Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে প্রধান আগুন নিয়ে খেলবেন না

প্রকাশের সময় : ৩১ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম


চল্লিশ হাজার হজযাত্রীর প্রাক-নিবন্ধন সম্ভব হয়নি
কোটা বৃদ্ধির জন্য প্রধানমন্ত্রী’র হস্তক্ষেপ কামনা
শামসুল ইসলাম : চল্লিশ হাজার হজযাত্রী’র প্রাক-নিবন্ধন করা সম্ভব হয়নি। হঠাৎ প্রাক-নিবন্ধনের সার্ভার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এসব হজযাত্রী নিয়ে হজ এজেন্সি’র মালিকরা বিপাকে পড়েছেন। বেসরকারী হজ ব্যবস্থাপনায় চরম বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছে। নিবন্ধন বঞ্চিত হজযাত্রীরা দফায় দাফয় সংশ্লিষ্ট হজ অফিস ও হাব অফিসে ধরর্ণা দিয়েও কোনো সুরাহা পাচ্ছে না। নিবন্ধন বঞ্চিত এসব হজযাত্রীর হজে যাওয়ার সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে হাব কর্তৃপক্ষ সউদী সরকারের কাছ থেকে অতিরিক্ত ৪০ হাজার কোটা বরাদ্দে লাভের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
হাব নেতৃবৃন্দ গতকাল বুধবার হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন সংক্রান্ত উদ্ভূত সংকট নিয়ে আলোচনা করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতের জন্য সময় চেয়ে লিখিত আবেন জানিয়েছেন। বেসরকারী হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনের লক্ষ্যে আজ বৃহস্পতিবার বেলা ২টায় ধর্ম মন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান তার দপ্তরে জরুরী সভা ডেকেছেন। এতে হাব সভাপতি ইব্রাহিম বাহার ও মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহও উপস্থিত থাকবেন। যারা সরকার নির্ধারিত সর্বনি¤œ হজ প্যাকেজের কমে হজযাত্রী সংগ্রহ করে প্রাক-নিবন্ধন সম্পন্ন করেছে তাদের হজের পুরো টাকা জমা দেয়ার বিষয়টি আজকের সভায় গুরুত্ব পাবে বলে জানা গেছে। নিবন্ধন বঞ্চিত হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন কাজ সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ভুক্তভোগি হজ এজেন্সির মালিকরা অনতিবিলম্বে সরকারী বিধি মোতাবেক সার্ভার চালুর করার জোর দাবী জানিয়েছেন। সরকার প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রম শুরুর আগের দিন এক নোটিশে সকলকে অবহিত করেছে সউদী সরকারের সাথে চুক্তি অনুযায়ী যাদের ১৫০জন হজযাত্রী আছে শুধু তারাই যাতে হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রমে অংশ নেয়। কিন্ত সউদী সরকার ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এই নিদের্শনা অনেক হজ এজেন্সিই আমলে না নিয়ে দেড়শ’ হজযাত্রীর কম কেউ কেউ ৫০জন, ৪০জন এবং ১২০জন হজযাত্রীর প্রাক-নিবন্ধন সম্পন্ন করেছে। এতে প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রমে বিশৃংঙ্খলা দেখা দিয়েছে। হাজারী ট্রাভেলস-এর স্বত্বাধিকারী নজরুল ইসলাম এ অভিমত ব্যক্ত করেছেন। তিনি নিবন্ধন বঞ্চিত হজযাত্রীদের নিবন্ধনের সুযোগ দেয়ার জন্য দ্রুত সার্ভার চালুর অনুরোধ জানান।
জাতীয় হজ নীতি অনুযায়ী আগামী ৩০ মে পর্যন্ত হজযাত্রীদের ডাটা এন্ট্রি করার বিধান থাকলেও বেসরকারী হজযাত্রী কোটা পূরণ হয়ে যাওয়ায় গত ২৮ মার্চ দুপুরে হঠাৎ প্রাক-নিবন্ধনের সার্ভার বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এতে অধিকাংশ হজ এজেন্সি তার মোট হজযাত্রীর আংশিক প্রাক-নিবন্ধন কাজ সম্পন্ন করতে পেরেছে। বাকি হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন সম্পন্ন করতে না পেরেনি এজেন্সি’র মালিকরা। এনিয়ে হজযাত্রীরা এজেন্সিগুলোর উপর চরমভাবে ক্ষুদ্ধ। নিবন্ধন বঞ্চিত হজযাত্রীরা সংশ্লিষ্ট হজ অফিসে গিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপর চড়াও হচ্ছে। অনেক হজ এজেন্সির মালিক হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন করতে না পেরে মোবাইল বন্ধ করে অফিস ছেড়ে গা-ঢাকা দিয়েছে। কোনো কোনো হজ এজেন্সি ঐ দিন হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধনের ভাউচার পেলেও ব্যাংকে  টাকা জমা করার সময় হঠাৎ সার্ভার বন্ধ হয়ে গেছে। এতে অনেক পরিবারের অপ্রাপ্ত বয়স্কের ডাটা এন্ট্রি হয়েছে। আবার কারো কারো মহিলা হজযাত্রীর মাহরামের ডাটা এন্ট্রি করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া অনেক হজ এজেন্সি সউদী সরকার ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের আইনকে উপেক্ষা করে ১৫০ এর কোটার কমে নিবন্ধন করেছে। এনআইডি থেকে কোনো কোনো মহিলা হজযাত্রীর তথ্যে সঠিক এসেছে এবং তার স্বামীর তথ্যে ইন-ভেলিড এসেছে। এ জন্য কারো কারো মহিলা হজযাত্রীর মাহরাম-এর নিবন্ধন করা সম্ভব হয়নি। সার্ভার বন্ধের আগে অনেক হজ এজেন্সির হজযাত্রী প্রাক-নিবন্ধনের জন্য ট্র্যাকিং আইডি প্রাপ্ত হয়েছে। এসব ট্র্যাকিং আইডি প্রাপ্ত হজযাত্রীদের আগামী ৩/৪ এপ্রিলের মধ্যে  প্রাক-নিবন্ধনের অর্থ (মুয়াল্লেম ফি) ব্যাংকে জমা দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট হজযাত্রীর মোবাইলে সার্ভার থেকে ম্যাসেজ দেয়া হচ্ছে। এজেন্সির মালিকরা এসব হজযাত্রীর ট্র্যাকিং আইডি নিয়ে টাকা জমা দেয়ার জন্য ব্যাংকে গেলে সার্ভার বন্ধের কারণে টাকা জমা নেয়া হচ্ছে না। এ নিয়ে হজযাত্রীরা চরম হতায় ভুগছেন। হাব সভাপতি মোহাম্মদ ইব্রাহিম বাহার গতকাল ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান ও ধর্ম সচিব আব্দুল জলিলের কাছে সকল ট্র্যাকিং আইডি প্রাপ্ত হজযাত্রীদের অনুকূলে প্রাক-নিবন্ধন-এর নির্ধারিত ফি ব্যাংকে জমা নেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানিয়েছেন।
এদিকে, ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে চলতি বছর ওমরাহ এজেন্সিগুলোর কোটা সর্বচ্চো ৫শ’ নির্ধারণ করায় অনেক ওমরাহ এজেন্সির কোটা পূরণ হয়ে গেছে। ফলে ওমরাহ যাত্রীদের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন ওমরাহ এজেন্সি ওমরাহ কোটা বাড়ানোর জন্য ধর্মমন্ত্রী ও সচিবের কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছে। গত ২৯ ও ৩০ মার্চ ধর্ম মন্ত্রণালয় বৈধ ওমরাহ এজেন্সি’র চর্তুথ ও পঞ্চম তালিকা প্রকাশ করেছে।
বৈধ ওমরাহ এজেন্সিগুলো হচ্ছে Ñ এয়ার ট্রিপ ইন্টারন্যাশনাল লিঃ, আল-মানসুর এয়ার সার্ভিস, চ্যালেঞ্জার ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস লিমিটেড, ডাইনেষ্টি ট্রাভেলস লিঃ, লাব্বায়িক ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, বলাকা ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, এহসান এয়ার ট্রাভেলস, ইমা ওভারসীজ ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলস লিঃ, ভারসেটাইল ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস লিঃ, আলফা ট্রাভেলস ইন্টারন্যাশনাল, মৌরি এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, হাসনাইন ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, আমিরা ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, ভেক্সট্রেড লিমিটেড, হালদা ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, কেয়া এন্টারপ্রাইজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, আল-নাসের এভিয়েশন সার্ভিসেস, কেএনসি ট্রাভেলস কোম্পানী, মীক্বাত এয়ার ইন্টারন্যাশনাল,রাইয়ান ট্রাভেলস ইন্টারন্যাশনাল, সাঈদ এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, সন্দ্বীপ ওভারসীজ, শাহ আমানত হক কাফেলা ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, খাদেম এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, এ্যাসুরেন্স এয়ার সার্ভিস, মা-আরেজ ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল, নূর-ই-মদিনা ট্রাভেলস, মাকামে ইব্রাহিম ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস,  আমানত এভিয়েশন সার্ভিসেস লিঃ, আশুক ট্রাভেলস, সফুরা এয়ার সার্ভিসেস, ও রাহাত ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস।





স্টাফ রিপোর্টার  : ২০ দলীয় জোট নেতা জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বিএনপি’র চেয়ারপার্সন ও ২০ দলীয় জোটের সর্বাধিনায়ক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাজারীকে ষড়যন্ত্রমূলক নির্দয় তামাশা বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক অবস্থান ইতিহাস এবং ঐতিহ্য শেখ হাসিনার অজানা থাকার কথা নয়। তারপরেও বেগম জিয়াকে অত্যন্ত অশোভন ও অরাজনৈতিকভাবে বার বার আঘাত আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ অঞ্চলে কোন সম্মানীত নেতা-নেত্রীর প্রতি এ ধরনের অসভ্য আচরণ নজিরবিহীন। বাংলাদেশকে পড়শী দেশের করত রাজ্যে পরিণত করতে এ হচ্ছে কাশিমবাজার কুটির নব্য ষড়যন্ত্র। দেশবাসি হুঁশিয়ার থাকবেন। আগুন নিয়ে খেলার চেষ্টা করবেন না। অভিলম্বে গ্রেফতারি পরোয়ারা প্রত্যাহার করে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বন্ধ করুন। অন্যথায় নির্মম পরিণতির দায় জালিম শাহীকে বহন করতে হবে। গতকাল এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, মানুষ জানে কিভাবে দিল্লীর তাঁবেদারদের শাস্তি দিতে হয়।
ছাত্র সমাবেশ
দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার প্রতিবাদে জাগপা ছাত্রলীগ আজ সকাল ১০.৩০ মিঃ (পুরানা পল্টনস্থ) ফটোজার্নালিস্ট মিলনায়তনে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করবে।






ঢাকা-চট্টগ্রাম ২২৫ কিলোমিটার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে হবে -ওবায়দুল কাদের
চট্টগ্রাম ব্যুরো : সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম ২২৫ কিলোমিটার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে হবে। ৭০ হাজার কোটি টাকার এ প্রকল্পের ডিটেইল ডিজাইন তৈরির কাজ চলছে। ২০১৮ সালের দিকে নির্মাণ কাজ শুরু হবে। এটি হয়ে গেলে দুই-আড়াই ঘণ্টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম আসা-যাওয়া করা সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, আগে ৩০ ভাগ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে তৈরির কথা থাকলেও প্রধানমন্ত্রী পুরোটাই এক্সপ্রেসওয়ে করার নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি গতকাল (বুধবার) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব মিলনায়তনে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন-সিইউজের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, কর্ণফুলী টানেলের কাজ শুরু করতে আর অসুবিধা নেই। দু’য়েক দিনের মধ্যে চীনের এক্সিম ব্যাংকের সঙ্গে চুক্তি সই হবে। মিরসরাই থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত আরেকটি মেরিন ড্রাইভ সড়ক নির্মাণের কাজ শুরু হচ্ছে। সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। প্রকল্পে বিদেশী সাহায্যের প্রতিশ্রুতি পাওয়া গেছে। কক্সবাজার থেকে টেকনাফের প্রথম মেরিন ড্রাইভের ৮২ কিলোমিটারের মধ্যে ৫৮ কিলোমিটারের কাজ শেষ হয়েছে। আলীকদম-খানচিতে ৩ হাজার মিটার উপর দিয়ে সড়ক তৈরি হবে। ভবিষ্যতে যানজট কমাতে চট্টগ্রামে সরকারের মেট্রোরেল নির্মাণের চিন্তা-ভাবনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।  
ছাত্রলীগের সংঘর্ষে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ’র ছাত্র সোহেল আহমেদ হত্যাকা-ে জড়িতদের শাস্তি পেতেই হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে খোঁজ-খবর রাখছেন। ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিসেবে এ ঘটনায় আমি লজ্জিত এবং দুঃখিত। সম্মেলন উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে গুণীজন হিসেবে এবং সিনিয়র সাংবাদিক হেলাল উদ্দিন চৌধুরী ও মুক্তিযোদ্ধা-সাংবাদিক নাসিরুদ্দিন চৌধুরীকে কৃতী সাংবাদিক সংবর্ধনা দেয়া হয়।
সিইউজে সভাপতি কবি এজাজ ইউসুফীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব ওমর ফারুক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, বিএফইউজের সহ-সভাপতি শহীদ উল আলম, সাবেক মহাসচিব আবদুল জলিল ভূঁইয়া, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শাবান মাহমুদ, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ার, সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সিইউজে সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে প্রধান আগুন নিয়ে খেলবেন না
আরও পড়ুন