Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮, ০২ ভাদ্র ১৪২৫, ০৫ যিলহজ ১৪৩৯ হিজরী‌

একটি গ্যালারীর নামকরণ কি হতে পারে না?

কিং ব্যাক মুন্নার ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১০:৪২ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮

স্পোর্টস রিপোর্টার : দেশের ফুটবলে উজ্জ¦ল এক নক্ষত্রের নাম মোনেম মুন্না। জাতীয় দল, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ব্রাদার্স ইউনিয়ন, ঢাকা আবাহনী ও ঢাকা মোহামেডানের সাবেক এই তরকা ফুটবলারের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী ছিলো গতকাল। এ উপলক্ষ্যে কিং ব্যাক খ্যাত জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়কের জন্মশহর নারায়ণগঞ্জে সোনালী অতীত ক্লাব ও মোনেম মুন্না স্মৃতি সংসদ শোকর‌্যালি ও কবর জিয়ারত মাধ্যমে দিনের কার্যক্রম শুরু করে। পরে বাদ মাগরিব নারায়ণগঞ্জ সোনালী অতীত ক্লাব আয়োজন করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের। এতে সাবেক ও বর্তমান ক্রীড়াবিদ ও সংগঠকরা ছাড়াও মুন্না ভক্তরা উপস্থিত ছিলেন। আগামী শুক্রবার বাদ আসর নারায়ণগঞ্জের বন্দরস্থ মুন্নার নিজ বাসভবন ও মুন্না স্মৃতি সংসদে কোরআন খতম ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।
২০০৫ সালে কিডনির জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশের ফুটবলপ্রেমীদের কাঁদিয়ে মুন্না চলে যান না ফেরার দেশে। এ দেশের ফুটবলে মোনেম মুন্না- চির স্মরণীয় একটি নাম। যে নাম কখনো ভুলবার নয়। প্রজন্মের পর প্রজন্ম যুগে যুগে মনে করবে কিং ব্যাকের নাম। তারপরও কষ্ট থেকেই যায়। জীবতদশায় যে ফুটবল ছিলো মুন্নার ধ্যান-জ্ঞান-সেই ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ভুলেও উচ্চারণ করে না কিংবদন্তী এই ফুটবলারের নাম। এমন কি মুন্নার মৃত্যুবার্ষিকীতে তাকে স্মরণ করার প্রয়োজনও মনে করেনা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। শুধু তাই নয়, মুন্নার পরিবারের সদস্যদেরও কোন খোঁজ-খবর রাখার দায় মনে করেন না বাফুফের দায়িত্বশীল কর্তাব্যাক্তিরা। যা সত্যিই কষ্টদায়ক। ফুটবলপ্রেমীদের দীর্ঘ দিনের দাবী, বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের যে কোন পাশের একটি গ্যালারীর নামকরণ মুন্নার নামে হউক। কিন্তু একযুগেরও বেশী সময় পেরিয়ে গেলেও এই দাবীপূরণে কোনই আগ্রহ দেখায়নি বাফুফে। তবে ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা ব্যক্তিগত উদ্যোগে ২০০৮ সালে মোনেম মুন্নার নামে ধানমন্ডি লেকের উপর নির্মিত একটি সেতুর নামকরণ করেন। মুন্নার পরিবারকে সহায়তা করে যাচ্ছেন তার প্রিয় ক্লাব ঢাকা আবাহনীর কর্তারা। তারা সব সময়ই মুন্নার পরিবারের খোঁজ-খবর নিয়ে থাকেন।
স্বামীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করেছেন সুরভী মোনেম। কাল এই প্রতিবেদকের সঙ্গে মুঠোফোনে আলাপকালে আবেগ আপ্লুত কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘মুন্না নেই। প্রতিটি মূহুর্ত কাটছে খুবই কষ্টে। মনের মধ্যে কষ্ট পুষে রাখতে হচ্ছে। আমি প্রকাশ করতে পারি না। পাছে ছেলেমেয়ে হতাশায় ভেঙ্গে পড়বে- এই ভয়ে।’
তার চলে যাওয়ার তের বছর বাদে সেই পুরনো দাবী আবারো জোরালো হলো আজ। যে মানুষটি নিজের ফুটবল শৈলী দিয়ে গ্যালারি মাতিয়েছেন দিনের পর দিন, তার নামে কী একটি গ্যালারির নামকরণ কতে পারে না?

 

 



 

Show all comments
  • Shourav hossain ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৯:১৯ এএম says : 0
    উনি বোধদয় রাজনীতি করতেন না,তাই!!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ