Inqilab Logo

বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

রেললাইন সংলগ্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

নরসিংদীতে এডিবির প্রেসিডেন্ট আসবেন বলে- রেললাইন সংলগ্ন অবৈধ স্থাপনা লোক দেখানো ভাঙচুর করেছে রেলওয়ে দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তারা

| প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

নরসিংদী থেকে সরকার আদম আলী: অবশেষে বহুল আলোচিত নরসিংদী রেলস্টেশনের পশ্চিম সংলগ্ন দু’টি অবৈধ মার্কেটের আংশিক ভেঙে দেয়া হয়েছে। গত রোববার সকালে নরসিংদী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহাদাত হোসেনের নেতৃত্বে রেলওয়ে এস্টেট বিভাগের কর্মকর্তারা এ মার্কেট দুটির আংশিক ভাঙচুর করে। তবে এই ভাঙচুর স্থায়ী উচ্ছেদ বা উচ্ছেদ প্রক্রিয়ার অংশ নয়। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) প্রেসিডেন্ট তাকিহিক নাকাও’র নরসিংদী সফর উপলক্ষে মার্কেট দুটির অংশ বিশেষ ভাঙচুর করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট নরসিংদী সফর শেষে ফিরে গেলে পুনরায় তারা এই মার্কেট নির্মাণ করার সুযোগ পাবে বলে এস্টেট বিভাগের কর্মকর্তারা মার্কেটের মালিকদেরকে আশ্বাস দিয়েছেন।
জানা গেছে, বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলীয় জোনের নরসিংদী জেলায় ১০টি রেলস্টেশন রয়েছে। এসব স্টেশনসমূহ ও রেললাইনের আশেপাশে রয়েছে রেলওয়ের শত শত বিঘা ভ‚-সম্পত্তি। এর মধ্যে রেললাইন সংলগ্ন ব্যাপক এলাকায় ছিল রেলওয়ের বড় বড় গভীর জলাশয়। অবৈধ দখলদাররা এসব জলাধার দখল করে রেলওয়ে, পরিবেশ অধিদফতর ও জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই বালু ও মাটি ভরাট করে সেগুলোতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে। এর মধ্যে রেললাইনের মাত্র তিন-চার ফুট এলাকার মধ্যে নির্মিত দুটি মার্কেট ছিল অতিশয় দৃষ্টিকটু। এই মার্কেট দুটির পাশ দিয়ে যাতায়াতকারী সাধারণ মানুষকে প্রায়ই মার্কেট দুটি সম্পর্কে সমালোচনা করতে শোনা যায়। এ ব্যাপারে নরসিংদী সাংবাদিকরা রেলওয়ের জলাশয় দখল, মাটি বা বালু ভরাট ও বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করার সময় দৈনিক ইনকিলাবসহ বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় অবৈধ দখলের সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এরপর রেলওয়ে এস্টেট বিভাগের সংশ্লিষ্ট কয়েকজন কর্মকর্তা নরসিংদী সফর করেন। কিন্তু অবৈধ মার্কেটের মালিকরা তাদের সাথে দেখা করলে মার্কেট না ভেঙেই রহস্যজনক কারণে তারা নরসিংদী থেকে চলে যায়। এরপরও কয়েকবার অবৈধ মার্কেটের ছবি দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ট্রেন চলাচল সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশিত হয় পত্রপত্রিকায়। এরপরও রেলওয়ে এস্টেট বিভাগের কর্মকর্তারা এসব অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে কোনো আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। অতি সম্প্রতি রেলওয়ের উন্নয়ন কাজের দাতা সংস্থা এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট তাকিহিক নাকাও নরসিংদী ও ভৈরব সফরের কর্মসূচি ঘোষণা করলে রেলওয়ে এস্টেট বিভাগের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা অবৈধ স্থাপনা তুলে নেয়ার জন্য মাইকযোগে নির্দেশ দেয়। কিন্তু অবৈধ মালিকরা দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের দেয়া ঘুষের টাকা ফেরত দেওয়ার দাবি জানালে কর্মকর্তা এই মর্মে আশ্বাস দেয় যে, প্রেসিডেন্ট চলে গেলে তারা পুনরায় মার্কেট নির্মাণ করার সুযোগ পাবে। এরপরও অবৈধ মালিকরা তাদের স্থাপনা তুলে না নেয়ায় গতকাল রোববার নরসিংদী জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে মার্কেট দুটির আংশিক ভেঙে ফেলে রেখে চলে যায়। তাদেরকে স্থায়ীভাবে উচ্ছেদ করেনি। এ অবস্থায় গভর্নরের আগমনকে কেন্দ্র করে এসব দরজা ভেঙে নতুন করে পাল্টানো হচ্ছে। মাত্র বছরাধিককালেই টিনশেডটির লোহায় মরিচা ধরতে শুরু করে। প্রেসিডেন্টের আগমন উপলক্ষে এখন এই টিনশেডটিতে বর্তমানে নতুন করে রেডঅক্সাইড মারতে শুরু করেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রেললাইন

২ ডিসেম্বর, ২০২১
৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
১৮ নভেম্বর, ২০২০
২৩ অক্টোবর, ২০২০
৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ