Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৮, ৮ বৈশাখ ১৪২৫, ০৪ শাবান ১৪৩৯ হিজরী

লর্ড কারলাইলকে খালেদা জিয়ার আইনি পরামর্শক নিয়োগ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০১৮, ১২:০০ এএম

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলায় আইনগত পরামর্শ দেওয়ার জন্য ব্রিটেনের সেরা আইনজীবীদের একজন লর্ড কারলাইলকে নিযুক্ত করেছে দলটি। ব্রিটেনের এই আইনজীবী খালেদা জিয়ার মামলায় তার আইনজীবীদের প্যানেলকে আইনি পরামর্শ ও সহযোগিতা প্রদান করবেন। গতকাল (মঙ্গলবার) বেলা সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একথা জানান। লর্ড অ্যালেক্স কার্লাইলের খ্যাতি বড় বড় কিছু মামলায় তার সাফল্যের জন্য। এর মধ্যে একটি ছিল প্রিন্সেস ডায়ানার মৃত্যুর পর তার ব্যক্তিগত বাটলার পল বারেলের বিরুদ্ধে মামলা। এতে অভিযোগ করা হয়েছিল যে তিনি রাজকীয় সম্পত্তি থেকে কিছু জিনিসপত্র চুরি করেছেন। লর্ড কারলাইল পল বারেলের পক্ষে সেই মামলায় সফলভাবে লড়েছিলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার মামলাগুলোতে আইনি লড়াইয়ের জন্য দেশের আইনজীবীদের সহযোগিতা করা জন্য, পরামর্শ দেওয়ার জন্য ব্রিটিশ আইনজীবী ব্যারিস্টার লর্ড কারলাইলকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। লর্ড কারলাইল “তার অফিস থেকে উনি (লর্ড কারলাইল) একটা চিঠি পাঠিয়েছেন- হি একসেপটেড, এটা উনি একসেপ্ট করেছেন। উনি এখন থেকে সহযোগিতা প্রদান করবেন, পরামর্শ দেবেন এবং প্রয়োজনীয় আইনি যতটুকু করা প্রয়োজন তার পক্ষে সম্ভব সেটা তিনি করবেন। পাশাপাশি এসব মামলার বিচার কার্যক্রম আন্তর্জাতিক মানবাধিকারের মানদÐ মেনে চলা হচ্ছে কি না, সেদিকেও তিনি লক্ষ্য রাখবেন।
খালেদা জিয়ার আইনজীবী প্যানেলে সিনিয়রদের মধ্যে রয়েছেন- সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট আবদুর রেজ্জাক খান ও অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন।
খালেদা জিয়ার মামলায় লড়তে দেশের আইনজীবীরা যথেষ্ট নয় বলেই কি ব্রিটিশ আইনজীবী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে- এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, “নট নেসেসারিলি। এটা করা হয়েছে এনরিচ করা এবং ইন্টারন্যাশনাল এরিনাতে এ বিষয়টাকে নিয়ে আসার জন্য। দেশের অন্যতম শীর্ষ আইনজীবী ড. কামাল হোসেন খালেদার মামলায় পরামর্শ দেবেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ড. কামাল হোসেন বলেছেন যে, উনি কেইসের বিষয়টা পড়ছেন। যতটুকু পরামর্শ প্রয়োজন তিনি দেবেন, যখন মূল কেইসে শুনানি হবে। ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ হাউস অব লর্ডসের সদস্য কারলাইলের আইনজীবী হিসেবে অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, লর্ড কারলাইল কুইন্স কাউন্সিলের সদস্য। দীর্ঘকাল ধরে তিনি আইন পেশার সাথে জড়িত এবং রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তিনি কমনওয়েলথ হিউম্যান রাইটস ইনিশিয়েটিভের চেয়ারম্যান। ২৮ বছর ধরে তিনি পার্টটাইম জজ হিসেবে কাজ করেছেন ইনক্লুডিং ইন দি হাই কোর্ট অব জাস্টিস। তিনি একজন সাবেক এমপি। লর্ড কারলাইলের অফিস থেকে পাঠানো একটি চিঠি পড়ে শোনান বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, ওখান থেকে তিনি কাজ করবেন। প্রয়োজনে দেশেও আসবেন। শুধু জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা নাকি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে থাকা সব মামলায় তিনি পরামর্শ দেবেন এমন প্রশ্নে মির্জা ফখরুল জানান, খালেদা জিয়ার ৩৬টি মামলায় লর্ড কারলাইল আইনি পরামর্শ দেবেন।
সংবাদ সম্মেলনে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, গণতন্ত্রের ওপর অবৈধ সরকারের পুলিশ অবাঞ্ছিত অনুপ্রবেশ করছে। শুধু রাজধানীতেই নয় প্রত্যন্ত অঞ্চলেও বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সমাবেশের ওপর পুলিশ বেপরোয়া হানা দিচ্ছে। বর্তমান বাংলাদেশে কেউ ভাল নেই। বাংলাদেশের শহর ভাল নেই, গ্রাম ভাল নেই, কৃষক-শ্রমিক-ছাত্র-পেশাজীবী কেউ ভাল নেই। শেখ হাসিনা একদেশ একদল ও একনেতার নীতিতে বিশ্বাসী। বহুত্ত¡বাদ দেশ থেকে চিরতরে বিদায় করে দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতাক্ষুধা চরিতার্থ করতে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনীতির ময়দান থেকে সরাতে সর্বোচ্চ প্রয়াস চালাতে দ্বিধা করছেন না। একদিকে যেমন দেশনেত্রীকে অন্ধকার, জরাজীর্ণ, বালি ও সিমেন্টের ধুলায় আকীর্ণ শ্বাসরোধী পরিবেশে কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়েছে অন্যদিকে আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে বেগম জিয়াকে কারাগারে দীর্ঘদিন আটকে রেখে প্রধানমন্ত্রী আত্মতুষ্টি লাভ করতে চাচ্ছেন। বেগম জিয়াকে কারাবন্দী করে সরকার মূলত: গণতন্ত্রকেই বন্দী করেছে। আর সেজন্য ঢাকাসহ বাংলাদেশের আনাচে-কানাচে সরকারের বন্য প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে অন্যায় অনাচারের বিরুদ্ধে কোথাও যেন প্রতিবাদের আওয়াজ না ওঠে সে কারণে বিএনপি এবং অঙ্গ সংগঠনের যেকোন কর্মসূচির উপরও পুলিশ সন্ত্রাসী আক্রমণ চালাচ্ছে, নেতাকর্মীদেরকে হত্যা ও অদৃশ্য করাসহ গুরুতর জখম ও নির্বিচারে গ্রেফতার করছে।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুল খায়ের ভুঁইয়া, আবদুস সালাম, আতাউর রহমান ঢালী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।
এদিকে ব্রিটিশ আইনজীবী নিয়োগের বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ জানিয়েছেন, লর্ড কারলাইলের ভূমিকা হবে মূলত একজন আইনি পরামর্শকের। রাষ্ট্রপক্ষ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আনা মামলাগুলো যেভাবে পরিচালনা করছে, এসব মামলার ব্যাপারে আদালতে বিচারিক রীতিনীতি মেনে চলা হচ্ছে কিনা, তিনি সে বিষয়েও পরামর্শ দেবেন। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ জানান, লর্ড কারলাইলকে নিয়োগের পেছনে আরেকটি কারণ হলো এসব মামলার আন্তর্জাতিক দিকটির দিকে বিশেষজ্ঞ হিসেবে নজর রাখা। ভারত, পাকিস্তান, কিংবা আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে এই ধরনের মামলায় কীভাবে আইন প্রয়োগ করা হয়, ন্যায়বিচার কীভাবে নিশ্চিত করা হয়, লর্ড কার্লাইল সেই বিষয়েও পরামর্শ দেবেন।

 


Show all comments
  • মিলন ২১ মার্চ, ২০১৮, ২:৩৬ এএম says : 0
    দেখা যাক তিনি কি করতে পারেন।
    Total Reply(0) Reply
  • Dullal Uddin ২১ মার্চ, ২০১৮, ২:০১ পিএম says : 0
    নাছিম ও আওয়ামিলিগের এতো চিন্তা কেন বি এন পি যারে নিয়োগ দোক তাদের ইচ্ছা
    Total Reply(0) Reply
  • N Mohammed Rimon ২১ মার্চ, ২০১৮, ২:০২ পিএম says : 0
    দেশনেত্রীর মুক্তির জন্য বিএনপি কাকে অাইনজীবী নিয়োগ করবে, তা কি অাওয়ামিলীগ থেকে পরামর্শ নিয়ে করতে হবে নাকি? যেভাবে করে মিছিল মিটিংয়ের জন্য অনুমতি নিতে হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Kausar Patowary ২১ মার্চ, ২০১৮, ২:০২ পিএম says : 0
    অাপনাদের গাত্রদাহ দেখে বুঝা যাচ্ছে, বিএনপি উনাকে নিয়োগ করে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর