Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

নিরাপত্তায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে আইসিসি বেনজীর

প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : র‌্যাবের মহা-পরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় রেখে আসন্ন অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।
তিনি বলেন, সকল হুমকি, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় রেখে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আর এতে প্রযুক্তিগত নিরাপত্তার বিষয়েও বেশি জোর দেয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে সার্বিক নিরাপত্তায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে আইসিসি ও বিসিবির নিরাপত্তা সংশ্লিষ্টরা। রাজধানীর খিলক্ষেতে ল্যা ম্যারিডিয়ান হোটেলে গতকাল শনিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবের এডিজি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান জিয়া, আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান, আইসিসির পক্ষ থেকে সংস্থাটির সিকিউরিটি ম্যানেজার শন ন্যারিসসহ র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
র‌্যাবের ডিজি বলেন, বিশ্বকাপ উপলক্ষে খেরোয়ারেরা যে হোটেল থাকছেন সেখানে এবং খেলার ভেন্যুগুলো নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হয়েছে। নিরাপত্তা রক্ষায় জিপিএস পদ্ধতি, ভেহিকেল স্ক্যানার, ডগ স্কোয়াড, ভেন্যু অপারেশন কমান্ড স্থাপনসহ বিভিন্ন আধুনিক প্রযুক্তি স্থাপন করা হয়েছে। একটি ভেহিকল স্ক্যানার কম সময়ে ২শ’ ফোর্সের চেয়ে বেশি কাজ করতে সক্ষম বলেও তিনি জানান।
মহা-পরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ বলেন, প্রতিটি ভেন্যুতে র‌্যাবের অপারেশন কমান্ড সেন্টার খোলা হবে। তিনি আরো বলেন, বিশ্বকাপ ক্রিকেট, এশিয়া কাপ ও টি-২০’র বড় আসর সফলভাবে আমরা করেছি। ইতিমধ্যে নিরাপত্তার সব বিষয়গুলো আমরা পর্যালোচনা করেছি। আইসিসি ও বিসিবি’র নিরাপত্তা দলের সঙ্গেও আমাদের বৈঠক হয়েছে। নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট ব্যাপারগুলো নিয়ে আমরা তাদের সাথে আলোচনা করেছি। নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে তারা সন্তুষ্টিও প্রকাশ করেছেন।
এসময় তিনি আরও বলেন, নিরাপত্তার এ ধারা অব্যাহত থাকবে টুর্নামেন্টের শেষ দিন পর্যন্ত। আমাদের বোম্ব স্কোয়াড, ডগ স্কোয়াড এবং যানবাহন স্কেনার দলও এর জন্য প্রস্তত করা হয়েছে। সাথে সাথে এবার একটি মনিটরিং ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। এ ব্যবস্থায় হোটেলে বসেই যেন সার্বক্ষণিক সবকিছু মনিটরিং করা যায়, সে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এতে করে কোন টিম কোথায় যাচ্ছে সেটিও মনিটরিং করা যাবে।
‘খেলোয়াড়রা যেখানে থাকবেন, সেই স্থান পুরো নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রতিনিয়ত আপডেট করা হবে। এ জন্য সকলের সহযোগিতাও প্রয়োজন, বলে তিনি জানান।
আগামী ২৭ জানুয়ারি দেশের ৪টি জেলার ৮টি ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ। ওই বিশ্বকাপের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে বেনজীর আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ আয়োজনের পূর্ব অভিজ্ঞতা আমাদের রয়েছে। এই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে খেলার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত নিñিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই আমাদের লক্ষ্য।
অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের নিরাপত্তায় পুলিশ, র‌্যাব ও সকল গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্যরা পরস্পরের সঙ্গে সমন্বয় করে দায়িত্ব পালন করবেন বলে জানান বেনজীর আহমেদ।
এছাড়া বিশ্বকাপের সার্বিক নিরাপত্তায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি দেশের সকল নাগরিককে দায়িত্ব পালন করতে হবে বলে জানান র‌্যাবের ডিজি। আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশ নেয়া দলগুলোর নিরাপত্তা স্কোয়াডে সাদা পোশাকে থাকবে র‌্যাবের গোয়েন্দা দল সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের সব সময় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিক বিবেচনায় রাখতে হয়। সকল সম্ভাবনা, হুমকি ও তথ্য বিবেচনা করে আমরা আমাদের পদক্ষেপ গ্রহণ করি। এ জন্য ছোট থেকে ছোট তথ্যও আমরা বিবেচনায় রাখি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিরাপত্তায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে আইসিসি বেনজীর
আরও পড়ুন