Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

শকুনের দোয়ায় গরু মরে না -মির্জা ফখরুল

বিএনপিকে নিয়ে সরকারের অপপ্রচার

| প্রকাশের সময় : ১৪ মার্চ, ২০১৮, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপিতে ভাঙন সৃষ্টি করতে সরকার বিভিন্ন কৌশলে অপপ্রচার চালাচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, শকুনের দোয়ায় গরু মরে না। তিনি বলেন, আজকে আমাদের বিরুদ্ধে চতুর্দিক থেকে সরকার ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। পত্র-পত্রিকায় লেখালেখি করাচ্ছে।
ফেসবুকে দেখবেন, বিভিন্ন রকম অপপ্রচার চালাচ্ছে আমাদের বিরুদ্ধে ভাঙন সৃষ্টি করার জন্য যে, বিএনপির নেতৃত্বে মধ্যে ভাঙন সৃষ্টি হোক। আমি বলতে চাই, জনগণের শক্তিকে ভয় পাচ্ছে বলেই আজকে তারা (সরকার) বিভিন্ন কৌশল আমাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করাতে চাচ্ছে, সেটি না পেরে আবার অপপ্রচার চালাচ্ছে। এতেও লাভ হবে না। আমাদের দেশে একটা কথা আছে ‘শকুনের দোয়ায় গরু মরে না।’ গতকাল (মঙ্গলবার) জাতীয় প্রেসক্লাবে হিন্দু, বৌদ্ধ, খৃষ্টান কল্যাণ ফ্রন্টের উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, অনেকে প্রশ্ন করেন আপনারা এই শান্তিপুর্ণ আন্দোলন করছেন, এতে লাভ কী হচ্ছে? আমি বলতে চাই, এটাই একমাত্র পথ। শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে জনগণের সম্পৃক্ততা নিয়ে এসে যে আন্দোলন, সেই আন্দোলনকে সরকার ভয় পাচ্ছে। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের পথেই আন্দোলনে সফলতা আসবে।
ছাত্র দলের তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন মিলনকে পুলিশি নির্যাতনে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে মিলনকে হত্যা করেছে। মিলনের মা, তার বোন আহজারি করছেন যে আমার ছেলেটা ভালোভাবে সুস্থ অবস্থায় আটক হলো। তিনদিন রিমান্ডে নিয়ে তারা (পুলিশ) কী করলো যে, সে লাশ হয়ে ফিরল? মিলনকে নির্যাতন-নিপীড়ন করে হত্যা করা হয়েছে। এরপর তাকে তারা জেলে পাঠিয়ে বলেছে যে, সে জেলে মারা গেছে। এই ছেলেটি জীবন দিয়ে দিয়েছে শুধুমাত্র গণতন্ত্রকে ভালোবাসবার জন্য, গণতন্ত্রের রাজনীতি করবার জন্য, দেশে একটি গণতান্ত্রিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনবার জন্য। আজকে একা মিলন নয়, এরকম কয়েক বছরের আমাদের অনেক মিলন চলে গেছে। ২০১৩ সাল থেকে আমাদের কতজন নিখোঁজ হয়ে গেছে, এখন পর্যন্ত কেউ ফিরে আসেনি।
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে সরকার ছলচাতুরি করে আটকে রাখতে চাচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমাদের দেশনেত্রী, আমাদের মাদার অব ডেমোক্রেসি তাকে ছলচাতুরি করে আটকে রাখার চেষ্টা করছেন। কেন? ভয়ে। এতো ভয় পান যে বেগম জিয়া যদি আজকে বের হন তাহলে আপনাদের ওই যে মসনদ, এই মসনদ জনগণের স্রোতে ভেসে চলে যাবে। এই কারণে আপনারা তাকে আটকিয়ে রাখছেন। দেশনেত্রী বেশি দিন কারাগারে থাকবেন না, জনগণ তাকে মুক্ত করবে। আমাদের রাজনৈতিক কর্মসূচির মাধ্যমেই তাকে মুক্ত করবো অতি দ্রুত ইনশা আল্লাহ। তিনি বলেন, বিরোধী দলকে নির্মূল করতে সরকার বিরোধী নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা-মোকাদ্দমা ও অত্যাচার-নির্যাতন চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, ক্রমান্বয়ে গণতান্ত্রিক সমস্ত পরিসরটা ছোট হতে হতে একেবারে নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। সভা-সমাবেশ করার জায়গা দেওয়া হয় না। আমরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভা করতে চেয়েছিলাম, জায়গা দেয়া হয়নি। একই সঙ্গে আগামী ১৫ মার্চ চট্টগ্রামে, ১৫ মার্চ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে, ২৪ মার্চ বরিশালে ও ৩১ মার্চ রাজশাহীতে জনসভার করার কথাও জানান বিএনপি মহাসচিব।
সংগঠনের আহ্বায়ক গৌতম চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ও অমলেশ দাস অপুর পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য প্রফেসর সুকোমল বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় নেতা জয়ন্ত কুমার কুন্ডু, জন গোমেজ, অপর্ণা রায়, নিপুন রায় চৌধুরী, সুশীল বড়ুয়া, দেবাশীষ রায় মধু ও জয়দেব জয় বক্তব্য রাখেন।



 

Show all comments
  • kasem ১৪ মার্চ, ২০১৮, ২:৩৪ এএম says : 0
    akdom thik kotha bolesen
    Total Reply(0) Reply
  • গনতন্ত্র ১৪ মার্চ, ২০১৮, ২:৪৪ এএম says : 0
    জনগন বলছেন, ডিজিটাল যুগের শুকন, শুইয়ে থাকলে লেজ ধরে টানবে ৷
    Total Reply(0) Reply
  • Md Imrul ১৪ মার্চ, ২০১৮, ১২:৪৩ পিএম says : 0
    সত্য কথা
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ