Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৪ মাঘ ১৪২৮, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া নয় বাংলাদেশ হবে আরও সমৃদ্ধ

সংসদে ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

কথায় কথায় বাংলাদেশকে সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, হংকং বানানোর তুলনাকে হীনমন্যতা বলে মন্তব্য করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশ কেন সিঙ্গাপুর হবে? কেনো বলবো মালয়েশিয়া হবে। আমরা হবো, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ।
গতকাল বৃহস্পতিবার সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নাত্তর পর্বে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য রহিম উল্লাহর সম্পূরক প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে মন্ত্রী এই মন্তব্য করেন। প্রশ্নকারী তার নির্বাচনী এলাকায় কয়েকটি ব্রিজ তৈরির দাবি জানিয়ে বলেন, এগুলো হলে আমরা এলাকায় সিঙ্গাপুর হয়ে যাবে। এমন প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, আমরা সিঙ্গাপুর হবো কেনো। আমরা সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়াকে ফেলে আরো এগিয়ে যেতে চাই। কথায় কথায় সিঙ্গাপুর বানাবো, হংকং বানাবো, মালয়েশিয়া বানাবো এটা এক ধরনের হীনমন্যতা। তিনি বলেন, আমাদের মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৬১০ মার্কিন ডলার, জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭ দশকি ২৮ শতাংশ। আমাদের বৈদেশিক রিজার্ভ ৩৩ ঊর্ধ্ব। পাকিস্তানের রিজার্ভ ২৩ বিলিয়ন ডলার। পাকিস্তান আমাদের অনেক পেছনে। মন্ত্রী বলেন, আমরা আমাদের দেশকে নিয়ে গর্ব করবো। আমরা পৃথিবীর অন্যতম দীর্ঘ পদ্মা সেতু করছি নিজস্ব অর্থায়নে। এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসানির নেতৃত্বের সোনালী ফসল। আমাদের ৩০ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়নের সক্ষমতা আছে। বাংলাদেশ কেন সিঙ্গাপুর হবে? কেনো বলবো মালয়েশিয়া হবে। আমরা বাংলাদেশ হবো, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ। অপর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংসদ সদস্যদের প্রস্তাব আমরা প্রি একনেক বৈঠকে পাঠিয়ে দিয়েছি। আপনারা সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ে ঘুরাঘুরি না করে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে তদবির করেন। সেখানেই তদবিরটা বেশি করেন।
যানজট নিরসনে ঢাকার চারপাশে
সার্কূলার রুটের উন্নয়ন করা হবে
সরকারি দলের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য নুরজাহান বেগমের তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, যানজট নিরসনকল্পে ঢাকা শহরের চারপাশে সার্কূলার রুটের (অংশ-২) উন্নয়ন করা হবে। তিনি বলেন, সার্কুলার রুট (অংশ-২) এর আওতায় তেরমুখ-আব্দুল্লাপুর-ধউর-বিরুলিয়া-গাবতলী-বাবুবাজার-পোস্তগোলা-ফতুল্লা-চাষারা-ডেমরা রুটটি উন্নয়ন করা হবে। প্রস্তাবিত রুটের ধউর পয়েন্ট এবং গাবতলী পয়েন্টে ২টি ফ্লাইওভার নির্মাণ করার পরিকল্পনা সরকারে রয়েছে। এই দুটি ফ্লাইওভারের ফিজিবিলিটি স্ট্যাডি ও ডিটেইল ডিজাইনের কাজ চলমান রয়েছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, গ্রেটার ঢাকা সাসটেইনেবল আরবান ট্রান্সপোর্ট প্রজেক্ট (বিআরটি, গাজীপুর-এয়ারপোর্ট) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ঢাকা (বনানী), জয়দেবপুর মহাসড়েকের এয়ারপোর্ট মোড়ে ৭শ’ মিটার দীর্ঘ একটি এবং জসিমউদ্দিন মোড়ে ৬শ’ মিটার দীর্ঘ আরও একটি ৬ লেন বিশিষ্ট ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে।
‘পুলিশের উপর হামলার মাস্টার মাইন্ড বিএনপি নেতারা’
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আদালত থেকে ফেরার পথে হাইকোর্টের সামনে পুলিশের ওপর হামলার মাস্টার মাইন্ড বিএনপি নেতারা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। হামলাকারীরা অনুপ্রবেশকারী বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন দাবির প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ফুটেজ আছে। এ হামলার ফুটেজ কিন্তু মুছে যায়নি। এ হামলা কিভাবে হয়েছে তা দিবালোকের মতো পরিষ্কার। এটা অনুপ্রবেশ নয়, এটা পূর্বপরিকল্পিত জঙ্গি স্টাইলে হামলা। এ হামলার মাস্টার মাইন্ড হচ্ছে বিএনপির নেতৃত্ব, তারাই এ হামলা করিয়েছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘ওয়েস্টার্ন ব্রিজ ই¤প্রুভমেন্ট প্রকল্পের আওতায় রংপুর জোনের ১৯টি এবং রাজশাহী জোনের ১৬টি ব্রিজের নির্মাণ কাজের চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের কাছে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি এসব কথা বলেন।
সরকার আবারো ক্ষমতায় থাকতে বিএনপি শীর্ষ নেতাদের আটক করছে বিএনপির এ অভিযোগের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সেদিন হাইকোর্টের সামনে যে ধরনের হামলা হয়েছে, তাতে যারা জড়িত তাদের গ্রেফতার না করে কি করব? কারা কারা ওখানে ছিল ভিডিও ফুটেজ দেখে গ্রেফতার করা হয়েছে। এখানে বিএনপিকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য গ্রেফতার হয়নি। এ হামলায় পুলিশকে দোষ দিতে পারবে না, কারণ হামলার উসকানি তারাই দিয়েছে। তারাই ঘটনা সাজিয়েছে এবং প্রকাশ্য ঘটিয়েছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা কি মানুষের জানমাল রক্ষায় এ ধরনের ঘটনায় বিনা বিচারে ঝুঁঁকির মুখে ফেলে দেবো? এ ধরনের ঘটনাকে আসকারা দিলে ভবিষ্যতে আরো ভয়াবহ ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে এবং সেই কারণে সরকার এখানে নীরব দর্শকের ভ‚মিকা পালন করতে পারে না।
৮ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগ কি কোনো কর্মসূচি দেবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের কোনো কর্মসূচির প্রয়োজন নেই। আমাদের পক্ষ থেকে উসকানিমূলক কিছুই হবে না। আমরা সরকারে আছি, দেশের শান্তি-স্থিতি বজায় রাখার দায় আছে। তিনি বলেন, আমরা সতর্ক থাকব। যদি কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা হয়, উসকানিমূলক নাশকতা জাতীয় কিছু করা হয় এবং সহিংতা দেখা যায়, তাহলে জনগণকে সঙ্গে রেখে উদ্ভ‚ত পরিস্থিতির সমুচিত জবাব দেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সমৃদ্ধ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ