেছে বলেও কোনো কোনো সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে। এদিকে, সিরিয়ার বিদ্যমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছে দুই শক্তিধর দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। শনিবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন এবং রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের মধ্যে এ বিষয়ে ফোনে কথা হয়েছে। রবিবার রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম। সের্গেই ল্যাভরভ এবং রেক্স টিলারসন দুই নেতার আলোচনায় সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠার বিষয়টি প্রাধান্য পায়। জাতিসংঘের পৃষ্ঠপোষকতায় সিরিয়া সংকট উত্তরণ নিয়েও কথা হয় এ দুই ক্ষমতাধর কূটনীতিকের। উঠে আসে রাশিয়ার অবকাশযাপন শহর সোচিতে সিরিয়া ইস্যুতে আসন্ন বৈঠকের বিষয়টিও।সিরিয়ার কুর্দি বিদ্রোহীদের লক্ষ্য করে তুরস্কের স্থল ও বিমান হামলার মধ্যেই দুই নেতার মধ্যে কথা হলো। প্রসঙ্গত, শনিবার তুরস্কের সেনাবাহিনী সিরিয়ার আফরিন অঞ্চলে কুর্দিদের উপর বিমান হামলা শুরু করেছে। তুরস্কের অভিযোগ, তারা তুরস্কের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি। যাদেরকে নিয়ে স¤প্রতি সিরিয়া সীমান্তে প্রায় ৩০ হাজারের এক শক্তিশালী সৈন্য বাহিনী গড়ার কথা জানায় যুক্তরাষ্ট্র। আর এরপরই তাদের উপর হামলা চালানোর সিদ্ধান্তের কথা জানায় তুরস্ক। এই পদক্ষেপের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তুরস্কের উত্তেজনা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। যদিও ২০১২ সাল থেকেই আফরিন অঞ্চল থেকে কুর্দি যোদ্ধাদের তাড়াতে চেষ্টা করছে তুরস্ক। এসব কুর্দি যোদ্ধাদের অনেকেই আইএসবিরোধী যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে সহযোগিতা করেছে। এর আগে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েপ এরদোয়ান সিরীয় শহর মানবিজে হামলারও হুমকি দিয়েছেন। শহরটি আফরিন থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে। মানবিজও কুর্দি অধ্যুষিত এলাকা। অন্যদিকে শহরটি রাশিয়ার বিমান বাহিনীর অধীনে থাকলেও রাশিয়া জানিয়েছে আফরিনের সংঘাতে তারা কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। তবে সিরিয়া হুমকি দিয়েছিল যদি সামরিক অভিযান চালানো হয় তাহলে তুরস্কের যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করা হবে। শনিবার তুরস্কের সেনাবাহিনী সিরিয়ার আফরিন অঞ্চলে কুর্দিদের উপর বিমান হামলা শুরু করেছে। তুরস্কের অভিযোগ, তারা তুরস্কের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি। যাদেরকে নিয়ে স¤প্রতি সিরিয়া সীমান্তে প্রায় ৩০ হাজারের এক শক্তিশালী সৈন্য বাহিনী গড়ার কথা জানায় যুক্তরাষ্ট্র। আর এরপরই তাদের উপর হামলা চালানোর সিদ্ধান্তের কথা জানায় তুরস্ক। অপরদিকে, দিকে সিরিয়ার উত্তর পশ্চিমের আফরিন শহর থেকে রুশ সেনা ও সামরিক সরঞ্জাম প্রত্যাহারের পরপরই সেখানে কুর্দি বিদ্রোহীদের অবস্থানে বিমান হামলা চালিয়েছে তুরস্ক। আঙ্কারার পক্ষ থেকে তাদের এই অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছে অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চ। রয়টার্স, বিবিসি।



 

Show all comments
  • রাশেদ ২২ জানুয়ারি, ২০১৮, ৪:০৬ পিএম says : 0
    কবে যে এই অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে?
    Total Reply(0) Reply
  • কাওসার আহমেদ ২২ জানুয়ারি, ২০১৮, ৪:০৭ পিএম says : 0
    তুরস্ক ইরানসহ সকল মুসলীম বিশ্বের উচিত মধ্যেপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করা।
    Total Reply(0) Reply
  • নিজাম ২২ জানুয়ারি, ২০১৮, ৪:১১ পিএম says : 3
    বিমান হামলায় কী কোন সমাধান আসবে ?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর