Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৫ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

সংসদে অর্থমন্ত্রীকে তুলোধোনো

ব্যাংকের ১৫ হাজার ৫০০ কোটি টাকা লুটপাট

| প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ব্যাংক ও আর্থিক খাত ধ্বংসের দাঁড়প্রান্তে। গত কয়েক বছরে ১৫ হাজার ৪০০ কোটি টাকা লুটপাটের মাধ্যমে টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে। আজ অর্থনীতির রক্তক্ষরণ হচ্ছে। অর্থনীতির রক্তক্ষরণের কারণে জাতির রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পানামা পেপার, প্যারাডাইস পেপার কেলেঙ্কারির মাধ্যমে অর্থনীতিকে দুর্বল করা হচ্ছে। অর্থমন্ত্রী বলেছেন ডিসেম্বরে অবসরে যাবেন। ডিসেম্বর পর্যন্ত কেন রক্তক্ষরণ কন্টিনিউ করবেন? আজকে এখনই পদত্যাগ করুন। মানুষকে বাঁচান, জাতিকে বাঁচান, দেশকে বাঁচান। আপনি এখনই অবসরে চলে যান। গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে বাঁচান আমাদের সবাইকে বাঁচান।
গতকাল রোববার জাতীয় সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সমালোচনা করে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু ও কাজী ফিরোজ রশিদ এসব কথা বলেন।
জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেন, পানামা পেপার, প্যারাডাইস প্যাপারে তো কোন রাজনীতিবিদের নাম আসেনি। ভয় কিসের? আজ এখানে যারা ট্রেজারি বেঞ্চে (সরকারি দলের সদস্য) আছেন, আমরা বিরোধী দলে আছি। সুশিল সমাজের অনেকে অনেক কতা বলেন। আজ তো আমাদের নামে কোন অ্যাকাউন্ট বের করেত পারেনি, তাদের নামেই বেরিয়ে এসেছে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যারা টাকা পাচার করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। প্যারাডাইস পেপার ও পানামা পেপারে যাদের নাম এসেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করুন, জাতি আপনাকে সাধুবাদ জানাবে। সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্যে উল্লেখ করে বলেন, অর্থমন্ত্রী বলেছেন অর্থনীতির যে অবস্থা, সরকারি ব্যাংকের যে অবস্থা এর জন্য নাকি সরকার দায়ী? সারকার দায়ী মানে তো সরকার প্রধান দায়ী। সরকার প্রধান তো আপনাকে দায়িত্ব দিয়েছেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের। সেই দায়িত্ব আপনাকেই নিতে হবে। আপনি সেই দায়িত্ব নিয়ে ডিসেম্বরে অবসরে না নিয়ে, এখনই অবসরে চলে যান। অবসরে গিয়ে দেশ জাতিকে মুক্তি দেন।
তিনি বলেন, অর্থ পাচারের মাধ্যমে হাজার হাজার কোটি টাকা চলে গেল। পানামা পেপারে অনেকের নাম আসলো কোন ব্যবস্থা সরকার বা অর্থমন্ত্রী নিলেন না। এসময় তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের উদাহরণ দিয়ে বলেন, পানামা পেপার কেলেঙ্কারির ভিত্তিতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগ করতে হয়েছে। অথচ আমাদের দেশের ২৭ জনের নাম এসেছে কারো বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। কতো হাজার কোটি টাকা পাচার হয়েছে তার কোন হিসাব দেননি। ব্যাংকের মূলধন সংকট নিয়ে বলেন, সরকারি ব্যাংকের মূলধন রিফর্ম করতে ২০ হাজার কোটি টাকা দেবেন। গত বাজেটে বলেছিলেন ২ হাজার কোটি টাকা দেবেন সেটা দিয়েছিলেনও। গত কয়েক বছরে ১৫ হাজার ৪০০ কোটি টাকা দিয়েছেন? এই টাকা কার টাকা, জনগণের টাকা। গৌরি সেনের টাকা না। জনতা ব্যাংক কেলেঙ্কারি নিয়ে বলেন, অর্থমন্ত্রী বলেন এরজন্য চেয়ারম্যান আবুল বারকাত দায়ী। কে দায়ী আমাদের জানার দরকার নেই, আপনি ব্যবস্থা নিয়েছেন? সবগুলো ব্যাংকে এখন রক্তক্ষরণ হচ্ছে। কথা আছে যার হয় যক্ষা তার নাই রক্ষা । অর্থনীতির যক্ষা হয়েছে এর থেকে কোন রক্ষা নেই। শেয়ার বাজার কেলেঙ্কারি নিয়ে কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, শেয়ার বাজার স্মরণকালের সবচেয়ে বড় বিপর্যয় ঘটে গেছে। সূচক নেমে গেছে তলানিতে। প্রতিটি শেয়ার নিম্নমুখী। কি দুর্ভাগ্য এই মুহুর্তে স্টক এক্সেঞ্জ নিয়ে নতুন করে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। এই মুহুর্তে কোন কোম্পানি যদি ২৫ শতাংশ শেয়ার তুলে নেয় তাহলে মহা বিপর্যয় নেমে আসবে। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনি সিকিউরিটি এন্ড এক্সেঞ্জ কমিশনকে নির্দেশ দেন। যেন এভাবে শেয়ার বিক্রি করতে না পারে। এটা হলে দেশের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হয়ে যাবে।



 

Show all comments
  • সুলতান আহমেদ ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১:০৬ এএম says : 0
    এরা দেশের ব্যাংক গুলো ধ্বংস করেই ছাড়বে
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১:০৩ এএম says : 0
    এত কিছু পরেও এই সরকার এবং এই মন্ত্রীরা বড় বড় কথা বলেন।
    Total Reply(0) Reply
  • মিলন ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১:০৩ এএম says : 0
    হে আল্লাহ তুমি এদের হাত থেকে দেশটাকে রক্ষা করো।
    Total Reply(1) Reply
    • milon ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৪:২৩ পিএম says : 1
      kake dekhte badrakhlam?
  • পাবেল ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১:০৪ এএম says : 3
    ব্যাংকের ১৫ হাজার ৫০০ কোটি টাকা লুটপাট.............. এটা তো কিছুই না ------- বাণীতে মহান ব্যক্তি
    Total Reply(0) Reply
  • গনতন্ত্র ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১:৫৩ এএম says : 1
    জনগন বলছেন, ...,,,,,রা সবাইতে দুধে ধুয়া তুলশী পাতা, তাহলে এগুলি বিএনপি নিয়ে যায়নি তো?
    Total Reply(0) Reply
  • Arfin Hassan ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:১৭ পিএম says : 0
    Kono bebosta to niccea na
    Total Reply(0) Reply
  • Monir Hossain ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:১৪ পিএম says : 0
    হায়রে দেশ, যে খানে বসে উন্নায়নের আলচনা হবে সে খানে সরাসরি লুটের কথা নিয়ে চুল ছেরা হচ্ছে।সংসদে বছরে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যায় হয় তার পুরটার দাবিদার সাধারন জনগন।এমন দেশ আমরা কখনও চাইনা।
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক। ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:২৮ পিএম says : 0
    টাকাত আমরা নিয়ে বসে আছি।নেন আর অর্থ সংকট পুরন করেন এবং পাচার করেন।
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Saimon ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ২:১৭ পিএম says : 0
    মুদ্রার উল্টো পিঠ দেখার অপেক্ষায় রইলাম
    Total Reply(0) Reply
  • Bulbul ahamed ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৪:৩৯ পিএম says : 0
    He is ............. minister. He should be ............
    Total Reply(0) Reply
  • Citizen ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১০:২০ পিএম says : 0
    Our country becomes a land of looteras. Peoples' money should not be given to looted banks.
    Total Reply(0) Reply
  • elias ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১০:৩৮ এএম says : 0
    হে আল্লাহ তুমি এদের হাত থেকে দেশটাকে রক্ষা করো।
    Total Reply(0) Reply
  • babul aktar ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১১:০৬ পিএম says : 0
    Our economy is damage in varies reason. Among 20 years this crisis would not come.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর