Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ জুন ২০১৮, ৭ আষাঢ় ১৪২৫, ৬ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী

রায়ের কপি আইনজীবীদের হাতে দ্রুত জামিন আবেদন

নাশতা নিয়ে কারাফটকে খালেদা জিয়ার অনুসারীরা

| প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা : রায় ঘোষণার ১২ দিন পর জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের সার্টিফায়েড কপি হাতে পেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। রায়ের কপি হাতে পাওয়ার পর বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জানান, আজ মঙ্গলবার উচ্চ আদালতে জামিনের আবেদন করা হবে। এ মামলায় খালেদা জিয়াকে ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদন্ড দেন বিচারক। ওই দিন থেকেই রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া। অন্যদিকে বেগম খালেদা জিয়ার জন্য গতকাল সকালের নাস্তা নিয়ে গিয়েছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের অনুসারী নেতাকর্মীরা। তবে তাদের সেসব নাস্তা ভেতরে নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়নি।
আদালতের পেশকার মোকাররম হোসেন জানান, গতকাল সোমবার বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটে বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া, জাকির হোসেন ভূঁইয়া, জিয়াউদ্দিন জিয়া ও এম হেলাল উদ্দিন হেলালের হাতে ১১৬৮ পৃষ্ঠার এ রায়ের সার্টিফায়েড কপি দেয়ংা হয়েছে। ১১৬৮ পৃষ্ঠার এ রায়ের সার্টিফায়েড কপির সঙ্গে, আদেশ যোগ হয়েছে আরও ৬ পৃষ্ঠা।
আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ও জাকির হোসেন ভূঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার রায়ের সার্টিফায়েড কপি আমরা হাতে পেয়েছি। মঙ্গলবার উচ্চ আদালতে বেগম খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে আবেদন করবো। আপিলের পর যদি বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে কাস্টডি অ্যারেস্ট অথবা প্রোডাকশন অ্যারেস্ট দেয়া হয় তখন সেগুলো প্রত্যাহার করার জন্যও আবেদন করব আমরা। তবে কারা কর্তৃপক্ষ আমাদের জানিয়েছে যে, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধ এখন পযন্ত— কাস্টডি ওয়ারেন্ট বা প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট কিছুই নেই। এমন কোন ওয়ারেন্ট এখন পর্যন্ত তাদের কাছে আসেনি বলেও তারা জানায়।গতকাল সোমবার বিকেলে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতের বিচারক ডা. মো. আখতারুজ্জামানের আদালত থেকে এই কপি দেয়া হয়। গত ১২ ফেব্রুয়ারি ৬৩২ পৃষ্ঠা রায়ের সার্টিফায়েড কপির জন্য তিন হাজার পৃষ্ঠার কার্টিজ পেপার আদালতে জমা দেন খালেদা জিয়ার আরেক আইনজীবী সৈয়দ জয়নুল আবেদীন মেজবাহ। রায় মোট ৬৩২ পৃষ্ঠার। এটি অনুলিপির (সার্টিফায়েড কপি) পর দলিলের (কার্টিজ পেপার) কাগজে প্রিন্ট হয়ে পৃষ্ঠার সংখ্যা হয়েছে ১১৬৮।
অন্যদিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট নিপুর রায় চৌধুরীর নেতৃত্বে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় কয়েকজন নেতাকর্মী একটি ভ্যানে ডালা সাজিয়ে নাস্তা নিয়ে আসেন। এরমধ্যে বেশিরভাগই ছিল বিভিন্ন ফলমূল। কারাফটকে নিপুর রায় চৌধুরী জানান, বেগম খালেদা জিয়ার পছন্দের ফলমূলসহ নাস্তা নিয়ে এসেছেন তারা। ভেতরে পাঠানোর জন্য যোগাযোগ করেছেন। তবে বেলা ১২টার দিকে জানা যায়, কারা অধিদফতরে অনুমতির জন্য আবেদন করলেও কোনো সাড়া মেলেনি। সোয়া ১২টার দিকেও কারাফটকে অবস্থান করছিলেন ওই নেতাকর্মীরা। গতকাল বেলা ১২টায় খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে আসেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়া, শিরিন সুলতানা, বিলকিস ইসলাম, ড. দেলোয়ারা হোসেন, রোকসানা খানম মিতুন, লায়লা বেগম, নুর জাহান ইয়াসমিন, আয়েশা সিদ্দিকা, ফরিদা ইয়াসমিন, মিতু চৌধুরী ও হোসনে আরা খানম লিজা। দলীয় প্রধানের অনুমতি পেতে তারাও কারা অধিদফতরে যোগাযোগ করে সাড়া পাননি। দীর্ঘ সময় অবস্থানের পর তারা ফিরে যান। উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। গত ৮ ফের্রুয়ারি রায়ের পর বেগম খালেদা জিয়াকে পুরানত কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়।

 

Show all comments
  • ইউসুফ আলী ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৬:০৯ এএম says : 0
    আইনী প্রক্রিয়াগুলো দ্রুত হওয়া দরকার।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
fifa-worldcup-2018