Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫, ১১ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের কণ্ঠস্বর মাহমুদ দারভিশ

বি দে শি ক বি তা

ভাষান্তর : মী ম মি জা ন | প্রকাশের সময় : ৯ মার্চ, ২০১৮, ১২:০০ এএম

সারাবিশ্বের নিপীড়িত মানুষের কণ্ঠস্বর, খ্যাতনামা কবি, বিপ্লবের প্রতীক মাহমদু দারবিশ ২০০৮ সালের ১০ আগস্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের হসটনে মোমোরিয়াল হারমেন হসপিটাল ৬৭ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। রামাল­াহর প্যালেস অব কালচারের সন্নিকটে এক পাহাড়ি পরিবেশে ‹প্রিন্স অব প্যালেস্টাইন›খ্যাত মাহমুদ দারভিশ›কে দাফন করা হয়। মাহমুদ দারভিশ’র অনেক কবিতার ভাষান্তরের সাথে বাংলাভাষী পাঠক পরিচিত হয়েছেন। তার মাতৃভূমি ও প্রেমনিয়ে চমৎকার দু›টি কবিতার ভাষান্তর করেছি। উক্ত কবিতা দু›টি এবং উপর্যুক্ত তথ্যাবলী ‘দ্য গার্ডিয়ান’ এবং ‘পোয়েম হান্টার’ থেকে সংগৃহীত।

১.
আমাদের মাতৃভূমির প্রতি
মূলঃ মাহমুদ দারভিশ
ইংরেজিঃ ফাদি জৌদাহ
আমাদের মাতৃভূমির প্রতি,
আর এটি প্রভূর কথার নিকটের একটি,
মেঘপুঞ্জের ছাদ

আমাদের মাতৃভূমির প্রতি,
এটা বিশেষণথেকে বিশেষ্যের অন্ত এমন একটি
অনুপস্থিতির মানচিত্র
আমাদের মাতৃভূমির প্রতি,
আর এটি সুক্ষ্ন তিল বীজের মতই সুক্ষ্ন একটি,
একটি নৈস্বর্গিক দিগন্ত...আর একটি লুকায়িত ফাটল
আমাদের মাতৃভূমির প্রতি,
আর এটি এমনই নিঃস্ব যেন বুনো হাঁসের ডানা,
পবিত্র বই...আর একটি আহত পরিচিতি
আমাদের মাতৃভূমির প্রতি,
আর এটি এমনই একটি যা বিদীর্ণ পাহাড়দ্বারা বেষ্টিত
আমাদের মাতৃভূমির প্রতি, আর এটি একটি যুদ্ধের পুরস্কার
আকাঙ্ক্ষা ও দহনের থেকে মৃত্যুর স্বাধীনতা
আর আমাদের মাতৃভূমি, এটার রক্তময় রাতে,
একটি জহরত যেটি সেই দূরবর্তীগুলোর থেকেও উজ্জ্বল
আর এটি প্রজ্জ্বল করে যা তার বাহিরে আছে...
যেমনটি আমাদের জন্য, অভ্যন্তরে,
আমরা আরো হাঁশফাঁশ করছি!

[আমাদের মাতৃভূমির প্রতি, মাহমুদ দারভিশ’র ‘ঞযব ইঁঃঃবৎভষরবং’ ইঁৎফবহ’ গ্রন্থের ‘ঞড় ঙঁৎ খধহফ’ কবিতার রূপান্তর]

২.
অধিকও নই, কমও নই!
মূলঃ মাহমুদ দারভিশ
ইংরেজিঃ ফাদি জৌদাহ
আমি একজন ললনা। অধিকও নই, কমও নই!
আমি আমার জীবনকে তার মতই বাঁচাই
সুতার পরে সুতা
আর আমি পরার জন্য আমার উলকে ঘুরাই,
না হোমারের গল্পকে শেষ করার জন্য নয়,
না তার দীপ্তিকেও নয়।
আর আমি দেখি, যেটিকে তার মতো দেখি তার গরনে
যদিও আমি প্রত্যেকবার স্থীরদৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকি
তার ছায়ার দিকে
পরাজয়ের স্পন্দন অনুভব করার জন্য,
আর আমি আগামীকাল লিখব
গতকালকের পাতাসমূহঃ সেখানে কোনো শব্দ নেই প্রতিধ্বনি ছাড়া।
আমি পছন্দ করি নিশাচরের বাক্যের প্রয়োজনীয় অস্পষ্টতা
পাখির অনুপস্থিতিতে
বাক্যের ঢলের উপরে
ও গ্রামগলির ছাদের উপরে
আমি একজন ললনা। অধিকও নই, কমও নই!
কাজুবাদামের কলি আমার সীমানায় উড্ডয়ন পাঠিয়েছে
আমার অলিন্দ হতে,
সেই দূরবর্তী পথ যা তার আকাঙ্ক্ষায় বলছেঃ
“আমায় স্পর্শ করো! আর আমি আমার অশ্বগুলো সলিল বসন্তে নিয়ে আসব।”
আমি রোদন করি কোনো স্পষ্ট কারণের জন্য নয়,
আর আমি তোমাকে ভালোবাসি তোমার মতই,
ভাররক্ষকের মতো নয়
না বৃথায় নয়
আর আমার স্কন্দ হতে একটি সকাল উদিত হবে তোমার জন্য
আর তোমাতে পতিত হবে, যখন আমি তোমাকে আলিঙ্গন করবো এক রাতে।

কিন্তু আমি কেউ নই, কেউই নয়,
আমি ভানুও নই শশীও নই

আমি একজন ললনা। অধিকও নই, কমও নই!
তাই কামনার চুম্বন হও, যদি চাও।
আর আমার জন্য, আমি সেরকম ভালোবাসতে পছন্দ করি
যেমনটি, আমি কোনো রঙ্গীন ছবি নই একটি কাগজে,
অথবা এমন একটি ধারনা
যার দ্বারা স্তুপের মধ্যে একটি কাব্য রচনা করা হয়েছে...

শয়নকক্ষ হতে আমি শুনেছি দূরের লায়লার চিৎকারঃ
একটি উপজাতীয় রাতের ছড়ার জেলাধ্যক্ষের কাছে আমাকে ছেড়ে যেও না
আমাকে তাদের কাছে খবরের ন্যায় রেখে যেও না...

আমি একজন ললনা। অধিকও নই, কমও নই!

আমি সেই যে আমি,
যেমনটি তুমি যেরকম তুমিঃ
তুমি আমাতে বাসকরো আর আমি তোমাতে বাসকরি, তোমাতে আর তোমার জন্য

আমি ভালোবাসি আমাদের পারস্পরিক ধাঁধাঁর নির্মলতার প্রয়োজনীয়তা
আমি তোমারই যখন আমি নিশিকে উম্মত্ত করি
কিন্তু আমি কোনো ভূমি নই
অথবা কোনো বিহার

আমি একজন ললনা। অধিকও নই, কমও নই!

আর আমি টায়রা পরি
শশীর স্ত্রীসুলভ ঘূর্ণায়ন থেকে
আর আমার গিটার অসুস্থ্য হয়ে পড়ে
তার
থেকে তারে

আমি একজন ললনা,
অধিকও নই
কমও নই!

[‘অধিকও নই, কমও নই!’ মাহমুদ দারভিশ’র ‘‘The Butterfly’s Burden’ ’ গ্রন্থের ‘No more, No less কবিতার রূপান্তর]



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর