Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ১১ বৈশাখ ১৪২৫, ০৭ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

৯ হাজার ৬৮০ কোটি টাকার ১৬ প্রকল্প একনেকে অনুমোদন আামাদের চূড়ান্ত লক্ষ্য উন্নত দেশে যাওয়া -পরিকল্পনামন্ত্রী

ভারত-মিয়ানমার সীমান্তে হবে সড়ক

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০১৮, ১২:০০ এএম

তিন পাবর্ত্য জেলা খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানের সঙ্গে ভারত ও মিয়ানমারের সীমান্ত সড়ক রয়েছে ৫৪০ কিলোমিটার। এর মধ্যে থেকে সীমান্তে বাংলাদেশ অংশে ৩১৭ কিলোমিটার সীমান্ত সড়ক নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে খরচ হবে এক হাজার ৭০০ কোটি টাকা। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভায় (একনেক) এই সংক্রান্ত একটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে এই টাকা যোগান দেওয়া হবে। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করেন। সভায় নেপালে ইউএস বাংলা উড়োজাহাজে নিহত পরিকল্পনা কমিশনের দুই কর্মকর্তার জন্য শোক প্রস্তাব গৃহীত হয়।
পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দরের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়নে একটি প্রকল্প সংশোধিত আকারে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে গতকালের একনেক সভায়। প্রকল্পটি ২০১৫ সালে যখন প্রথমবারের মতো অনুমোদন পায়, তখন এর ব্যয় ছিল এক হাজার ১১৮ কোটি টাকা। সেটি এখন বেড়ে হয়েছে তিন হাজার ৩৫০ কোটি টাকা। পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণের আগে প্রাথমিক কাজ সারতে এই প্রকল্পটি নেওয়া হয়েছে।
একনেক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এসময় পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম, আইএমইডি সচিব মফিজুল ইসলামসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।
মন্ত্রী জানান, পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দরের ব্যয় ও মেয়াদ বাড়ানোর জন্য প্রথম সংশোধনী প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে আরও ১৫টি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পষিদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৯ হাজার ৬৮০ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৯ হাজার ৫৯১ কোটি টাকা এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থার তহবিল থেকে ৮৯ কোটি টাকা খরচ হবে।
নেপালে বিমান দূর্ঘটনায় নিহত পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের দুজন কর্মকর্তার মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করেছে একনেক। সম্প্রতি কাঠমন্ডুতে বিমান দূর্ঘটনায় নিহত দু জন হলেন সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের (জিইডি) সিনিয়র সহকারী নাজিয়া আফরিন চৌধুরী এবং সহকারী প্রধান উম্মে সালমা। এই দুই দক্ষ কর্মকর্তার শোক প্রস্তাব উপস্থাপন করা হলে তা, তা সর্বসম্মতিতে গৃহীত হয়। এ সময় মন্ত্রী তার মায়ের মৃত্যুর কথা তুলে ধরেন এবং সবার দোয়া কামনা করেন।
পায়রা বন্দরের ব্যয় বেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, প্রায় ১০ হাজার একর জমি অধিগ্রহণ করতে হচ্ছে। তাছাড়া ক্ষতিগ্রস্তদের পুর্নবাসন এবং নতুন অংগ যুক্ত হওয়ায় পায়রা বন্দরের অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পটির দুই হাজার কোটি টাকার বেশি বাড়ছে। আমরা এ বন্দরটিকে পুর্নাঙ্গ গভীর সমুদ্র বন্দরে রূপান্তর করতে চাই। সেজন্য এর প্রথম পর্যায়ের কার্যক্রমগুলো বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আামাদের এখন চূড়ান্ত লক্ষ্য হচ্ছে উন্নত দেশে যাওয়া। ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা উন্নত দেশে যেতে চাই। মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন-উড়ির চরে বসবাসকারী জলদস্যুরা যদি আতœসমর্পণ করেন তাহলে তাদের কাজ দেওয়া হবে। এছাড়া চরকুকরি মুকরিতে নদীভাঙ্গন বাঁধে গাছ লাগানোর নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
গতকালের একনেক সভায় যে ১৬টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে, তার বেশিরভাগই সংশোধিত আকারে। নির্ধারিত সময়ে এসব প্রকল্পের কাজ শেষ করতে পারেনি সরকার। গতকাল একনেক সভায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইউনিট এবং প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিউট স্থাপন প্রকল্পটি সংশোধিত আকারে অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে খরচ ধরা হয়েছে ৯১২ কোটি টাকা। আগে ছিল ৫২২ কোটি টাকা। প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় বিএনপি ২০১৪ সালে পেট্রোল বোমার কঠোর সমালোচনা করেন।
গতকালের একনেক সভায় অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে, ৫৫৮ কোটি টাকা ব্যয়ে জেলা মহসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ, ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে ভবেরচর-গজারিয়া- মুন্সীগঞ্জ জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ, ৫৪৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অবকাঠামো নির্মাণ, ২৪৯ কোটি টাকা ব্যয়ে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা কার্যালয়ের ২০ তলা ভিত বিশিষ্ট ২টি বেইজমেন্টসহ ১০ তলা প্রধান কার্যালয় নির্মাণ, ২১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে নোয়াখালী সদরে সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য আবাসিক ভবন নির্মাণ, ৯২ কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ ডাক অধিদপ্তরের সদর দপ্তর নির্মাণ, ব্যয় ৯২ কোটি টাকা। ৫২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলাধীন তেতুলিয়া নদীর ভাঙ্গন হতে বকসী লঞ্চঘাট হতে বাবুরহাট লঞ্চঘাট পর্যন্ত প্রতিরক্ষা ও ড্রেজিং এবং কুকুরী-মুকরী দ্বীপ বন্যা নিয়ন্ত্রন, ৪৩২ কোটি টাকা ব্যয়ে মেঘনা নদীর ভাঙ্গন হতে ভোলা জেলার লালমোহন উপজেলাধীন লর্ডহার্ডিঞ্জ ও ধলিগৌরনগর বাজার রক্ষা, ব্যয় ৮৮ কোটি টাকা ব্যয়ে নোয়াখালী জেলার হাতিয়া ও সুবর্ণচর উপজেলাধীন স্বর্ণুদ্বীপ মেঘনা নদীর ভাঙ্গন হতে রক্ষাকল্পে নদী তীর সংরক্ষণ প্রকল্প।

 


Show all comments
  • ২১ মার্চ, ২০১৮, ৯:৪৭ পিএম says : 0
    এখানে আপনি আপনার মন্তব্য করতে পারেন হাতিয়াই কি বলক হবে আমি বিসসাইস কৱতে পাৱলামনা
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর