Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

সীমান্তে মিয়ানমার বাহিনীর অস্ত্রসমাবেশ ও গুলি বর্ষণে উত্তেজনা

বিজিবির সতর্ক অবস্থান, সাড়া নেই পতাকা বৈঠকে

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২ মার্চ, ২০১৮, ২:২৭ পিএম | আপডেট : ৫:২৫ পিএম, ২ মার্চ, ২০১৮

বাংলাদেশ-মিয়ানমার তুমব্রু সীমান্তের জিরো পয়েন্টে ঢুকে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হামলা ও ফাঁকা গুলিবর্ষণ এর ঘটনায় আবারো উত্তেজনা দেখা দিয়েছে সীমান্ত এলাকায়।
তবে এতে হতাহতের কোনো ঘটনা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ঘটনায় সীমান্তে উত্তেজনা বেড়েছে। সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের সীমান্তবাহিনী বিজিবির সদস্যরা।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে, বান্দরবানের তুমব্রু সীমান্তের নোম্যান্স ল্যান্ডে রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পে বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) রাতে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী হামলার চেষ্টা করে। এসময় মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে প্রতিরোধ করে ক্যাম্পে অবস্থানরত রোহিঙ্গারা। হামলার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে নোম্যান্স ল্যান্ডে রোহিঙ্গাদের উপর মিয়ানমার সেনাবাহিনী ফাঁকা গুলি ছুড়ে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) সকাল থেকেই ওই সীমান্তে ভারি অস্ত্রসহ সেনা মোতায়েন করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে পতাকা বৈঠকের আমন্ত্রণ জানানো হলেও তারা তাতে সাড়া দেয়নি। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদর দফতর থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।
এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে নোম্যান্সল্যান্ডে আশ্রয় নেয়া সাড়ে ছয় হাজার রোহিঙ্গা আতঙ্কিত হয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে।এরই মধ্যে এই হামলার চেষ্টা চালানো হলো।

এছাড়া, বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের ওপারে অতিরিক্ত সেনা সমাবেশ করায় গতকাল মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ।
বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) সন্ধ্যায় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিবাদপত্র হস্তান্তর করা হয়েছে। এরই মধ্যে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।
এছাড়াও রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন ঠেকাতে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের এই অপ কৌশল বলেও মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন