Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

‘কুকুরের বাচ্চাটি বলছে ইহুদিরা তাদের নিজ ভূমিতে বসতি গড়ছে’

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ মার্চ, ২০১৮, ১:৪৮ পিএম

অধিকৃত পশ্চিমতীরে ইহুদিদের অবৈধ বসতি স্থাপনকে সমর্থন দেয়ায় ইসরাইলে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে কুকুরের বাচ্চা আখ্যায়িত করেছেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।
সোমবার রামাল্লায় ফিলিস্তিনি নেতাদের এক বৈঠকে আব্বাস এ মন্তব্য করেন।

জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার পর ট্রাম্প প্রশাসনকে বয়কট করছেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট। তবে তা সত্ত্বেও ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের মধ্যে শান্তি পরিকল্পনা শুরু করার প্রত্যাশা করছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মাহমুদ আব্বাস একই বৈঠকে গত সপ্তাহে গাজায় ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী রামি হামদাল্লাহর গাড়িবহরে বোমা হামলার জন্য হামাসকে দায়ী করেন। এতে আলোচিত হামাস-ফাতাহর পুনর্মিলন বাধাগ্রস্ত হতে পারে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের।

পশ্চিমতীরে অবৈধ বসতি স্থাপনকারীদের সমর্থন দিয়ে ডেভিড ফ্রিডম্যান বলেন, ইহুদিরা তাদের নিজস্ব ভূমিতে বসতি গড়ে তুলছে।

তার এ মন্তব্যে ক্ষিপ্ত আব্বাস বলেন, কুকুরের বাচ্চাটি বলছে- ইহুদিরা তাদের নিজ ভূমিতে বসতি গড়ছে। সে নিজেই একজন বসতি স্থাপনকারী। তার পরিবারও। আবার একই ব্যক্তি তেলআবিবের রাষ্ট্রদূত। তার কাছ থেকে আমরা কী আশা করতে পারি।

আব্বাসের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ফ্রিডম্যান বলেন, তিনি আমাকে কুকুরের বাচ্চা বলে অভিহিত করেছেন। এটা ইহুদিবিদ্বেষ না রাজনৈতিক ডিসকোর্স, তা আপনাদের ওপর ছেড়ে দিলাম।

আর আব্বাসের মন্তব্য অত্যন্ত অসঙ্গত বলে নিন্দা জানিয়েছেন মার্কিন মধ্যপ্রাচ্যবিষয়ক দূত জেসন গ্রিনব্লাট।

তিনি বলেছেন, ঘৃণায় ভরা কথাবার্তা অথবা জনগণের জীবনমান উন্নয়নের জন্য বাস্তব উদ্যোগ গ্রহণ করা, এর মধ্যে একটিকে বেছে নিতে হবে ফিলিস্তিনি নেতাকে।

রাষ্ট্রদূত ফ্রিডম্যান ইসরায়েলের বসতিস্থাপন পরিকল্পনার একজন দৃঢ় সমর্থক।

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে মার্কিন দূতাবাস সেখানে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার পিছনে প্রথম থেকে জোরালো ভূমিকা রাখা ব্যক্তিদের মধ্যে তিনি অন্যতম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইহুদি


আরও
আরও পড়ুন