Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

সমকামী বিবাহই ইসলামে ধর্মান্তরের কারণ : আর্থার

প্রকাশের সময় : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১০:২০ এএম, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮

ইনকিলাব ডেস্ক : জার্মানির চরম ডানপন্থী ‘অলটারনেটিভ ফর ডয়েচল্যান্ড’ (এএফডি) পার্টির শীর্ষস্থানীয় নেতা আর্থার ওয়াগনার তার ইসলামে ধর্মান্তরের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন। গির্জার সমকামী বিবাহের অনুমোদন তাকে অসন্তুষ্ট করে এবং এটিই তার ধর্মান্তরের অন্যতম প্রধান কারণ বলে জানিয়েছেন। জার্মানির এই দলটি চরম মুসলিম বিদ্বেষী হিসেবে পরিচিত। আর্থার ওয়াগনার জার্মানির পূর্বাঞ্চলীয় ব্রান্ডেনবার্গ শাখার একজন নেতৃস্থানীয় সদস্য ছিলেন। এমন চরম মুসলিম বিদ্বেষী একটি দলের নেতার ইসলামে ধর্মান্তরের ঘটনায় গত সপ্তাহজুড়ে সারা বিশ্বের সংবাদমাধ্যমের শিরোনাম হন তিনি। গত সেপ্টেম্বরের সাধারণ নির্বাচনের আগে দলটির প্রচারাভিযানের শ্লোগান ছিল ‘জার্মানিতে ইসলামের কোনো স্থান নেই’ এবং ‘জার্মানির ইসলামীকরণের বিরুদ্ধে এএফডি’। ধর্মান্তরের পর আর্থার তার দলীয় পদ ত্যাগ করেন। তার ধর্মান্তর ও পদ ছাড়ায় দলের নেতারা অত্যন্ত হতাশা ব্যক্ত করেছিলেন। কিন্তু ওয়াগনার এখন বলছেন যে তিনি দলটিতে থাকতে চান এবং জার্মান মুসলমান এবং মূলধারার সমাজের মধ্যে তিনি সেতুবন্ধন রচনা করতে চান। ৪৮ বছর বয়সী এই রাজনীতিক নিজের নাম পরিবর্তন করে আহমদ রেখেছেন। গত সপ্তাহে তার ধর্মান্তরের ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পর শুরুতে তিনি এর কারণ সম্পকে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি পোটসডামে এক সংবাদ সম্মেলনে নিজের ইসলাম গ্রহণের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন আর্থার ওয়াগনার। আর্থার ওয়াগনার বলেন, আমার ধর্মান্তরের অন্যতম কারণ ছিল সমকামী বিয়েকে এএফডি’র সমর্থন জানানো। বার্লিনে সমকামী অধিকার নিয়ে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রটেস্ট্যান্ট ধর্মযাজকদের অংশ নেয়াও তিনি অসন্তুষ্ট ছিলেন বলে জানান। তিনি বলেন, ‘ওই সমাবেশে শিশুদেরকে আনা হয়েছিল। এটা কোনোভাবে ঠিক হয়নি।’ এর আগে ওয়াগনার একজন ধর্মপ্রাণ খ্রিস্টান ছিলেন এবং তার স্থানীয় প্রোটেস্টান্ট গির্জার একজন সদস্য ছিলেন। রাশিয়ান বংশোদ্ভূত জার্মান নাগরিক ওয়াগনার জানান, তিনি ২০১৫ সালে ইসলামে ধর্মান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। রাশিয়ান শহর ‘উফা’র সফর তাকে ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট করে বলে তিনি জানান। এখানেই রাশিয়ার মুসলিম তাতার সম্প্রদায়ের সদস্যরা বসবাস করেন। দ্য টেলিগ্রাফ।



 

Show all comments
  • নিজাম ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৩:৫৪ এএম says : 4
    আল্লাহ তাকে কবুল করুক।
    Total Reply(0) Reply
  • এস এম শফিউল আলম ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:২১ পিএম says : 0
    ইসলামে ভন্ডামির কোন স্থান নেই
    Total Reply(0) Reply
  • Kabir hossain ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:২১ পিএম says : 1
    ইসলাামের জয় যাত্রা যে অস্র দিয়ে নয় তা আবার প্রমানিত হল।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Musha ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:২২ পিএম says : 0
    ইসলাম চিরসত্য, নোংরামীমুক্ত এবং পবিত্র।
    Total Reply(0) Reply
  • Tariqul Islam ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:২২ পিএম says : 0
    Islam is the way for human rights
    Total Reply(0) Reply
  • Shahid ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৭:৪০ পিএম says : 0
    Islam is best
    Total Reply(0) Reply
  • ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৯:০২ পিএম says : 0
    ইসলাম চিরন্তন সত্য।
    Total Reply(0) Reply
  • জহুরুল ইসলাম ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৯:০৪ পিএম says : 0
    ইসলাম চিরন্তন সত্য।
    Total Reply(0) Reply
  • salekin ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৬:২৯ পিএম says : 0
    It is great sin in Islam.
    Total Reply(0) Reply
  • Aman ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৯:৫৮ পিএম says : 1
    Islam is the best way to solve any problem and Terrorist is enemy of Islam
    Total Reply(0) Reply
  • oyahed ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৩:০১ পিএম says : 0
    Nice
    Total Reply(0) Reply
  • Guljar hossain ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৭:২৪ পিএম says : 1
    অাললাহ তাক‌ে কবুল করুন।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Saidur Rahman ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ২:০৫ পিএম says : 0
    Islam is the best Religion in the world. May Allah accept him as a successful representative of Islam.
    Total Reply(0) Reply
  • mashiur rahman ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৭:৪৪ পিএম says : 0
    He decided to be a muslim in 2015 but why daclared recent? May allah accept him as a good muslim.amin.
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Mannan ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ২:৫৩ পিএম says : 0
    May Allah steady him up to death on Islam.
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Mannan ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৩:০৩ পিএম says : 0
    Greetings
    Total Reply(0) Reply
  • Abid Hossain ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৭:১১ পিএম says : 0
    আল্লাহ তায়ালা যাকে চান হেদায়াত দেন যাকে চান না তাকে হেদায়াত দেন না। সত্যিই আল্লাহ তায়ালার ক্ষমতা অসীম।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।