Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ১১ বৈশাখ ১৪২৫, ০৭ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

রবার্ট মুগাবের ক্ষমতাচ্যুতি প্রত্যাহারের আবেদনে প্রেসিডেন্টের না

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ মার্চ, ২০১৮, ১২:০০ এএম

দীর্ঘ ৪০ বছর ক্ষমতায় থেকে গত নভেম্বরে সামকির অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত জিম্বাবুয়ের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে জোরপূর্বক ক্ষমতাচ্যুতিকে এবং ‘অসম্মান’ বলে অভিহিত করে জনসাধারণের সামনে তার প্রথম মন্তব্যে তাকে পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার দক্ষিণ আফ্রিকার সম্প্রচার মাধ্যম ৯৪ বছর বয়েসী এই ব্যক্তি বলেছেন, ‘আমি বলি এটি একটি অভ্যুত্থানমূলক ঘটনা - কিছু লোক একটি অভ্যুত্থান ঘটিয়েছে’।
মুগাবে বলেন, ‘আমরা এই অপমানকে পূর্ণাঙ্গভাবে প্রত্যাখ্যান করব যা আমরা নিজেদের উপর চাপিয়ে দিয়েছি - আমরা এর যোগ্য নই’।
মুগাবেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য হওয়ার পর কয়েক দশক ধরে তার অনুগত ডান হাত এমারসন ম্যানানগাগওয়া প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন।
ম্যানানগাগওয়ার ব্যাপারে মুগাবে বলেন, ‘আমি কখনোই ভাবিনি যে, আমি যাকে লালন পালন করেছি এবং যাকে সরকারে নিয়ে এসেছিলাম - সেই লোক আমার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে যাবে’।
গত শুক্রবার জিম্বাবুয়ে সরকার মুগাবের মন্তব্যকে বাতিল করে দিয়েছে। ম্যানানগাগওয়ার দফতর এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘জাতি অনেক এগিয়ে গেছে’। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ যে কোন সাধারণ নাগরিকের মতোই তিনি স্বাধীনভাবে নিজের মক প্রকাশ করার অধিকার রাখেন’।
‘এই সময়ে আমাদের দৃষ্টিতে ২০১৮ সালে একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচনের প্রস্তুতির উপর থাকবে। আমাদের হাতে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ যা আমাদের জনগণকে গভীর অর্থনৈতিক প্রতিক্রিয়া এবং আন্তর্জাতিক বিচ্ছিন্নতার প্রভাব থেকে টেনে তুলবে।”
গত নভেম্বরে অভ্যুত্থানের সময় ম্যানানগাগওয়াকে সমর্থনকারী সামরিক জেনারেল এবং মুগাবের স্ত্রী গ্রেসকে দেখতে না চাওয়া দেশটির নেতৃস্থানীয় নেতারা রবার্ট মুগাবেকে গৃহবন্দী করে রাখে এবং তাকে পদত্যাগ করতে বলে।
এক সময়ের মুক্তিযুদ্ধের নায়ক মুগাবে অবৈধভাবে মানবাধিকারের অপব্যবহার এবং অর্থনৈতিক বিদ্বেষের জন্য ক্রমান্বয়ে অজনপ্রিয় হয়ে যাওয়ায় জিম্বাবুয়ের জনগণ সেনা অভ্যুত্থানকে ব্যাপকভাবে সমর্থন জানিয়েছে। সূত্র : ডিপিএ।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।